বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরান: নতুন প্রেসিডেন্ট কি কোন দরজার তালা খুলতে পারবেন?

A key, the symbol for Rouhani's campaign

রুহানির নির্বাচনী প্রচারনার প্রতীক ছিল একটি চাবি। ছবিঃ মাসরেগনিউজ 

প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে হাসান রুহানির প্রচারণার প্রতীক ছিল একটি চাবি। এখন ইরানী নেট নাগরিকেরা আলোচনা করছেন, আসলেই রুহানি কি কোন তালা খুলতে সক্ষম হবে কিনা? রুহানি একটি “আশা এবং দূরদর্শিতা”র সরকারের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। হাজার হাজার ইরানিরা একটা ভাল ভবিষ্যত গড়ার প্রত্যাশায় তার বিজয় উদযাপন করছেন

অমিড ডানা’র ব্লগে ​আমরা পাই:

রুহানির চাবি কোন তালা খুলতে পারবে ? মোস্তফা তাজহাদেহ [একজন জেলে সংস্কারবাদী] বলেন, রাজনৈতিক বন্দীদের মুক্তি রুহানির হাতে নেই। খাতেমি বলেননি যে, আমরা আমাদের প্রত্যাশা কমিয়ে ফেলব। মানুষ প্রায়ই বলে, মার্কিনদের সঙ্গে পরমাণু আলোচনা এবং সিরিয়ার সঙ্কটের বিষয়টি আছে সর্বচ্চো নেতার হাতে … সবাই এই কারণে বলেন, রুহানির একমাত্র চাবি তার বাড়ি বা তার অফিসের জন্য।

জালেবুন লিখেছেনঃ 

অমিড ডানা’র মতো কিছু লোক জিজ্ঞাসা করেছেন, রুহানি কোন তালা খুলতে পারবেন ? উত্তর হচ্ছে, তিনি ইতিমধ্যেই ২০০৯ সালের সঙ্কটের সঙ্গে অবৈধ হয়ে উঠা নির্বাচনের তালা খুলেছেন।

বিভিন্ন নেটিজেনরা কিছু সমস্যা এবং তালার কথা উল্লেখ করেছেন যেগুলো রুহানি খুলতে পারবেন বলে তাঁদের বিশ্বাস।

মাশা টুইট করেছেনঃ 

আমি ঘোমটা পরা বা না পরার স্বাধীনতা চাই না। আমি দেখতে চাই মুদ্রাস্ফীতি ও বেকারত্বের হার কমে যাবে এমন দিনটি এবং যখন প্রান্তিক মানুষদের মাদক দ্রব্য বিক্রি করার প্রয়োজন হবে না।

নেগার মরতযাভি টুইট করেছেনঃ 

#রুহানির ঘনিষ্ঠ সুত্র জানিয়েছে, সব ভাঙা বন্ধন মেরামত ও তেহরানের সঙ্গে একটি নতুন অধ্যায় শুরু করতে তিনি বেশ কিছু দেশে বিশেষ দূত পাঠানোর পরিকল্পনা করছেন।

এছাড়াও ইতিমধ্যে বেশ কিছু প্রচারণায় ইরানীদের ইন্টারনেট ফিল্টারিং এবং ফিক্সিং বন্ধে রুহানির কাছে দাবি জানানো হয়েছে। একটি ফেসবুক প্রচারাভিযান, রুহানির কাছে ফেসবুক ফিল্টারিং বন্ধের দাবি জানানোর পাশাপাশি ব্লগার ও সাইবার কর্মীদের একটি গ্রুপ ইন্টারনেটের গতি বৃদ্ধির জন্যও নির্বাচিত প্রেসিডেন্টের কাছে একটি চিঠি লিখেছে। তারা ফিল্টারিং সম্পর্কেও অভিযোগ করে এবং রুহানিকে মনে করিয়ে দেয় যে, তিনি নিজেও তার প্রচারণার কাজে ইন্টারনেট ব্যবহার করেছেন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .