বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভিনসেন্ট বিজয়সিংঘঃ সিঙ্গাপুরের প্রথম সমকামী রাজনীতিবিদ

বিরোধীদলীয় রাজনীতিবিদ ডঃ ভিনসেন্ট বিজয়সিংঘ ফেসবুকে পোস্ট করেছেন যে তিনি সমকামী, যা তাকে প্রকাশ্যভাবে সিঙ্গাপুরের প্রথম সমকামী রাজনীতিবিদ বানিয়েছে। তিনি সিঙ্গাপুর ডেমোক্রেট পার্টির একজন সদস্য এবং একজন সাবেক সংসদীয় প্রার্থী। জনসম্মুখে প্রকাশিত হওয়ার কারনগুলো তিনি তাঁর পরবর্তি পোস্টে ব্যাখ্যা করেছেনঃ

জনসম্মুখে প্রকাশিত হওয়া মোটেই কঠিন নয়। বরং যতো বেশী লোক তা করবে ততো আরো এটি সহজতর হবে। শুরু করা এবং দীর্ঘকাল তা বজায় রাখাটা বেশী কঠিন। সমকামী জনগণ প্রতিনিয়ত যে অত্যাচার সহ্য করে তা থেকে বেরিয়ে আসতে এধরনের জনকল্যাণ মূলক কাজ সমাজে অত্যন্ত প্রয়োজন।

Dr Vincent Wijeysingha. Image from Facebook

ড ভিন্সেন্ট বিজয়সিংহ। ছবিটি ফেসবুক থেকে নেওয়া 

ডঃ ভিন্সেন্টের প্রশংসা করে চু লিপ সিন ফেসবুকে মন্তব্য করেছেনঃ

এখন আমি অনুভব করি, সিঙ্গাপুর এমন একটি স্থান হতে পারে যেখানে বড় হওয়া এবং বুড়ো হওয়া যাবে। এমন একটি দেশ হবে যা দয়া ও সুবিচারে ঘিরে থাকবে। নিজেকে তাঁদের জায়গায় দাড় করিয়ে এবং প্রতিনিয়ত তাঁরা যেসব কষ্টের মধ্যদিয়ে যায় তা উপলব্ধি করে আপনি অনেক মৃতপ্রায় প্রাণকে নৈরাশ্য থেকে বাঁচিয়েছেন।

যাইহোক, হানতামও তাকে অভিনন্দন জানিয়েছেনঃ

সাধারণত “জনসম্মুখে প্রকাশিত হওয়ার” জন্য অনেকেই তাঁর প্রশংসা করায় এই প্রকাশের অভ্যর্থনাটা উষ্ণ হয়েছে। এমনকি তিনি আরো বলেছেন যে তাঁর কোন “সমকামী বিষয়সূচী” নেই। ব্যক্তিগতভাবে আমি মনে করি তাঁর পক্ষে এটি একটি ঝোড়ো সিদ্ধান্ত এবং শুধুমাত্র সমালোচকদের চুপ করাতে এ ধরনের একটি ব্যক্তিগত ইস্যু স্বীকার করে নেয়ার জন্য আমি ব্যক্তিগতভাবে তাকে অভিবাদন জানিয়েছি।

বর্তমানে সিঙ্গাপুরে প্রকাশ্যভাবে একজন সমকামী রাজনীতিবিদ আছেন জেনে সিম্পল এ্যন্ড গেফরোয়ার্ড খুব রোমাঞ্চিত হয়েছেনঃ

ওহ বাহ, এখন প্রকাশ্যভাবে আমাদের একজন সমকামী রাজনীতিবিদ আছেন। এটা কতোটা অভাবনীয়? এটা অনেক। বলা অপ্রয়োজনীয় (তবু যে কোনভাবে বলছি), তিনি অবিশ্বাস্য রকমের সাহসী বলে এমনটি করতে পেরেছেন। তাঁর হারানোর অনেক কিছু আছে। এর ফলে তাকে অনেক কঠিন পরিস্থিতি ও বাধার মুখোমুখি হতে হবে। কিন্তু তারপরেও তিনি এটা করছেন। আমি আশা করি তাঁর পরিবার, বন্ধুবান্ধব, সহকর্মীবৃন্দ এবং তাকে ব্যক্তিগতভাবে যারা চেনেন, বিশেষকরে তাঁদের সবাই তাঁর চারপাশে আবার একত্রিত হবে এবং তাকে আরো চালিকা শক্তি ও উদ্দেশ্য দেবেন।

কিন্তু এই তরুণ রাজনীতিবিদের যদি কোন “সমকামী বিষয়সূচী” থেকে থাকে তবে ব্যারি তাও প্রকাশ করতে বলেনঃ

যদি সংসদে একজন সমকামী সংসদ সদস্য হন তবে আমার কোন সমস্যা নেই।  কোন খ্রিস্টান, মুসলিম, হিন্দু, বৌদ্ধ অথবা একজন নাস্তিক সংসদ সদস্য হলে যেমন আমার কোন সমস্যা নেই, ঠিক তেমন। ডঃ বিজয়ের প্রতি আমার সমস্যা হল সমকামী গ্রুপ তাঁকে আলাদা করে উপস্থাপন করছে। তাই আইন প্রণয়নের মাধ্যমে সমাজে তিনি অস্বাস্থ্যকর জীবনাচরণের সূচনা করতে পারেন। এগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে অপ্রাপ্তবয়স্কদের যৌনতাকে বৈধতা দেয়া।

দ্য ইন্ডিপেন্ডেন্ট, সিঙ্গাপুরের রাজনীতিতে এলজিবিটি সম্প্রদায়ের গুরুত্ব লক্ষ করেছেঃ

রাজনৈতিক পরিপ্রেক্ষিতে সরকারের আচরনের পরিবর্তন নতুন সিঙ্গাপুরের বাস্তবতাকে প্রতিফলিত করে। সমকামী সম্প্রদায় এবং তাঁদের কার্যকারনকে সমর্থনকারীরা সাধারণত প্রতিষ্ঠান-বিরোধী এবং যেহেতু নির্বাচনগুলোতে ক্ষমতাসীন দলের সমর্থনকে ক্রমান্বয়ে ধীরে ধীরে ক্ষয় করে ফেলছে, সেহেতু এই চাপ প্রদানকারী গ্রুপকে প্রতিষ্ঠানটি কিছুতেই উপেক্ষা করতে পারবে না।

সিঙ্গাপুরের সূর্যকিরণ মনে করে, ডঃ ভিন্সেন্টের জনসম্মুখে প্রকাশিত হওয়ার বিষয়টি  একটি “দোধারী তরবারি’ এবং হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, ২০১৬ সালের নির্বাচনে দ্য সিঙ্গাপুর ডেমোক্রেটিক পার্টিকে এটি প্রভাবিত করবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .