বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

স্পেনঃ যিশুর পুনরুত্থান নামক এক ধর্মীয় শোভাযাত্রায় ব্রাজিলীয় পপ সঙ্গীতের তালে নাচ

স্পেনের আলহামা ডে মুরচিয়ায় খ্রিস্টীয় ইস্টার সপ্তাহের শেষে, যিশুর পুনরুত্থান বিষয়ক মূর্তি নিয়ে পালন করা এক শোভাযাত্রায় টেলোমানিয়া এক অনুভূতির সৃষ্টি করে, যখন ভ্রাতৃসংঘ এই মূর্তি বহন করছিল, তখন তারা মিশেল টেলোও-এর আন্তর্জাতিক হিট গান “আই সে ইউয়ু তে পেগো”-এর সাথে খেলার এবং নাচার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে।

যে ভিডিও-তে এই শোভাযাত্রার দৃশ্য প্রদর্শন করা হয়েছে, তা স্পেনের বেশ কয়েকটি প্রচার মাধ্যম প্রকাশ করছে এবং বেশ কয়েকবার ইউটিউবে এই ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। যার ফলে এক নাগরিক দ্বারা তৈরী এই ভিডিওর আসল মালিক কে তা বের করা এখন কঠিন হয়ে পড়েছে। লা অপিনিয়ন ডে মুরচিয়াতে [ স্পানিশ ভাষায়] লেখা হয়েছে:

Los que pasearon esta Semana Santa por las calles de Alhama de Murcia se llevaron una buena sorpresa al ser testigos de un paso fuera de lo común, y es que el solemne ritmo que suele acompañar a las imágenes protagonistas cambió por uno más fiestero y desenfadado.

ইস্টারের সপ্তাহে যারা আলহামা ডে মুরচিয়ার রাস্তায় হেঁটে গিয়েছে তারা এক বিস্ময়কর বিস্ময়ের মুখোমুখি হয়, বিশেষ করে যখন তারা এক অসাধারণ ঘটনার সাক্ষী হয়। আর এটা ছিল এক ধর্মীয় ভাবগাম্ভীর্যের ছন্দ যা প্রধান প্রতিমূর্তির সাথে মিলে পুরো বিষয়টিকে আরো আনন্দময় এবং মুক্ত এক উৎসবে পরিণত করে।

Resucitó by Juan Carlos Guijarro Moreno CCBY

Resucitó by Juan Carlos Guijarro Moreno CCBY

এই শোভাযাত্রার সময় যে গান বাজানো হয়েছে, তা ছিল মিশেল টেলোর গাওয়া আই সে ইউয়ু তে পেগো ( ওহ, যদি আমি তোমাকে ধরতে পারি) নামক ব্রাজিলের পপ সঙ্গীত। আর তার সাথে কলম্বিয়ান গায়িকা শাকিরার ওয়াকা ওয়াকা গানটিও বাজানো হয়েছে। .
ব্রাজিল থেকে আসা এই গান সারা বিশ্ব ছড়িয়ে পড়েছে, যেমনটা গ্লোবাল ভয়েসেস-এর আগের প্রবন্ধ, ব্রাজিলঃ যদি আমি তোমাকে ধরতে পারি নামক গান বিশ্বে ছড়িয়ে পড়েছে এবং স্পেনে গ্রানাডার আইডিয়াল.ইএস [স্প্যানিশ ভাষায়]-এর লেখায় বিষয়টি উঠে এসেছে। তবে বিশেষ করে ইস্টার শোভাযাত্রা সম্বন্ধে যারা লিখেছে, তারা এতে যোগ করেছে:

Ai se eu te pego‘ ataca de nuevo sin contemplaciones. Es la canción del momento y traspasa fronteras como podemos ver en Youtube. Michel Télo ha creado escuela. El caso es que el tema de las Navidades, de la primavera y, posiblemente, del verano se ha colado hasta en la Semana Santa. Es la fuerza de Ai se eu te pego. Hasta en un periodo de retiro, espiritualidad y devoción como éste, Michel Teló se ha abierto un hueco con su ‘Ai se eu te pego‘ y una cofradía de Alhama de Murcia ha decidido modernizarse e ir más allá de las marchas típicas y se ha lanzado a bailar a su Jesús Resucitado al ritmo de los pegadizos sones de la canción del brasileño.

‘এই গান “আই সে ইউয়ু তে পেগো” আর কোন উৎসবে হামলা চালানো বাকি রাখল না। এটা হচ্ছে মুহূর্ত সৃষ্টিকারী গান এবং এটা সীমান্ত অতিক্রম করে গেছে, যেমনটা আমরা ইউটিউবে দেখেছি। মিশেল টেলো এক অনুকরনীয় কাজ করেছে। ঘটনা হচ্ছে এটা বড়দিন, বসন্তের এবং সম্ভবত গরমের হিট গান, আর এবার ইস্টার সপ্তাহের মাঝে এই গান প্রবেশ করল। আই সে ইউয়ু তে পেগোর এটাই হচ্ছে শক্তি। এমনকি যেখানে এই গানের আবেদন কম হবার কথা, যেমন এ রকম আধ্যাত্মিক এবং ধর্মীয়ভাবে তন্ময় হয়ে যাওয়া উৎসবে, সেখানেও আই সে ইউয়ু তে পেগো নামক গানটি নিজের যাত্রা শুরু করল এবং মুরচিয়ার আলহামার ভ্রাতৃসংঘ নিজেদের তাজা এক সঙ্গীতের সাথে নিজেদের সংযুক্ত করল এবং তারা গতানুগতিক শোভাযাত্রার বাইরে গিয়ে এবং যিশুর পুনরুত্থান নামক শোভাযাত্রায় ব্রাজিলীয় এক সঙ্গীতের সাথে বাবলগাম ছন্দে নেচে উঠল।

 

এই ঘটনায় ফুটবল বিশ্বকাপের সঙ্গীত ওয়াকা ওয়াকা গানের সাথে ভ্রাতৃসংঘের নাচার দৃশ্যও ধারণ করা হয়েছে, যা কিনা জনপ্রিয় কলম্বিয়ান গায়িকা শাকিরার গাওয়া গান। তবে মিশেল টেলোর গানের সাথে নাচা ভিডিও বিশ্বব্যাপী দ্রুত ছড়িয়ে পড়েছে।

http://youtu.be/RsOVby_5ukg

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .