বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

প্রতিবন্ধকতা বেড়ে যাওয়ায় চীনের উচ্চমার্গের খাবারের দোকানগুলো এখন আত্মগোপন করেছে

অমিতব্যয়ের উপর চীনে নিষেধাজ্ঞা জারির ফলশ্রতিতে ভূরিভোজনের জন্য উচ্চমার্গের খাবারের দোকানগুলো এখন আত্মগোপন করেছে।

সাউথ চায়না মরনিং পোস্টের মতে, স্থানীয় সরকার দপ্তরের ভিতরের ক্যাফেটেরিয়াগুলোকে উচ্চমার্গের রেস্তোরাঁয় পরিনত করেছে। জনসম্মুখে যেন সেগুলো উপভোগ করতে দেখা না যায়, তাই তাঁদের বাড়িতে ব্যক্তিগত অমিতব্যয়ী রাতের খাবার পাঠিয়ে আপ্যায়নের ব্যবস্থা করেছে।

গত নভেম্বর থেকে চীনের প্রেসিডেন্ট ঝি জিনপিং সংকেত দিয়েছেন, অতিরিক্ত খরচ বন্ধ করার জন্য তাঁর পরিকল্পনা রয়েছে। তখন তিনি অতিরিক্ত ভূরিভোজন থামানোর ডাক দেন। এই নীতিটির একটি চিত্তাকর্ষক স্লোগান আছেঃ চারটি খাবারের পদ এবং একটি স্যুপ

রাষ্ট্রীয় প্রচার মাধ্যমও রিপোর্ট করেছে [ম্যান্দারিন], বেইজিং এবং সাংহাই এর মতো বড় শহরগুলোতে কয়েকজন কর্মকর্তা তাঁদের উচ্চমার্গের ভূরিভোজন সমাজ থেকে বিচ্ছিন্ন কোন উপশহরীয় এলাকা বা লুকানো ক্লাবগুলোতে সরিয়ে নিয়েছে। ভূরিভোজনের সময় কর্মকর্তারা এখনও দামী চীনা পানীয় মাওতাই পান করে। কিন্তু সে সময় হয় তাঁরা বোতলের লেবেল ছিঁড়ে ফেলে অথবা কমদামী অ্যালকোহল পানীয়র বোতলে ভরে পান করে।

এই গোপনে সেরে নেওয়া ভূরিভোজনের খবর শীঘ্রই অন্যান্য চীনা প্রচার মাধ্যমগুলো সংগ্রহ করে নিয়েছে।

ওয়েব ব্যবহারকারীরা অভ্যাসটির বিরুদ্ধে গালিগালাজপূর্ণ ভাষা প্রয়োগ করেছে। তাঁদের বেশিরভাগই তখন কর্মকর্তাদের আচরণের সমালোচনা করেছে। কেউ কেউ উল্লেখ করেছেন যে শাসনতন্ত্রের নিজের ভেতরেই প্রধান সমস্যা বিরাজ করছে।

জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং সাইট সিনা ওয়েইবোতে “কুই রেনশি” লিখেছেন [ম্যান্দারিন]:

A screenshot of a sarcastic song about officials pouring maotai into the bottled water

পানির বোতলের মধ্যে মাওতাই ঢালা অফিসারদের বিরুদ্ধে ব্যাঙ্গাত্মক গানের স্ক্রিনশট। [ইউকু থেকে] 

咱们的官员适宜搞地下工作啊!红色传统继承的好啊!

আমাদের কর্মকর্তারা মাটির তলায় কাজ করতে বেশ পারদর্শী! তাঁরা প্রচলিত লালফিতার প্রথাটিকে খুব ভালোভাবেই অনুসরণ করছে!

দাপ্তরিক প্রাচুর্যের পেছনের ইতিহাস সম্পর্কে একজন আইনজীবী এবং পরামর্শক ব্যাখ্যা [ম্যান্দারিন] করেছেনঃ

中国自古都有“以官为贵”的传统思想,这样的思想不转变,官们就自以为贵,认为享受宴请是理所当然的。从宴请的目的来看,无非关乎名利。因此如要改变宴请坏风气,什么法律约束先放一边,法制当然要完善,最重要的是先从思想上做起来。

প্রাচীনকাল থেকে চীনে কর্মকর্তাদের প্রথা অনুযায়ী সম্মানীয় লোক হিসেবে দেখা হয়। যদি এ ধরনের মানসিকতা পরিবর্তন করা না যায়, তবে কর্মকর্তারা সবসময়েই মনে করবে উচ্চমার্গের ভূরিভোজন হচ্ছে একটি আদর্শ। পদোন্নতি চাইতে কর্মকর্তারা একে অন্যকে ভূরিভোজন করতে আমন্ত্রণ জানায়। তাই এ ধরণের খারাপ অভ্যাস বদলাতে আমাদের শুধুমাত্র আইন নিয়ে চিন্তা করা উচিৎ নয়। আইনের শাসন জরুরী, কিন্তু মানসিকতা সবচেয়ে বেশী গুরুত্বপূর্ণ।

লেখক শেন ডংজুন নিষেধাজ্ঞা টিকে বোকা বানাতে কর্মকর্তাদের বিভিন্ন “সৃজনশীল” উপায়ের সাথে তাঁদের কাজ সুন্দরভাবে শেষ করার অক্ষমতার তুলনা [ম্যান্দারিন] করেছেনঃ  

相当一部分地方官员,让他们为百姓办点实事、解决问题时通常都“没办法”,而在应对上头的相关条文上,却从不缺乏智慧

যদি আপনি এ সকল কর্মকর্তাদের জনগনের জন্য কিছু করতে বলেন বা কোন নির্দিষ্ট সমস্যা সমাধান করতে বলেন, তবে তাঁরা বলবে, “এটা নিয়ে কিছু করা যাবে না”। কিন্তু যদি নিষেধাজ্ঞাটি নিয়ে কিছু করতে বলেন, তবে সেক্ষেত্রে তাঁদের জ্ঞানের কখনোই কোন অভাব হবে না।

আরেকজন ব্যবহারকারী “আর্লি অর্ম” [ম্যান্দারিন] শাসনতন্ত্রের ভেতরের সমস্যাগুলো উল্লেখ করে বলেছেনঃ

真是上有政策,下有对策,说到底根本原因还是制度问题。不改革,说再多什么话都是屁话,做再多什么事都是白做。只要中国人每年都挤破头去考公务员,那制度问题就一直存在,受益的就不会是老百姓。 “আর্লি অর্ম”

কোন নিষেধাজ্ঞার বিষয় হলে তা সমাধান করার উপায় তাঁদের কাছে সবসময়ই থাকে। শাসনতন্ত্রটি নিজেই প্রধান সমস্যা। সংস্কার ছাড়া সরকার কি বললো আর কি করলো সে বিষয়টি একেবারেই বৃথা। যতদূর সম্ভব চীনের লোকেরা সিভিল সার্ভেন্ট পরীক্ষা পাসের জন্য রীতিমতো যুদ্ধ করে। এটি নির্দেশ করে যে শাসনতন্ত্রে সমস্যা আছে। এ ধরনের শাসনতন্ত্র থেকে সাধারণ মানুষ কোন উপকার পাবে না।

“ইয়ুয়ানফাং গুয়ানডিয়ান” লিখেছেন [ম্যান্দারিন], ভূরিভোজনের বিরুদ্ধে নীতি নির্ধারন শুধুমাত্র দেখানোর জন্যঃ

问题在于反腐口号只是为了安抚民众,并非真要反腐!因为上下一样黑这是众所周知的事实。

সমস্যা হল নিষেধাজ্ঞাটি ব্যবহার করা হয়েছে জনগণের মতামত পরিচালনা করার জন্য। প্রকৃত অর্থে দূর্নীতি-বিরোধীতা নয়। কারন উচ্চ স্তরের সরকার এবং নিম্ন স্তরের কর্মকর্তা, উভয়ই দুর্নীতিগ্রস্ত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .