বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

গ্লোবাল ভয়েসেস বোর্ডে যোগদান করলেন ইন্টারনেট উদ্যোক্তা মোহাম্মেদ নানাভায়

Mohamed Nanabhay. Image by Flickr user @joi (CC BY-SA 2.0)

মোহাম্মদ নানাভায়। ছবিঃ ফ্লিকার ব্যবহারকারি @জয় [সিসি বাই-এসএ ২.০]

আমরা অত্যন্ত আনন্দের সাথে ঘোষণা করছি যে, ইন্টারনেট উদ্যোক্তা মোহাম্মেদ নানাভায় গ্লোবাল ভয়েসেসের বোর্ডে যোগদান করেছেন।

গ্লোবাল ভয়েসেসের একজন শুরুর দিকের প্রদায়ক মোহাম্মেদ, যিনি প্রচারমাধ্যম, প্রযুক্তি এবং বাণিজ্যিকীকরণ নিয়ে কাজ করেন এবং সংস্থাটিতে তিনি জ্ঞানের সম্পদ ও অনলাইন বার্তা প্রচারের মাধ্যম, বিকল্প প্রচারমাধ্যম চ্যানেল, শ্রোতা প্রবৃত্তি ও অনলাইন সম্প্রদায় সম্পর্কে অভিজ্ঞতা এনে দিয়েছেন।

অনলাইনে আল জাজিরার ইংরেজি বিভাগের প্রধান হিসেবে তিনি এমন একটি দলের নেতৃত্ব দিয়েছেন, যেটি ২০১১ সালে আরব বিপ্লব নিয়ে পুরস্কারজয়ী কভারেজ তৈরী করেছে। তাঁর মেয়াদকালে আল জাজিরার ইংরেজি ওয়েবসাইট ব্যবসা-বাণিজ্যে বিশাল প্রবৃদ্ধি অর্জন করেছে। অনলাইন সাংবাদিকতার ক্ষেত্রে অভাবনীয় শ্রেষ্ঠত্বের জন্য অনলাইন নিউজ এসোসিয়েশন তাকে স্বীকৃতি দিয়েছে। ২০০৬ সালে মোহাম্মেদ আল জাজিরাতে নিউ মিডিয়া বিভাগ প্রতিষ্ঠা করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম এবং উঠতি প্রচার মাধ্যম প্রযুক্তির সাহায্যে শ্রোতাদের অন্তর্ভুক্ত করাই এই বিভাগটির প্রধান লক্ষ্য। সে সময় তিনি আল জাজিরার ক্রিয়েটিভ কমন্স রিপোজিটরি নামের ওয়েবসাইটটির জন্য পথ করে দেন এবং এটি উদ্বোধন  করেন।

১৯৯৫ সাল থেকে একজন ইন্টারনেট উদ্যোক্তা হিসেবে মোহাম্মেদ অনলাইন সম্পদ বৃদ্ধির সাথে জড়িত। এবং ইন্টারনেট কোম্পানিগুলোর প্রথম ধাপে সূচনা তহবিল ও পরামর্শ দেওয়ায় তিনি একজন দেবদূত সম বিনিয়োগকারীও বটে। এ কারনে বিজনেস উইক তাকে একজন সৃজনশীল সাধারণের অগ্রদূত হিসেবে নাম দিয়েছে। তিনি প্রচার মাধ্যম উন্নয়ন বিনিয়োগ তহবিলের বোর্ড অব ডিরেক্টরদের একজন হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। তিনি জাগ্রত সমাজের বিষয়ে বিশ্ব অর্থনৈতিক ফোরামের বৈশ্বিক বিষয়সূচি কাউন্সিলের একজন সদস্য।

মোহাম্মেদ দক্ষিণ আফ্রিকার জোহানেসবার্গের উইটওয়াটারস্রান্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে কম্পিউটার সায়েন্সে এবং ইতিহাসে স্নাতক ডিগ্রী লাভ করেন। সেখানে তিনি ছাত্র ইউনিয়নের সহ-সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি ক্যামব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আন্তর্জাতিক সম্পর্কে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী লাভ করেন।

মোহাম্মেদ বলেছেন, “যারা বিভিন্ন সমাজের ভিতরে প্রভাব বিস্তারকারী ইস্যুগুলো বুঝতে চায়, তাঁদের জন্য গ্লোবাল ভয়েসেস প্রথম ধাপ”। তিনি আরো বলেন, “যেহেতু পৃথিবী ধীরে ধীরে আরো বেশী পরষ্পর সংযুক্ত হয়ে পড়ছে এবং এখনও আরো জটিল হয়ে উঠছে। গ্লোবাল ভয়েসেস একটি সতেজকারক এবং বিভিন্ন ভাষা ও সীমান্ত জুড়ে সততার একটি সেতু। এটি প্রাসঙ্গিক খবর প্রদান করে এবং সারা বিশ্ব জুড়ে অনুবাদকারী সম্প্রদায় সেগুলো অনুবাদ করে। গ্লোবাল ভয়েসেসের এক সময়ের অনুবাদকারী হিসেবে এবং আল জাজিরার সাবেক নির্বাহী হিসেবে, আমি গ্লোবাল ভয়েসেস সম্প্রদায়ের সাথে অভিজ্ঞতা ও ভাবনা ভাগাভাগি করতে খুব উত্তেজিত বোধ করছি”।

গ্লোবাল ভয়েসেসের নয় সদস্য বিশিষ্ট বোর্ড প্রতি বছর চার বার একত্রিত হন এবং সূচনা কাল থেকেই তাঁরা গ্লোবাল ভয়েসেসের একজন সক্রিয়, অন্তর্ভুক্ত এবং প্রধান অংশ হিসেবে আছেন। আমাদের বোর্ডটি দু’জন প্রতিষ্ঠাতা, তিনজন সম্প্রদায় প্রতিনিধি এবং চারজন বহিরাগত সদস্য নিয়ে গঠিত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .