বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাদুঃ পুতিনের চুম্বন

রাষ্ট্রপতি পুতিন, গত শুক্রবারে আমুর নদীর প্রবল বন্যায় আক্রান্ত নাগরিকদের সাথে সাক্ষাৎ করার জন্য [রুশ ভাষায়] সাইবেরিয়ার বৃহত্তম শহর খাবারোভস্ক ভ্রমণ করেন। রাশিয়া টুডের তৈরী এক ভিডিওতে (যা ইউটিউবে পোস্ট করা হয়েছে) দেখা যাচ্ছে স্থানীয় সম্প্রদায়ের জন্য তৈরী করা এক কেন্দ্রে পুতিনের স্থানীয়দের সাথে সাক্ষাৎ-এর দৃশ্য তুলে ধরা হয়েছে, যেখানে নাগরিকরা প্রতিবেশী চীনকে নিয়ে তাদের সমস্যা এবং শঙ্কার কথা উল্লেখ করেছে (আমুর নদী রুশ-চীন সীমান্ত দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে), যে দেশটি হয়ত এখানে এসে তাদের বাড়িঘর দখল করে ফেলবে। যখন রাষ্ট্রপতি বন্যার্তদের সাথে কথা বলছিলেন, তখন একটি শিশু পুতিনের মনোযোগ আকর্ষণের চেষ্টা করে। মস্কোভস্কি কোমসোমোলেট ঘটনাটিকে আবার বর্ণনা করছে [রুশ ভাষায়] :

- Все будет хорошо, не расстраивайся! – посоветовал мальчику Путин.
– Я не плакаю! – обиделся Анатолий.

“ সব কিছু ঠিক হয়ে যাবে…দুঃখ করো না!” পুতিন শিশুটকে উপদেশ প্রদান করে।
আনাতোলি নামের শিশুটি এতে আহত হয়ে উত্তর দেয়“ আমি কাঁদছি না!”

ছোট্ট বালকটি পুতিনকে বিরক্ত করতে থাকে এবং সমগ্র মিটিং জুড়ে হাতের জামা ধরে টানতে থাকে। অবশেষে, পুতিন শিশুটির দিকে ফিরে তাকায়, বলে ” বেশ আমি বুঝতে পেরেছি, দেখি, তোমাকে চুমু দেই,” আর তারপর সে শিশুটির চিবুকে একটা চুম্বন প্রদান করে।

Do politicians like children even when not campaigning? YouTube screenshot.

এমন কি রাজনীতিবিদেরা যখন প্রচারণা চালায় না, তখনও কি তারা শিশুদের পছন্দ করে? ইউ টিউবের স্ক্রীনশট।

জনপ্রিয় সোশ্যাল মিডিয়া ওয়েবসাইট ভিকোনটাকে-তে একজন ব্যবহারকারী স্মরণ করিয়ে দিচ্ছেন যে একদা পুতিন একটি শিশুর পেটে চুম্বন করেছিল, সে মন্তব্য করছে [রুশ ভাষায়]:

опять детей целует
куда мирзулина смотрит ваще?!
Безобразие.

আরো একবার শিশুদের চুম্বন
ওহে পুরুষেরা, মিরজুলিনা [অসুস্থ্য] কোথায় নজর রাখছে,?!
এটা একটা লজ্জা।

“সমকামিতার বিরুদ্ধে প্রচারণা” জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের মাধ্যম হচ্ছে মিরজুলিনা”। আরেকজন ব্যবহারকারী ঠাট্টা করছে:

Вова педофил.

ভোভা [ভ্লাদিমির] শিশুর প্রতি আকৃষ্ট।

অনেক রুশ নাগরিক এখনো সমকামিতাকে শিশুর প্রতি দূর্বলতার সাথে তুলনা করে থাকে। এ রকম একটা গুজব রয়েছে যে পুতিন “ শিশুদের পছন্দ করে”, যা পেট চুম্বনের ঘটনার পর দ্রুত ইন্টারনেটে ছড়িয়ে পড়ে।
পুতিনের চুম্বনকে ওয়ারউলফের কামড়কে সাথে তুলনা করে বলা হচ্ছে যে, একবার এই ঘটনা ঘটলে ঘটনার শিকার ব্যক্তি দ্বিতীয় পুতিনে পরিণত হবে:

он укусил ребенка! Теперь, каждую ночь, как только взойдет луна, ребенок будет воровать деньги, тайно переписывать на себя недвижимость и колоться ботоксом

সে এক শিশুকে কামড়ে দিয়েছে! এখন, প্রতিরাতে, যখনই চাঁদ উঠবে, তখন শিশুটা টাকা চুরি করতে শুরু করবে, গোপনে অন্যের সম্পত্তি নিজের নামে করে নেবে, আর নিজের ভেতরে বোটক্স ইঞ্জেকশন প্রবেশ করাবে।

এরপরেও আরেকজন পরিহাস করেছে:

ПОЦЕЛУЙ ИУДЫ

জুডাসের চুম্বন

এদিকে অন্যেরা সেই ছোট্ট শিশু পুতিনকে যে কথা বলেছে সেটা নিয়ে মজা করেছে, তারা রুশ “দাম” (“Плотина”) নামক শব্দটিকে ভেঙ্গে এর ভিন্ন ভিন্ন অর্থ প্রদান করেছে, যা কিনা উক্ত শিশুটি বারবার উচ্চারণ করছিল, একজন দর্শক প্রশ্ন করেছে:

Ребенок говорит путину: “Палачина”?

বাচ্চাটা কি কি পুতিনকে জল্লাদ বলে ডকেছে।[“প্লোটিনা”(দাম)->” প্লাচ”(জল্লাদ, যে জীবন হরণ করে)->”প্লাচিনা”(নির্মম খুনী)

আরেকজন রসিকতা করেছে

Ребенок, по сути сказал, не “платина”, а “плати На”.

The child, in fact, did not say “dam”, but “pay us”. [“plotina”->”plati na[m]”] (this pun can also be interpreted as “pay Na[valny]”, or “plati Na[h]” (“pay up f*cker”))

ঘটনা হচ্ছে বাচ্চাটা “দাম” শব্দটি উচ্চারণ করেনি, তার বদলে সে বলেছে আমাদের টাকা দাও। [” প্লোটিনা”->” প্লোটি না [এম]”] ( এই শব্দটিকে ঘুরিয়ে বললে এর মানে দাঁড়ায় পে না [ভালনি]”, অথবা ” প্লাটি না [এইচ]” (” টাকা দে বদমাইশ”))

আরেকটা মন্তব্য যা হালকা চালে বলা হয়েছে:

у мальчика мож проблемы с дикцией?

হয়ত শিশুটির বর্ণনায় সমস্যা ছিল?

সবশেষে, বলা যায় এই ধরনের রসিকতা, যা কিনা হীন মানসিকতার, অন্যায় এবং গঠনশীল নয়। কিন্তু রুশ কিছু নাগরিক, যারা মনে করে যে দেশে বাক স্বাধীনতা আর নেই, সেখানে তাদের জন্য ঠাট্টা এবং ঘৃণা হচ্ছে মত প্রকাশের একমাত্র উপায় যা অবশিষ্ট আছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .