বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

যুক্তরাজ্যঃ অলিম্পিক পথ প্রদর্শনীতে তাইওয়ানের পতাকা উধাও

এই পোস্টটি লন্ডন অলিম্পিক ২০১২ নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

২৪ জুলাই ২০১২, অলিম্পিক–এর মশাল নিয়ে সারা লন্ডন জুড়ে দৌড়ানোর ঠিক আগে, যুক্তরাজ্যের রাজধানী শহরের রিজেন্ট স্ট্রিট থেকে তাইওয়ানের পতাকা সরিয়ে নেওয়া হয়। যদিও এই গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে অংশ নিতে আসা বিশ্বের বিভিন্ন দেশের প্রতিনিধিদের স্বাগত জানাতে অন্য সব জাতির জাতীয় পতাকা সেখানে টাঙ্গিয়ে রাখা হয়েছে।

এইভাবে হঠাৎ করে তাইওয়ানের পতাকা অদৃশ্য হয়ে যাওয়ায় দেশটির অনেক নাগরিক হতাশ। ফেসবুক ব্যবহারকারী ই-হোয়াও লিয়াও অভিযোগ করেছেন [চীনা ভাষায়]:

哀… 原本還高興一下下的

শশশ… কিছুক্ষণের জন্য আমি সুখী ছিলাম।

অলিম্পিকের প্রারম্ভে লন্ডন শহর বিশ্বকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত।

রেডডিট ব্যবহারকারী লোল_অপস প্রশ্ন করেছেন কেন তাইওয়ানের জাতীয় পতাকা অপসারণ করা হল:

আমি জানতে আগ্রহী যে এটা কি লন্ডন শহরের কর্মকর্তাদের আতঙ্কের ফল, নাকি চীনা কর্তৃপক্ষ তাদেরকে এটা নামিয়ে ফেলার জন্য হুমকি প্রদান করেছে। আমি মনে করি ঘটনাটি কিছুটা মনোযোগ আকর্ষণের যোগ্য। যারা অলিম্পিক বিষয়ক সমস্ত সংবাদ প্রকাশ করে, তারা সকলেই এটিকে সম্পূর্ণ উপেক্ষা করেছে।

রেডডিট-এর আরেকজন ব্যবহারকারী মিন্টিয়াটাইনি এর একটা উত্তর দেওয়ার চেষ্টা করেছেন:

যদিও কর্তৃপক্ষ এই ক্ষেত্রে কোন ব্যাখ্যা প্রদান করেনি, তবে রিজেন্ট স্ট্রিট অ্যাসোসিয়েশন–এর সূত্রমতে তাইওয়ানের প্রতিনিধিত্ব বোঝাতে তারা দেশটির পতাকা সরিয়ে সেখানে অলিম্পিকের পতাকা স্থাপন করবে। আমি বলতে চাই, এটা মূলত একটা খোঁড়া যুক্তি এবং প্রকৃত কোন যুক্তিকে এখানে উত্তম মনে হবে।

আরেকজন ফেসবুক ব্যবহারকারী মেলিসা আলেকজান্ডার, তাইওয়ানের জাতীয় পতাকা অপসারণের বিরুদ্ধে করা প্রতিবাদের ছবি তৈরী করেছেন:

Melissa Alexender's protest photo, via Facebook.

মেলিসা আলেকজান্ডারের প্রতিবাদের ছবি, ফেসবুকের মাধ্যমে পাওয়া।

এই ছবির নীচে, মেলিসা অন্যদের আহবান জানাচ্ছেন যেন তারা রিজেন্ট স্ট্রিট-এর ম্যানেজমেন্ট টিম আনাস্তাসিয়ার কাছে মেইল পাঠায় এবং তাদের প্রতি দাবী জানায় যেন তারা আবার তাইওয়ানের পতাকা যথাস্থানে রাখে। মেলিসার এই আহ্বানের জবাবে কেনেথ ওং , রিজেন্ট স্ট্রিট অ্যাসোসিয়েশনকে মেইল আকারে চিঠি লেখে এবং তার প্রাপ্ত উত্তর মেলিসার ছবির নীচে রেখে দেয়:

প্রিয় কেনেথ

আপনার মেইলের জন্য ধন্যবাদ

এই বিষয়টি উত্থাপিত হয়েছে এবং আমি এই নিশ্চিত করতে পারি যে আগামীকাল সন্ধ্যায় চাইনিজ তাইপের পতাকা আবার সেখানে উত্তোলন করা হবে।

আমি আপনাকে এই বিষয়টি নিশ্চিত করতে পারি যে অলিম্পিকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা সকল জাতির পতাকা প্রদর্শন করা হবে।

বিনীত
লুসি টার্নবুল
রিজেন্ট স্ট্রিট অ্যাসোসিয়েশন

মেলিসা আলেকজান্ডার এই প্রতিউত্তরে হতাশ:

আমরা চাইনিজ তাইপের পতাকা চাই না, তার বদলে আমারা আমাদের জাতীয় পতাকা চাই। রিজেন্ট স্ট্রিট না লন্ডন অলিম্পিকের যাত্রা পথের অংশ, না সেটি কোন অলিম্পিক স্টেডিয়ামের অংশ। যার ফলে সেখানে তাইওয়ানের জাতীয় পতাকা পুনরায় স্থাপনে প্রত্যাখান করার তাদের কোন কারণ নেই!

এদিকে ডিজাইনার টামি লিন একটি হালকা হৃদয়গ্রাহী পোস্ট লিখেছেন তাতে তিনি পরিস্থিতিকে স্বাভাবিক করার জন্য কিছু সৃষ্টিশীল পরামর্শ প্রদান করেছেন। যেমন, চোরাচালানের মাধ্যমে তাইওয়ানের পতাকাকে রাস্তায় ফিরিয়ে আনা, এটিকে কিউআর কোডে রূপান্তরিত করার জন্য পতাকার থ্রিডি বিজ্ঞাপনে বানানো। .

এই পোস্টটি লন্ডন অলিম্পিক ২০১২ নিয়ে করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .