বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সৌদি সক্রিয় অংশগ্রহণকারীরা সৌদি আরব ত্যাগ করার অধিকার থেকে বঞ্চিত

সৌদি কর্মী এবং সাংবাদিক ইমান আল কাহতানিকে সৌদি আরব ত্যাগ করার অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। তুরস্ক ভ্রমণে বাঁধা পাওয়ার গত কাল শেষ রাতে টুইটের মাধ্যমে তিনি তা ঘোষণা করেছেন।

আল কাহতানি একটি কড়া মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক। “শাসক এবং তার উত্তরাধিকারীর প্রতি আনুগত্য ভঙ্গ” এবং “দেশের উন্নয়ন বাঁধা দেয় চেষ্টা করা”র দায়ে অভিযুক্ত আব্দুল্লাহ আল হামিদ, মোহাম্মদ আল কাহতানির বিচারের সময় এবং তাদের প্রতিষ্ঠান “নাগরিক ও রাজনৈতিক অধিকার এসোসিয়েশন” এর জন্য তার দৃঢ় সমর্থন প্রকাশের পর তাঁর প্রতি সরকারের মনোযোগ আকৃষ্ট হয়। এই বছরের শুরুর দিকে, তারা যথাক্রমে ১১ এবং ১০ বছরের কারা দণ্ডে দন্ডিত হয়েছে।

টুইটারে তিনি ঘোষণা করেন [আরবি ভাষায়]:

আমি দাম্মাম বিমানবন্দর থেকে ইস্তাম্বুল ভ্রমণ করছিলাম, কিন্তু আমাকে সেখানে যেতে দেওয়া হয়নি। আমাকে ভ্রমণের নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে অবগত করার পর পাসপোর্ট অফিসে অপেক্ষা করতে বলা হয়েছে।

Iman Al Qahtani. Source: @ImaQh

ইমান আল কাহতানি @ইমাকিউএইচ

পূর্বের অনলাইন কার্যক্রম এবং মানবাধিকার প্রতিবেদনের জন্য নিরাপত্তা বাহিনী কর্তৃক তিনি হয়রানির শিকার হয়েছেন। দুই কর্মী বিচারের তার লাইভ টুইট এর পরে, একজন বিচারক “আদালতে মিথ্যা তথ্য প্রদান” এর জন্য তাকে গ্রেপ্তারের আদেশ দেন। কিন্তু সেই গ্রেপ্তার পরে বাতিল করা হয়।

নেটিজেনরা টুইটারে #منع_ايمان_القحطاني_من_السفر হ্যাশট্যাগের অধীনে আল কাহতানির ভ্রমণের উপর নিষেধাজ্ঞা নিয়ে আলোচনা করেছেন, যা অনুবাদ করলে দাঁড়ায় ইমান আল কাহতানি ভ্রমণ থেকে নিষিদ্ধ।

এমএস রিম মন্তব্য করেছেনঃ

গ্রেপ্তার, ভ্রমণ নিষিদ্ধ, নিপীড়ন, দুর্নীতি, বেকারত্ব, দারিদ্র্য এবং দুর্বিপাক। আমার দেশের শিরোনাম কি হতে পারে ?

ডাঃ মোহাম্মদ ব্যাখ্যা করেছেন, সৌদি আরবে ভ্রমণ নিষিদ্ধ সাধারণ ব্যাপার:

আবার ফয়েজ আহমেদ বলেছেন যে, এমন নিষেধাজ্ঞা খুব বেশি কার্যকারী হয় নাঃ

সৌদি শাসকদের স্বৈরাচারীতা চলতে থাকবে কিন্তু নিপীড়ন এবং মুখবন্ধ করে রাখার এই নীতি একটি সময়ে কাজ করে না, যখন মানুষ কথা বলার এবং তাদের অধিকার আদায়ের দাবি অব্যাহত রাখে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .