বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

দক্ষিণ কোরিয়া: উদ্ভট যৌন হয়রানি রায় নিয়ে অনলাইনে বিদ্রুপ

স্থানীয় একটি আদালতের একটি যৌন হয়রানি সংক্রান্ত মামলার রায় টুইটারে দক্ষিণ কোরীয়দের মধ্যে অনেক কৌতুককর ও ব্যঙ্গাত্মক মন্তব্য উস্কে দিয়েছে।

একটি গলফ দোকানের একজন মহিলা বিক্রয়কর্মী একজন পুরুষ ক্রেতার বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দায়ের করেছে এই বলে যে তিনি আঙুল দিয়ে তার ইচ্ছের বিরুদ্ধে তার ‘স্তন এলাকা’ স্পর্শ করেছেন এবং খোঁচা দিয়েছেন। ৩রা জুলাই, তারিখে দাউগে জেলা আদালতের বিচারক কিম বাদী যে এলাকায় খোঁচা খেয়েছেন বলে অভিযোগ করেছেন সেটা কণ্ঠ অস্থি এলাকার কাছাকাছি, প্রকৃতপক্ষে স্তনের মতো “যৌন সংবেদনশীল এলাকা” নয়’ বলে মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন [কোরীয় ভাষায়]।

No Sexual Violence T-shirt During SlutWalk March in London

যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠিত একটি সদম্ভহাঁটার (স্লাটওয়াক) মিছিলে যৌন সহিংসতার বিরুদ্ধে টি-শার্ট পরিহিত একজন মহিলা। ছবি অ্যালেক্স মিলান ট্রেসি, কপিরাইট ©  ডেমোটিক্স  (১১/০৬/২০১১)

কিম নাম-হুন (@নামহুন) নামের দক্ষিণ কোরিয়ার প্রভাবশালী একজন টুইপ  [কোরীয় ভাষায়] এই টুইটটি করার পরে আদালতের সিদ্ধান্তটিকে বিদ্রূপ করা অসংখ্য মন্তব্য পেয়েছেন:

판사가 이젠 성감대까지 감별

বিচারকেরা এখন কোন এলাকাটি ‘যৌনভাবে সংবেদনশীল’ সেটা ঠিক করতে লেগে পড়েছেন।

টুইটার ব্যবহারকারী @টায়েক২ _জ়ে এই বিদ্রূপাত্নক মন্তব্যটি [কোরীয় ভাষায়] দিয়ে জবাব দিয়েছেন:

쇄골 아래는 성감대가 아니었군요! 판사님이 성감대까지 정해주시다니 친절도 하셔라.

এখন আমি জানি যে কণ্ঠঅস্থির ঠিক নিচের অংশটি যৌন সংবেদনশীল অঞ্চল নয়। আপনি কিসের বলে বিচার করার সিদ্ধান্ত নিলেন কোন [অংশটি] আমার শরীরের যৌনভাবে সংবেদনশীল অংশ।

@দয়া_করে _সুখী _হন টুইট করেছেন [কোরীয় ভাষায়]:

성추행을 당한 사람이 느껴야만 성추행으로 인정된다는건가? 미친거 아냐?

তার মানে কী এটা যে যিনি আক্রান্ত তিনি কর্মটি দ্বারা উত্তেজিত হলেই কেবল তা যৌন হয়রানি হিসেবে গণ্য হবে? কেমন পাগলামী এটা!

@ড্রিমার সান যোগ করেছেন [ko]:

모르긴해도 저부위가 판사의 성감대는 아닌걸로.

সম্ভবত এর কারণ হল কণ্ঠ অস্থি এলাকাটি বিচারকের যৌন সংবেদনশীল এলাকা নয়।

@সাবেক _আর্মিডকেএই কৌতুকটি [কোরীয় ভাষায়] ৬৪০ বারের বেশি পুণঃটুইট হয়েছে:

한국 법정에서 공식적으로 쇄골 밑은 성감대가 아니라고 판결했습니다. 이제부터 쇄골 밑에서 느끼시는 분들은 불법을 자행하고 계신 것이니 가까운 파출소나 경찰서에 신고하여 주시기 바랍니다.

কোরীয় আদালত আনুষ্ঠানিকভাবে রায় দিয়েছে যে কণ্ঠঅস্থির নিচের এলাকাটি যৌন সংবেদনশীল এলাকা নয়। এই এলাকাটি স্পর্শ করার পর কেউ যদি উত্তেজিত বোধ করেন হন, তবেই সেটা বেআইনী হবে। সুতরাং (তখনি শুধু) নিকটতম থানায় অভিযোগ করুন।

তবে কিছু কিছু নেট ব্যবহারকারী যুক্তি দেখিয়েছেন [কোরীয় ভাষায়] যে কিছু কিছু মিডিয়া কাভারেজ অতিরঞ্জিত এবং বিভ্রান্তিমূলক। তবে @একুয়া৭৪১৪ একটি যৌন হয়রানি মামলার রায় দেয়ার ক্ষেত্রে একটি সহজ মৌলিক নিয়ম পরিষ্কার করে দিয়েছেন [কোরীয় ভাষায়]।

언제부터 성감대를 법으로 정했냐? 신체접촉이 불쾌했다면 그게 성추행이지. 그럼 발에 집착하고 손에집착하는 사람들..아동성범죄 저지르는 놈들 다 무죄겠네? 아이가 성감대가 있을리 없잖아? 법원은 뇌를 들고 출근해라!

কবে থেকে আবার আদালত শরীরের কোনটি যৌন সংবেদনশীল অংশ সে বিষয়ে রায় দিতে শুরু করেছে? ব্যক্তিটি যদি হয়রানি অনুভব করেন তবেই সেটা যৌন হয়রানি। তবে [আদালতের এই যুক্তি প্রয়োগ করা হলে] পায়ের ফেটিশ (শরীরের কোন বিশেষ অঙ্গের/বস্তুর প্রতি যৌনভাবে উত্তেজিত ব্যক্তি), হাতের ফেটিশ, অথবা শিশু ধর্ষকরা দোষী সাব্যস্ত হবে না – কারণ (আক্রান্ত) শিশুদের যৌন সংবেদনশীল অঞ্চলটিই তখনো হয়তো সম্পূর্ণরূপে বিকশিত হয় নি। বিচারপতিগণ, আপনারা কাজে যাওয়ার সময় আপনার মগজটা একটু সঙ্গে করে নিয়ে যাবেন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .