বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হুগো শ্যাভেজকে স্মরণ করছেন দিমা আল খাতিব

কেউ তাঁকে ভালবাসে, কেউবা ঘৃণা করে। কিন্তু ভেনেজুয়েলার প্রয়াত প্রেসিডেন্ট হুগো শ্যাভেজ আরব সাংবাদিক দিমা আল খাতিবের মনে একটি বিশেষ জায়গা দখল করে আছেন। সিরিয় বংশোদ্ভূত ফিলিস্তিনের এই সাংবাদিক আল জাজিরার লাতিন আমেরিকা ব্যুরোর প্রধান হিসেবে ১০ বছর কারাকাসে থাকা অবস্থায় শ্যাভেজের সাথে ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক গড়ে তুলেছিলেন। আল খাতিব বর্তমানে দুবাইয়ে শিক্ষকতা করছেন। তিনি শ্যাভেজের মৃত্যুর [৫ মার্চ, ২০১৩] পর থেকে টুইটের মাধ্যমে ধারাবাহিকভাবে এই সম্পর্কের ব্যাপারে অনেক কিছু প্রকাশ করেছেন।

টুইটের পাশাপাশি শ্যাভেজের কিছু সাক্ষাৎকার ধারাবাহিকভাবে প্রকাশ করতে তিনি স্টুডিওতে ফিরে গেছেন।

তিনি টুইটারে ব্যাখ্যা [আরবি] করেছেনঃ

تعرفت على الراحل أوغو تشافس في سبتمبر أيلول ٢٠٠٢ في كاراكاس، أي قبل أكثر من ١٠ سنوات. أجريت معه ٥ لقاءات خاصة ورافقته في ترحاله حول العالم

@দিমা_খাতিবঃ ১০ বছরেরও বেশী আগে ২০০২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে হুগো শ্যাভেজের সাথে আমার পরিচয় হয়েছিল কারাকাসে। আমি তাঁর পাঁচটি অসাধারণ সাক্ষাৎকার নিয়েছি এবং সারা বিশ্বে তাঁর সাথে ভ্রমণ করেছি।

তিনি আরো যোগ করেছেনঃ

#ذكريات_تشافس كنتُ الصحفية الأجنبية الوحيدة، وأحياناً حتى الصحفية الوحيدة على الإطلاق التي كانت ترافق تشافس في ترحاله داخل فنزويلا وخارجها

@দিমা_খাতিবঃ ভেনেজুয়েলা এবং দেশের বাইরে শ্যাভেজের সফরসঙ্গী হিসেবে আমি ছিলাম একমাত্র বিদেশি সাংবাদিক। মাঝে মাঝে সাংবাদিক হিসেবে কেবল আমিই থাকতাম।

এবং আরো বলেছেনঃ

#ذكريات_تشافس كلما رآني كان يقول : السلام عليكم ، بالعربية

@দিমা_খাতিবঃ যখনই তাঁর সাথে আমার দেখা হতো, তিনি আরবিতে বলতেন, আল সালাম আলাইকুম (অভ্যর্থনাঃ আপনার উপর শান্তি বর্ষিত হোক )।

শ্যাভেজের সাথে খাতিবের ঘনিষ্ঠতার কথা অনেকেই স্মরণ করেছেন। তিউনিসিয়ার সাংবাদিক তউনসিয়াহোরা টুইট করেছেনঃ

تذكرت لقاءكما انت وشافيز في مقر الجزيرة…. ذلك الود والبساطة التي جمعتكما. الصحافية والزعيم جنبا الى جنب دون بروتوكولات

@তউনসিয়াহোরাঃ আল জাজিরার সদরদপ্তরে [কাতারের দোহায়] আপনার সাথে শ্যাভেজের সাক্ষাতের কথা আমার মনে আছে। আপনাদের সাথে যুক্ত হয়েছিল বন্ধুত্ব ও সরলতা। কোনরকম প্রোটকল ছাড়াই সাংবাদিক এবং নেতা পাশাপাশি বসেছিলেন।

খাতিব তাঁর টুইটার একাউন্টে শ্যাভেজের সম্পর্কে কিছু টুকিটাকি তথ্য শেয়ার করেছেন, যা আরব গণজাগরণের সময় খুব জনপ্রিয় হয়েছিল। তিনি জিজ্ঞাসা করেছেনঃ

@দিমা_খাতিবঃ কে ভাবতে পেরেছিল যে ফিদেল ক্যাস্ট্রো বেঁচে থাকবেন…এবং হুগো শ্যাভেজ চলে যাবেন ?

Dima Al Khatib speaks to Al Jazeera about Chavez following his death on Tuesday. Photograph from Khatib's Instagram

মঙ্গলবার শ্যভেজের মৃত্যুর পর তাঁর সম্পর্কে আল জাজিরাতে দিমা আল খাতিব কথা বলছেন। খতিবের ইন্সট্রাগ্রাম থেকে নেওয়া ছবি। 

ভেনেজুয়েলার জনগণ কি আসলেই তাঁকে ভালবাসতো কিনা, এই প্রশ্নের উত্তরে খাতিব বলেছেনঃ

@দিমা_খাতিবঃ অনেকেই ভালবাসত। অন্যরা বাসত না। কিন্তু হ্যাঁ, তিনি খুব জনপ্রিয় ব্যক্তি ছিলেন। আপনি তাঁকে ভালবাসুন অথবা ঘৃণা করুন। খুব মেরুকরণ প্রবণতা।

আরবরাও যে তাঁদের মতামতের দিক থেকে মেরুকরণ করছেন তা অন্য একটি টুইটে তিনি অবাক হয়েছেন বলে প্রকাশ পেয়েছে। তিনি কারন দেখিয়েছেনঃ

نعم أعرف .. نحن العرب محتارون .. نحزن أم لا نحزن على رحيل تشافس؟.. هو دعم فلسطين كما فعل قليلون في عصرنا، ثم لم يدعم الثورات العربية

@দিমা_খাতিবঃ জী, আমি জানি। আমরা আরবেরা খুব দ্বিধান্বিত। আমরা কি শ্যাভেজের মৃত্যুতে দুঃখী হব নাকি হবো না ? এসময়ের খুব অল্প মানুষের মতো তিনি ফিলিস্তিনকে সমর্থন করেছেন। কিন্তু আবার আরব গণজাগরণকে সমর্থন করেননি।

শ্যাভেজের সাথে তাঁর স্মৃতিগুলো নিয়ে একটি বই লেখার ব্যাপারে তিনি দ্বিধান্বিত।

قد أكتب يوماً ما عن تجاربي مع تشافس .. والأحاديث التي دارت بيني وبينه عن قضايا كثيرة .. على مدى عشر سنوات .. وقد لا أكتب .. لا أعرف صراحة

@দিমা_খাতিবঃ হয়তোবা একদিন আমি শ্যাভেজের সাথে আমার অভিজ্ঞতা এবং বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে আমাদের মধ্যকার কথোপকথন সম্পর্কে লিখবো…১০ বছরেরও বেশী সময়…এবং হয়তোবা আমি লিখবো না। সত্যই আমি জানি না।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .