বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কাজাখস্তান: ভেড়ার চেয়ে ভিন্নভাবে পথ চলার বিজ্ঞাপন

১৭ই জুলাই তারিখে কাজাখস্তানের বৃহত্তম শহর আলমাতির বাসিন্দারা সারা শহর জুড়ে নতুন ব্যানার এবং বিলবোর্ডে লাগানো একটি আক্রমণাত্মক বার্তা দেখে মজা পেয়েছেন: “মানুষ নিয়ম মেনে রাস্তা পার হয়। ভেড়ারা [রাস্তা পার হয়] যেখান দিয়ে খুশি।” ব্যানার এবং বিলবোর্ডগুলোর উদ্দেশ্য হলো রাস্তা পারাপারের সহজ নিয়ম মেনে চলার গুরুত্ব সম্পর্কে শিক্ষণের মাধ্যমে মানুষের জীবন রক্ষা করা। আলমাতি সংস্কৃতি বিভাগ, স্থানীয় একটি বিজ্ঞাপনী প্রতিষ্ঠান এবং ট্রাফিক পুলিশ একসঙ্গে এগুলো উৎপাদন এবং স্থাপন করেছে। এসব বিলবোর্ড ট্রাফিক নিয়ম মানা থেকে শুরু করে প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ সম্পর্কে প্রচলিত মনোভাব পরিবর্তনের জন্যে পরিকল্পিত একটি নতুন সামাজিক বিজ্ঞাপনের কর্মসূচীর অংশ। আলমাতি সংস্কৃতি বিভাগ যেমন উল্লেখ করেছে [রুশ]:

Что может повлиять на поведение людей, пробудить в них ответственность за себя и за других? Только социальная реклама с сильным эмоциональным посылом.

মানুষকে দায়িত্বশীল করতে তাদের আচরণের উপর কিসের প্রভাব রয়েছে? শুধুমাত্র একটি তীব্র স্পর্শকাতর বার্তাযুক্ত সামাজিক বিজ্ঞাপনের (এটা রয়েছে)।

এই বিলবোর্ডটি আলমাতির একটি নতুন সামাজিক বিজ্ঞাপনী প্রচারাভিযানের অংশ। ছবি আলমাতি সংস্কৃতি বিভাগের, অনুমতি নিয়ে ব্যবহৃত।

বিলবোর্ডের আক্রমণাত্মক বার্তাটি দেশের সামাজিক মিডিয়া ব্যবহারকারীদের মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে। ফেসবুকে আলমাতি সংস্কৃতি বিভাগের (আলমাতিমাদেনিইয়েৎ) পোস্ট করা  উপরের ছবিটি সম্পর্কে রুসলান কুভাতভ লিখেছেন [রুশ]:

Отличный постер. Надеюсь их много будет по городу. Еще надо сделать креатив на тему культурного вождения и уважения друг к другу на дроге. Короче говоря надо идентифицировать баранов за рулем :).

সাংঘাতিক পোস্টার। আশা করি আমরা সারা শহরে অনেকগুলো দেখতে পাবো। এছাড়াও বর্তমানে আমাদের গাড়ি-চালনা এবং রাস্তায় পরস্পরকে শ্রদ্ধা করার সংস্কৃতি সম্পর্কে সৃষ্টিশীল কিছু তৈরী করা দরকার। সংক্ষেপে, আমাদের চাকার (পরিচালনার) পিছনের ভেড়াগুলোকে চিহ্নিত করা দরকার। 🙂

বেশিরভাগ নেটাগরিক নতুন বিজ্ঞাপনটিকে পছন্দ করেছে বলে মনে হলেও কেউ কেউ এগুলোকে আপত্তিকর বিবেচনা করেছেন। কাজাখ ব্লগার গিজাতম পরামর্শ দিয়েছেন [রুশ]:

Просто нельзя называть людей баранами за то, что они переходят дорогу в неположенном месте. В США и Канаде тоже так же переходят… Если машины за км нет, то почему бы и не перейти.

রাস্তা পারাপারের সময় নিয়ম লংঘনের কারণে কারো কোন মানুষকে ভেড়া বলা অবশ্যই উচিৎ নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র ও কানাডাতেও জনগণ এভাবে রাস্তা পার হয়… একটি কিলোমিটারের মধ্যে [রাস্তায়] কোন গাড়ি না থাকলে, কেন কেউ রাস্তা পেরুতে পারবে না?

কর্তৃপক্ষগুলোকে এধরনের সমালোচনার জবাব [রুশ] দিতে হবে:

Мы никого конкретно не называли баранами. Это шуточный плакат с небольшой издевкой… Мы хотели максимально привлечь внимание аудитории.

আমরা কাউকে ভেড়া বলে ডাকিনি। এটা সামান্য পরিমাণ ব্যাঙ্গ করা মজার একটি পোস্টার… আমরা শুধু যতটা বেশি সম্ভব দর্শকদের মনোযোগ দখল করতে চাই।

তবে অনেক নেটাগরিক উদ্যোগটিকে পছন্দ করে রাস্তায় মানুষের জীবন রক্ষার বিকল্প উপায় সম্পর্কে পরামর্শ দিয়েছে। সালকেন বালবায়েভ ফেসবুকে লিখেছেন [ওএন]:

Хороший проект. Еще хотелось бы, чтобы сами пешеходные переходы освещались в темное время суток и знаки были видны издалека.

ভালো প্রকল্প। এমন হলেও ভাল হয় যে অন্ধকারে এবং একটি নির্দিষ্ট দুরত্বে যানবাহনের চিহ্ন দেখা গেলে পারাপারগুলো (ক্রসিং) জ্বলে উঠবে।

মোটের উপর, কর্তৃপক্ষকে এমন একটি সৃজনশীল পদ্ধতিতে বাস্তব একটি সমস্যার মোকাবেলা করতে দেখে কাজাখস্তানের অধিকাংশ নেটাগরিক সন্তুষ্ট হয়েছে। তাছাড়াও তাদের পরামর্শ এবং মন্তব্যের প্রতি কর্মকর্তাদের সাড়া দেয়া লক্ষ্য করেও তারা খুশি। সামাজিক বিজ্ঞাপন প্রচারাভিযানের সফল শুরুর পর গাড়ি চালানোর সময় ফোনে কথা বলা নিরুৎসাহিত করার লক্ষ্যে সংস্কৃতি বিভাগ বিজ্ঞাপনের জন্যে একটি নতুন বার্তা প্রকাশ করেছে [রুশ]: “এটাই আপনার (জীবনের) শেষ কল হতে পারে।”

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .