বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইয়েমেনঃ চলমান খাদ্য সংকটে লাখ লাখ মানুষের অনাহার

সবচেয়ে দরিদ্র আরব দেশগুলোর মধ্যে ইয়েমেনে, লাখ লাখ মানুষ চতুর্দিকে অনাহার ও দীর্ঘ অপুষ্টির মত মানব সংকটে ভুগছে।

মার্চে, দাতব্য প্রতিষ্ঠান অক্সফাম ইন্টারন্যাশনাল একটি সংবাদ মাধ্যমে বেশ ভালভাবে সতর্ক করেছেঃ

ইয়েমেন এখন মানব বিপর্যয়ের চরম অবস্থায় আছে। আন্তর্জাতিক নিরাময় প্রতিষ্ঠান অক্সফাম আজ বিশ্ব খাদ্য সংস্থার নতুন সমীক্ষা থেকে এটি প্রকাশ করেছে, যেখানে দেশটিতে মানুষের অনাহার গাণিতিক হারে বৃদ্ধি দেখানো হয়েছে। নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে ইয়েমেনে জনসংখ্যার ৪৫ শতাংশ মানুষের যথেষ্ট খাদ্য নেই- অর্থাৎ এক কোটিরও বেশি মানুষ যাদের অর্ধেক তীব্রভাবে খাদ্য নিরাপত্তাহীন এবং যাদের জরুরি ভিত্তিতে ত্রাণ প্রয়োজন।

যাহোক, বহুল পরিচিত মিডিয়াগুলো মার্কিন ড্রোন হামলার পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিতে আল কায়েদার অস্তিত্ব নিয়ে জানতে আগ্রহী।

ইয়েমেনি মোহাম্মদ আদেল আলামার ক্ষুব্ধ হয়ে টুইট করেছেনঃ

@M7mmdAdel: ১০ মিলিয়ন ইয়েমেনি দুর্ভিক্ষের মুখোমুখি হয়েছে! বিশ্ব শুধু আল-কায়েদা এবং ড্রোন হামলা নিয়ে চিন্তিত কিন্তু ১০ মিলিয়ন মানুষকে নিয়ে নয় #DroneStrikes

অক্সফাম আরো পরিসংখ্যান দেখিয়েছেঃ

@Oxfam:.@WFP [বিশ্ব খাদ্য সংস্থা] প্রতিবেদন করেছে ইয়েমেনে খাদ্য সংকট ২০০৯ সাল থেকে দ্বিগুণ হয়েছে। আজ ৫ মিলিয়ন মানুষ প্রায়ই অভুক্ত থাকে যা তাদের স্বাস্থ্যে প্রভাব ফেলছে

বছরের পর বছর ধরে ইয়েমেনে অনেক খাদ্য নিরাপত্তা সমস্যা চলছে, এবং আল জাজিরা ইংরেজি চ্যানেল সম্প্রতি চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা একে কিভাবে ত্বরান্বিত করছে এবং বহু শিশুর জীবনের ঝুঁকি বাড়াচ্ছে তার ভিত্তিতে দুটি ভিডিও নির্মাণ করেছে।

ব্রিটিশ-ইয়েমেনি ব্লগার ওমর আল জাজিরার একটি অত্যাধিক অপুষ্ট একটি শিশুর ছবিতে টুইটবার্তা পাঠিয়েছেন:

@OmarMash: ‘এই ছোট্ট শরীরটি এখনো শ্বাস নিচ্ছে’ – ইয়েমেনের হাসপাতালে শিশুরা অভুক্ত, সে ভাগ্যবান, হাসপাতালে তার ঠাঁই মিলেছে।

অত্যধিক অপুষ্ট ইয়েমেনি শিশু সানা, ইয়েমেন, এপ্রিল ২০১২। ছবি আল জাজিরার সৌজন্যে (CC BY-NC-ND 3.0).

ইয়েমেনি ব্লগার আফরাহ নাসের “ইয়েমেনে অনাহার” শিরোনামে একটি অনুচ্ছেদ লিখেছেন:

ইয়েমেনে খাদ্য সংকট মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ছে। শিশুদের অনাহার ও অপুষ্টির প্রতিবেদন সংবাদ শিরোনাম হচ্ছে। গত রাতে [২৭ এপ্রিল], ইউনিসেফ প্রতিনিধি জনাব মোহাম্মদ আল-আসাদি আল-জাজিরার সাথে এ বিষয়ে কথা বলেছেন, “প্রায় ১ মিলিয়ন শিশু খাদ্যাভাব ও অপুষ্টির শিকার। কোন ব্যবস্থা না নেয়া হলে এখন থেকে ২০১২ সালের শেষ পর্যন্ত প্রায় ১ লাখ ২০ হাজার অনুর্ধ্ব-৫ শিশুর মৃত্যু হতে পারে”[…] আমি ভাবছি সরকার এ বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে ঠিক কি করছে। এটি সত্যি দুঃখজনক যে ইয়েমেনের রাজনীতিবিদরা শিশুদের অবস্থাকে উপেক্ষা করেছেন।

ওমর টুইট করেছেনঃ

@ওমরম্যাশ: ইয়েমেন খাদ্য সংকট বাড়বে যদি এখনই আন্তর্জাতিক দাতা, ইয়েমেন সরকার ও জিসিসি [গালফ কোঅপারেশন কাউন্সিল] সাথে আলোচনায় না বসে।

তিনি আরো বলেনঃ

@OmarMash: আমার বিরক্ত লাগছে যে ৬ মাস সময়ে যখন ইয়েমেনে খাদ্য সংকট সর্বোচ্চ পর্যায়ে পৌঁছাবে, শুধুমাত্র তখনই বিশ্বের দৃষ্টি আকর্ষিত হবে।

লন্ডনপ্রবাসী ইয়েমেনি লুবনা মাকতারি ইয়েমেনের মৃতপ্রায় শিশুদের বাঁচাতে জরুরি ব্যবস্থা নেয়ার জন্য তর্ক করেছেনঃ

@LoubbyM: ইয়েমেনের শিশুরা অনাহারে মরছে!!! তাদেরকে উপেক্ষা করা বন্ধ করুন। ইয়েমেন কোন রাজনৈতিক সমস্যা নয়, এটি মানব বিপর্যয়। #YemenFoodCrisis (:

আশা করা হচ্ছে হে ২৩ মে রিয়াদে অনুষ্ঠিত ইয়েমেনের বন্ধুরাষ্ট্রের সম্মেলনে এই খাদ্য সংকট আলোচিত হবে। সম্মেলনের নিরাপত্তা ও রাজনৈতিক আলোচনার কেন্দ্রে শিশুদের বিষয় বলার জন্য ইউনিসেফ আহ্বান করেছে।

ইয়েমেনের খাদ্য সংকট নিয়ে আরো জানতে এই অনুচ্ছেদটি পড়ুন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .