বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মুরসি কি আরও এক মোবারককে তুলে আনছেন? এবং তাহরির স্কয়ারের ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন করে দিয়েছেন?

তাহরির স্কয়ারের বিভিন্ন স্থান বিশেষ করে মিশরীয় বিপ্লবের ইপিআই-কেন্দ্র থেকে মিশরীয় নেটিজেনরা ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন হওয়ার কথা বলছে, যখন আবার অন্যরা বলছেন এটি ভালোভাবেই কাজ করছে।

যদি কর্তৃপক্ষ ইন্টারনেট বিচ্ছিন্ন করে থাকে, তবে তা মিশরীয় বিপ্লব শুরুর দ্বিতীয় দিনের ঘটনাকে মনে করিয়ে দেয়। যখন ২৬ শে জানুয়ারি,২০১১ মিশরে ইন্টারনেটে প্রবেশাধিকার বন্ধ করে দেওয়া হয়।

সুদূরপ্রসারী ক্ষমতা দখলের ব্যাপারে তাদের নতুন প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মুরসি নিজেকে যে অনুমোদন দিয়েছেন তার প্রতিবাদ করতে মিশরীয়রা [২৩ শে নভেম্বর,২০১২] তাহরির স্কয়ারে ফিরে এসেছে। সংবাদপত্রের রিপোর্ট অনুযায়ী, মুরসির সিদ্ধান্তকে কোর্ট চ্যালেঞ্জ করতে পারবেনা এই ঘোষণা দিয়ে তিনি বিচার বিভাগের কার্যকারিতা নষ্ট করেছেন। এই ঘটনা মিশরীয়দের রাগিয়ে দিয়েছে, যারা প্রতিবাদের উদ্দেশ্যে তাহরির স্কয়ারে বিপুল জনসমাগম ঘটায়। তারা মুরসি ও তাঁর দল মুসলিম ব্রাদারহুড সংঘকে মিশরের নতুন ফারাও বলে অভিহিত করেছে। তারা বলছে যে, নতুন ফারাও অবৈধভাবে খুব বেশী ক্ষমতা অধিকার করে নিচ্ছে।

ইন্টারনেট বিচ্ছিন্নের ব্যপারে জাদালিয়া রিপোর্ট করেছেনঃ

@জাদালিয়াঃ রিপোর্টঃ তাহরিরে মোবাইল ফোন ও ইন্টারনেট নেটওয়ার্ক সাময়িক সময়ের জন্য বন্ধ রাখা হয়েছে। যোগাযোগ মন্ত্রী বলেছেনঃ “এই সিদ্ধান্তের সাথে আমি জড়িত নই।”

মাজদি আবদেলহাদি ঠাট্টা করে বলেছেনঃ

@মায়েজদিঃ তাহরির এলাকায় ইন্টারনেট ও মোবাইল ফোন কভারেজ কেটে দেওয়ার রিপোর্ট .. মোবারক কি ফিরে এসেছেন? #মিশর

এবং অন্যরা ইন্টারনেট কেটে দেওয়াকে রাজপথে আরও ভিড় বাড়ানোর একটি গুরুত্বপূর্ণ কৌশল হিসেবে দেখছেন।

তারেক মোস্তফা বলেছেনঃ

@তারেকমোস্তফাঃ মিশরীয় টুইপ্স সেল ফোন সিগনাল ও ইন্টারনেট কেটে দিয়েছেন যেন সবাই প্রতিবাদে অংশ নিতে পারে। #মিশর #নভেম্বর২৩ # তাহরির

প্রতিবাদকারীদের মতে, ইন্টারনেট কেটে দেওয়ার কারনেই মিশরীয় বিপ্লবের শুরুতে কয়েক লক্ষ মানুষ রাজপথে নেমে এসেছিলো। তারা মিশরের সাবেক প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারকের ৩২ বছরের শাসনের অবসান ঘটিয়ে, ১৮ দিনের তীব্র প্রতিবাদের পর তাকে উপর থেকে নিচে ছুড়ে ফেলতে নেতৃত্ব দিয়েছিল।

টুইটারে মাঈ আবদেলকাদের টুইট করেছেনঃ

@মাঈ_আবদেলকাদেরঃ #মুরসি, #মোবারকের পটভূমিরই পুনরাবৃত্তি ঘটাচ্ছেন এবং #তাহরির এলাকায় #ইন্টারনেট কেটে দিচ্ছেন। #কায়রো #মিশর

তিনি আরও বলেছেনঃ

@মাঈ_আবদেলকাদেরঃ #মুরসি কি এতোটাই নির্বোধ হতে পারলেন যে তিনি আবার ইন্টারনেট কেটে দিলেন? অবিশ্বাস্য #তাহরির #মিশর

এবং সামার এলহুসেনি নিশ্চিত করেছেনঃ

@এস_এলহুসেনিঃ ইন্টারনেট ও যোগাযোগ নেটওয়ার্ক কেটে দেওয়া হয়েছে #তাহরির স্কয়ার #মিশর #২৩নভেম্বর

যাহোক, কিন্তু @সোম৩য়ানাদা লিখেছেন [আরবি]:

الانترنت شغال في التحرير بطلوا اشاعات بقي

@সোম৩য়ানাদাঃ তাহরিরে ইন্টারনেট কাজ করছে। দয়া করে গুজব ছড়ানো বন্ধ করুন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .