বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশরিয়রা মুরসোলিনির নিপাত চায়

কায়রো শহরের কেন্দ্রস্থল মিশরিয় বিপ্লবের ইপিআই-কেন্দ্র, তাহরির স্কয়ারে মিশরিয়রা আবার ফিরে এসেছে। সেখানে তাঁরা তাঁদের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসির জোর করে ক্ষমতা দখলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে। তড়িঘড়ি করে তৈরী করা যে খসড়া সংবিধানটি (নভেম্বর ৩০,২০১২) ঘোষণা করা হয়েছে সেটাও তাঁরা এই প্রতিবাদে অন্তর্ভুক্ত করেছে। এটি লিখেছে ইসলামপন্থীদের নেতৃত্বাধীন সাংবিধানিক পরিষদ। এই খসড়া সংবিধানটি মিশরের শাসনতন্ত্রে এবং ধারাগুলোতে নতুন শরিয়া আইন যোগ করেছে, যেখানে নারীদের বাকস্বাধীনতা ও অধিকারে হস্তক্ষেপ করা হয়েছে।

প্রতিবাদকারীরা আট দিন আগেই রাজপথে ছুটে যায়, যখন মুরসি ঘোষণা দিয়েছিলেন আদালত তাঁর সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করতে পারবে না। এই ঘোষণা দিয়ে তিনি মূলত বিচারবিভাগের কার্যকারিতা নষ্ট করে দেন। ফলশ্রুতিতে মিশরিয়রা রেগে যায় এবং তাহরির স্কয়ারে সহিংস প্রতিবাদ জানায়। তাঁরা মুরসিকে মিশরের নতুন ফারাও বলে আখ্যা দেয় এবং তাঁরা মনে করে মুরসির সংগঠন মুসলিম ব্রাদারহুড খুব বেশী ক্ষমতা অধিকার করে নিচ্ছে।

ব্লগার লিলিয়ান ওয়াগজি আজ তাহরির স্কয়ারে ছিলেন এবং তাঁর ফ্লিকার অ্যাকাউন্টে নিচের ছবিগুলো শেয়ার করেছেন।

অনেকেই মুরসিকে মুসোলিনি ও হিটলারের মতো স্বৈরশাসকদের সাথে তুলনা করে তাকে মিশরের নতুন ফারাও বলে ডাকছেন। নেট নাগরিকদের মধ্যে তিনি মুরসোলিনি নামে সমধিক পরিচিত। এই নামটি তাঁর ও মুসোলিনির নাম যোগ করে তৈরী করা হয়েছে।

আজকের প্রতিবাদ থেকে ওয়াগজি এই ছবিটি শেয়ার করেছেন, যেখানে একজন প্রতিবাদকারী ফারাওদের মতো পোষাক পরেছেনঃ

Mursolini - drawing comparisons between Morsi, Hitler and Mussolini

মুরসোলিনি – মুরসি, হিটলার ও মুসোলিনির মধ্যে তুলনা করা হচ্ছে। ছবিটি তুলেছেন লিলিয়ান ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০) এর অধীনে ব্যবহৃত ।

প্রতিবাদকারীদের হাতে বহন করা ব্যানারগুলোতে লেখা আছে [আরবি]:

একনায়ককে না। মুরসির নবজাগরণ একেবারে হিটলারের নবজাগরণের মতোই। স্বেচ্ছাচারী ক্ষমতা মানেই স্বেচ্ছাচারী দূর্নীতি।

অন্যরা চায় এই অজ্ঞতার সমাপ্তি ঘটুকঃ

A man carries a poster which reads: Freedom starts where ignorance ends

একজন লোক একটি পোস্টার বহন করছিলেন, যাতে লেখাঃ যেখানে অজ্ঞতার সমাপ্তি ঘটে সেখানে স্বাধীনতার শুরু হয়। ছবিটি তুলেছেন লিলিয়ান ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০) এর অধীনে ব্যবহৃত।

এবং অন্যরা প্রকাশ্যে মুসলিম ব্রাদারহুডের এই ক্ষমতা বৃদ্ধির নিন্দা করছে, যার নেতৃস্থানীয় সদস্য ছিলেন মুরসিঃ

A protestor carrying a poster which reads: Down with the Muslim Brotherhood invasion. Long lives a free and independent Egypt

একজন লোক একটি পোস্টার বহন করছিলেন, যাতে লেখাঃ মুসলিম ব্রাদারহুডের অধিকার লঙ্ঘন থেকে মুক্ত হওয়া যাক। মুক্ত ও স্বাধীন এক মিশর দীর্ঘজীবি হোক। ছবিটি তুলেছেন লিলিয়ান ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০) এর আওতায় ব্যবহৃত।

মিশরীয় বিপ্লবে যারা শহীদ হয়েছিলেন তাদের আত্মারাও আজকের এই প্রতিবাদে অংশ নিয়েছে। ওয়াগজি ঐ ছবিগুলো শেয়ার করেছিলেনঃ

Protestors raising banners with pictures of martyrs on them

প্রতিবাদকারীরা তাদের ব্যানারে সেইসব শহীদদের ছবিও তুলে ধরেছিলেন। ছবিটি দিয়েছেন লিলিয়ান ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০ এর আওতায় ব্যবহৃত।)

A mural in Tahrir featuring some of the Egyptian revolution's martyrs

তাহরিরে মিশরীয় বিপ্লবের শহীদদের মুখাবয়ব নিয়ে তৈ্রী করা একটি ম্যুরাল। ছবিটি তুলেছেন লিলিয়ান ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০) এর আওতায় ব্যবহৃত।

রাত বাড়া সত্ত্বেও তাহরিরে অবস্থানের এই মূর্তিমান ছবিটি দিয়ে আমরা এই ধারাবাহিকটি শেষ করছিঃ

Night falls at Tahrir as protestors continue their sit-in

রাত বাড়লেও তাহরিরে অবস্থান নেওয়া প্রতিবাদকারীরা অনড়। ছবিটি দিয়েছেন তুলেছেন ওয়াগজি, (সিসি বিওয়াই ২.০) এর আওতায় ব্যবহৃত।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .