বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সম্পত্তির কর ফাঁকি দিতে চীনা দম্পতিদের বিবাহ বিচ্ছেদ

চীনে পুঁজি অর্জনকারী কর বৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারণে দম্পতিদের দ্বিতীয় বাড়ি বিক্রির ওপর উচ্চ হারে কর পরিশোধ এড়িয়ে যেতে আদালতে তাঁদের বিবাহ বিচ্ছেদের জন্য নথি দাখিলের পরিমাণও বেড়েছে।

চীনের সরকার দেশের বাড়ন্ত রিয়েল এস্টেটের প্রতারণাপূর্ণ ব্যবসা ক্ষেত্রটিতে শাসন করার চেষ্টায় ১ মার্চ, ২০১৩ দ্বিতীয় বাড়ি বিক্রির ওপর করের পরিমান শতকরা ১-২ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে শতকরা ২০ শতাংশ করা সহ একগুচ্ছ নতুন নীতির মোড়ক উন্মোচন করেছে।

করের পরিমান বেড়ে যাওয়ায় কিছু দম্পতি, যাদের দু’টি সম্পত্তি আছে তাঁরা এখন আপসে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটাচ্ছেন যেন তাঁদের প্রত্যেকে একটি করে সম্পত্তির মালিক থাকেন। এরপর তাঁরা তাঁদের যেকোন একটি সম্পত্তি বিক্রি করতে পারবেন এবং পুনরায় বিয়ে করার আগে ২০ শতাংশ হারে কর এড়িয়ে যেতে পারবেন।

কর বৃদ্ধিকে ধন্যবাদ। চীনের সবচেয়ে জনপ্রিয় মাইক্রোব্লগিং সাইট সিনা ওয়েইবোতে “নকল বিবাহ বিচ্ছেদ” বাক্যাংশটি একটি কানাঘুষার শব্দে পরিনত হয়েছে। যদিও কর ফাঁকি দিতে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটানোর বিরুদ্ধে দম্পতিদের সাবধান করে দিয়েছেন আইন বিশেষজ্ঞরা। তবুও বেশীরভাগ ইন্টারনেটবাসী নীতিটির প্রতি ঝোঁককে দায়ী করেছে। ওয়েব ব্যবহারকারীরা দাবি [ম্যান্ডারিন] করেছে, “আমরা এমনটি করতে বাধ্য হয়েছি”।

“চীনা-পদ্ধতির বিবাহ বিচ্ছেদ” শিরোনামে চীনের ম্যাগাজিন নান্দু একটি কভার প্রতিবেদন করেছে, যেটি [ম্যান্ডারিন] অনেকটা এমনঃ

In Shanghai, the Civil Affairs Bureau set up a banner as a reminder, which reads: “Real estate market is risky, be cautious about getting a divorce.”

সাংঘায়ে সিভিল বিষয়ক ব্যুরো একটি পোস্টার টাঙ্গিয়েছে, যেখানে লিখাঃ “রিয়েল এস্টেট মার্কেট খুবই ঝুঁকি পূর্ণ। বিবাহ বিচ্ছেদের ক্ষেত্রে সতর্ক হন” 

若不是“东风恶”,谁愿意假离婚,这样的夫妻,大部分是刚需人群。一个逼得普通百姓离婚来避税的制度,就一定是恶政。“国五 条”出台后,因离婚排队民政局立牌提醒“楼市有风险,离婚需谨慎”,可制订政策的人又没有反思一下:“离婚几辛酸,政策须谨慎

যদি এই বাজে নীতিটি না করতো, তবে কে নিজ ইচ্ছায় মিথ্যা বিবাহ বিচ্ছেদ করতো? এধরনের বেশীরভাগ দম্পতির জন্য একটি এপার্টমেন্টের মালিক হতেই হবে। একটি নীতি যা সাধারণ জনগনকে কর ফাঁকি দিতে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটাতে বাধ্য করে তা অবশ্যই কুশাসন। নতুন নীতিটির সূচনার পর জনগন বিবাহ বিচ্ছেদের আবেদন করতে লাইনে দাঁড়ায়। তাই সিভিল অ্যাফেয়ার্স ব্যুরো স্মারক বস্তু হিসেবে একটি ব্যানার টাঙিয়েছেঃ “রিয়েল এস্টেট বাজারটি ঝুঁকিপূর্ণ, বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটানোর বিষয়ে সাবধান হন”। যেভাবেই হোক, এই নীতি নির্ধারকেরা কি নিজেদের প্রতিফলিত করেঃ “বিবাহ বিচ্ছেদ তিক্ত, নীতি নির্ধারনের বিষয়ে সাবধানতা অবলম্বন করুন”।

সাংবাদিক “ঝু জুডং” মন্তব্য [ম্যান্ডারিন] করেছেনঃ

假离婚打政策擦边球,是社会诚信陷落的佐证。但也警示我们出台政策要多为百姓想想,别拍脑袋,尽量减少政策漏洞,把政策的“负能量”降到最低。

নীতিটির মধ্যকার একটি আইন এড়ানোর উপায় হচ্ছে মিথ্যা বিবাহ বিচ্ছেদ। এটি সমাজের মূল্যবোধের অবক্ষয় প্রদর্শন করছে। যাই হোক, এটি নীতি নির্ধারকদেরও সতর্ক বার্তা দিয়েছে যে তাঁদের সাধারণ জনগনের কথা চিন্তা করতে হবে এবং নীতি নির্ধারনের ক্ষেত্রে আইন এড়ানোর উপায় বর্জনের চেষ্টা করতে হবে।

কিছু ওয়েব ব্যবহারকারি নকল বিবাহ বিচ্ছেদের ঝোঁকের পেছনে মূল্যবোধের বিকৃতির সমালোচনা করেছেন। “হুয়াংশি হাইকান” লিখেছেন [ম্যান্ডারিন]:

婚姻和房子到底哪一个才是牢不可破?现代人的爱情婚姻观究竟还有没有底线?难道在金钱面前,真的什么都是不堪一击吗?

কোনটি বেশী ভঙ্গুর, বিয়ে অথবা একটি এপার্টমেন্ট ? আধুনিক লোকজনের কাছে কি ভালোবাসা ও বিয়েতে কোন ভিত্তি রেখা আছে? সত্যিকার অর্থে কি আমরা টাকার সামনে এতোটাই ক্ষণস্থায়ী ?

আরেকজন ব্যবহারকারী “হুয়াং শেং” প্রতিধ্বনিত [ম্যান্ডারিন] করেছেনঃ

是天朝奇观,也是一种悲哀,婚姻在房子面前微不足道!

এটি একটি বিরল দৃশ্য এবং অত্যন্ত দুঃখজনকও। অন্যকিছু নয়, শুধুমাত্র একটি এপার্টমেন্টের বিনিময়ে বিয়ের মূল্য নির্ধারিত হচ্ছে।

রিয়েল এস্টেট পরামর্শক “হানজিয়া গাওজিয়ানলিন” আরো [ম্যান্ডারিন] বলেছেনঃ

在当下中国人的心里,赚钱比婚姻、老婆和家庭更重要。这奇葩价值观绝对可以在人类历史上留下奇特的一页!

চীনের আধুনিক জনগনের জন্য বিয়ে এবং পরিবারের চেয়ে অর্থ উপার্জন অনেক বেশী গুরুত্বপূর্ণ। মানব ইতিহাসে এই বিকৃত অগ্রগণ্যতা নিঃসন্দেহে একটি অদ্ভুত ছাপ রেখে যাবে!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .