বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ল্যাটিন আমেরিকাঃ ইন্টারনেটে ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টসের ভুক্তভোগীরা

[সব লিন্কগুলো স্প্যানিশ ভাষায়]

এই সমস্যা তখন থেকেই শুরু হয়েছে যখন ল্যাটিন আমেরিকায় পিআইপি ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস এর ব্যবহার বৃদ্ধি পেয়েছে। ফলে জনস্বাস্থ্য, এবং এই ক্ষেত্রে ব্যয় নিয়ে প্রশ্ন সৃষ্টি করেছে। ২০১০ সালের প্রথম সতর্কীকরণ বিজ্ঞপ্তিতে ক্যান্সারের বিভিন্ন কারণের মধ্যে ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টসকে সনাক্ত করা হয়।

কয়েক মাস পরে, এই ব্যাপারটি এতই ছড়িয়ে পড়ে যে অনেক নারী সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোতে একত্রে এ ব্যাপারে তাদের তথ্য, মতামত এবং আইনত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন।

এরকম ঘটনা ঐ মহাদেশে ছড়িয়ে পড়ে। তারপরও যেসব নারী এ ব্যাপারে হিস্পানিক ওয়েব ২.০- এ সর্বাধিক প্রতিবাদ মুখর ছিলেন, তাদের কিছু ঘটনা উল্লেখ করব। সেখানে এখনো অনেক উত্তরহীন প্রশ্ন আছেঃ কে ব্যয় করবে? ইমপ্ল্যান্টস খুলে ফেলার পর কি হবে? ঝুঁকি কতটুকু? ভুক্তভোগীদের মতামত কি? এবং আরোঃ এবং তা ল্যাটিন আমেরিকা সম্পর্কে কি বলে, সৌন্দর্য বিষয়ে সার্জারি বিশেষ করে স্তন বৃদ্ধির উচ্চ চাহিদা?

সিলিকন ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস এর উপর একটি পরীক্ষা।

সিলিকন ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস এর উপর একটি পরীক্ষা। ছবিঃ ওয়াইড ওয়েব ভিডিওগ্রাফার, গ্রন্থস্বত্বঃ ডেমোট্রিক্স।

কলম্বিয়ায় এই ব্যাপার নিয়ে অনেক নারী ফেসবুকে গ্রুপ খুলেছেন। এগুলোর মধ্যে দুটি হল দোজ অ্যাফেক্টেড বাই পিআইপি ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস ইন কলম্বিয়া এবং উইমেন অ্যাফেক্টেড বাই পিআইপি ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস ইন কলম্বিয়া, যেগুলো জনস্বাস্থ্য সংস্থাগুলোর দায়ভার নিয়ে প্রশ্ন তুলে একটি ব্লগও প্রকাশ করেছেঃ

 Las prótesis PIP se vendieron en Colombia durante once años legalmente, a pesar de que la autoridad colombiana nunca tuvo documentos que probaran que sus componentes podrían ser utilizados en seres humanos…

এই পিআইপি ইমপ্ল্যান্টসগুলো ১১ বছর ধরে বৈধভাবে বিক্রীত হচ্ছে যদিও মানবদেহে এর উপাদানগুলোর প্রয়োগ সম্পর্কে কলম্বিয়ান কর্তৃপক্ষের কাছে কোন লিখিত তথ্য নেই…

অন্যরা তাদের কথা বলতে ব্লগ লিখছেন, যেমন নো টু দ্য বায়োপলিমারস। এই দল এবং ব্লগগুলো তথ্য, প্রশ্ন ও ইমপ্ল্যান্টস এর ব্যাপারে তাদের মতামত, রক্ষণাবেক্ষণ ও খুলে ফেলার ব্যাপারে সমর্থন লাভ করেছে। এছাড়া, যারা ইমপ্ল্যান্টস খুলে ফেলার সম্ভাব্যতার ব্যাপারে আলোচনা ও আইনত ব্যবস্থা সম্পর্কিত তথ্যের জন্য আগ্রহী তারাও পেয়েছেন।

চিলিতে ড্যানিয়েলা ক্যাম্পস, যিনি এ ব্যাপারে সতর্ক বৃদ্ধি ও গণ সংস্থার অনুসন্ধান ও দায়ীদের শাস্তির আহবান জানাতে তার ইউটিউব চ্যানেল ব্যবহার করেছেন, তিনিসহ অন্য ভুক্তভোগীরা তাদের অভিজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। ড্যানিয়েলা সামাজিক সাইটগুলোতে এ ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধি করার জন্য তার পাঠকদের আহ্বান জানান, এবং তিনি ইমপ্ল্যান্টস খুলে ফেলার প্রয়োজনে দায়ীদের আইনের আওতায় আনার জন্য একটি ফেসবুক গ্রুপ গড়েছেন।

http://youtu.be/TZNmgCUPvlM

যাহোক, হারনান কোরাল তার ডেরিকো ওয়াই একাডেমিয়া ব্লগে এর আইনত সমস্যাগুলো তুলে ধরেছেনঃ:

¿Podrían invocar las mujeres chilenas afectadas un régimen como éste? Lamentablemente, nuestro ordenamiento jurídico no ha recepcionado aún este tipo de responsabilidad sin culpa. (…) Las afectadas chilenas, invocando el registro del Instituto de Salud Pública como producto médico (y por tanto eventualmente peligroso), podrían demandar al fabricante. Pero si Poly Implants Prothéses no tiene representantes en Chile, les será muy difícil emplazar a la compañía.

এই ক্ষতিগ্রস্ত চিলিয়ান নারীরা কি এরকম কিছু আশা করেছিল? দুর্ভাগ্যবশত, আমাদের আইন ব্যবস্থা বিনাদোষে সাজা পাওয়ার বিষয়টি এখনো নেয় নি। (…) ক্ষতিগ্রস্ত চিলিয়ানরা যারা জনস্বাস্থ্য সংস্থার কাছে চিকিৎসার উপাদানের জন্য নিবন্ধন চেয়েছিল, তারা এর প্রস্তুতকারকদের কাছে অভিযোগ করতে পারত। কিন্তু যদি পলি ইমপ্ল্যান্টস প্রতিক্রিয়ার জন্য কোন বিশেষজ্ঞ চিলিতে না থাকে, তাহলে তাদের কোম্পানির জন্য টিকে থাকা কঠিন হবে।

মিয়ামিতে সোফিয়া জিমিনেজ পিআইপি ব্রেস্ট ইমপ্ল্যান্টস নিয়ে তার অভিজ্ঞতার আলোকে একটি ব্লগ খুলেছেন। এতে এর মধ্যস্থতা সম্পর্কিত অনেক ঘটনা ও ইমপ্ল্যান্টস খুলে ফেলা সম্পর্কিত তথ্যের বিবরণ দেয়া হয়েছেঃ

El hecho de estar tan cerca de testimonios de mujeres sufriendo de todo tipo de síntomas y complicaciones me hizo abrir un poco más los ojos. Y me pregunte a mi misma, ¿son los implantes tan seguros como nos quieren hacer pensar?

সব ধরণের সংক্রমণ ও জটিলতায় আক্রান্ত নারীদের ঘটনা আমার চোখ আরো খুলে দিয়েছে। জানি না, ইনপ্ল্যান্টসগুলো আসলেই ততটা নিরাপদ যতটা আমরা ভাবি?

কিন্তু ল্যাটিন আমেরিকায় এত স্তন স্ফীতি সার্জারির কারণ কি? ভেনিজুয়েলা থেকে দু’জন ব্লগার বিবরণ দিয়েছেন। ন্যাকি তার অফিসের পাশে কর্মরত বিভিন্ন নারীদের কথা ProDavinci ব্লগে উল্লেখ করেছেনঃ:

[Una de ellas] Aún debe la mayor parte del crédito bancario con el que financió sus cirugías (…) tiene 24 años (…) gana poco más de salario mínimo y tiene prótesis PIP de 400 cc. Le da gracias a Dios de haber tenido el dinero para pagar todo eso (…) “No todas llegamos al Miss Venezuela, pero hay que hacerle creer al resto que sí.”

[Y otra más opina:] “La estatura que te dan los tacones es nada frente a la manera que te crece el ánimo cuando un tipo se te queda viendo como si quisiera arrancarte la blusa”

De las nueve en conversa, sólo una sabe el tipo de prótesis que tiene, conserva el certificado y pudo hablar con su cirujano, que le garantizó que todo está bien. El resto hizo algunas llamadas, pero se encuentran en el estadio de la negación. Ninguna está dispuesta a operarse de nuevo (…) Les resulta impertinente pensar que deban renunciar a su sinuosidad sin nada que les compense la ausencia. Karla llegó a sugerir que el mismísimo gobierno debiera pagar las nuevas prótesis y reconocer mediante un permiso especial, la ausencia laboral de las afectadas por tal circunstancia (…)

[এক নারী] এখনো তিনি ব্যাংকের সিংহভাগ অর্থের মালিক যা তিনি সার্জারিতে ব্যয় করেছেন(…) তাঁর বয়স ২৪ বছর(…) তিনি নূন্যতম মজুরির মাত্র কিছু বেশি আয় করেন এবং তার ৪০০ সিসি পিআইপি ইমপ্ল্যান্টস আছে। তিনি এসবের পেছনে অর্থ ব্যয় করার জন্য ঈশ্বরকে ধন্যবাদ দেন(…) “আমাদের কেউই হয়তো মিস ভেনিজুয়েলা হতে পারবে না, কিন্তু আমাদের বিশ্বাস করাতে পারবে যে হ্যাঁ, আমরা পেরেছি।”

[অপর এক নারী] “হাই হিল পরে আপনি যা পান, তা কখনো এই উপায় যা আপনার উপর একজন পুরুষের অশ্লীল দৃষ্টিপাতকে প্রলুব্ধ করে, তার সাথে তুলনীয় হতে পারে না।”

সাক্ষাৎকার প্রদানকারী নয় নারীর মধ্যে শুধু একজনই তার ইমপ্ল্যান্টের বৈশিষ্ট্য সম্পর্কে জেনেছেন, এর সনদপত্র রেখেছেন এবং তার সার্জনের সাথে কথা বলতে সক্ষম হয়েছেন, যিনি তাকে সবকিছু ঠিক থাকার আশ্বাস দিয়েছেন। বাকিরা ফোনে যোগাযোগের চেষ্টা করেছেন, কিন্তু প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন। তাদের কেউই অস্ত্রোপচারের জন্য তৈরি নন(…) তারা তাদের অনুপস্থিতির জন্য কোন ক্ষতিপূরণ ছাড়াই তাদের ইমপ্ল্যান্টস খুলে ফেলার ধারণাকে ধৃষ্টতা মনে করেন। কার্লা মতামত দেন যে, নতুন ইমপ্ল্যান্টসের জন্য সরকারের ব্যয়ভার বহন করা উচিত এবং ক্ষতিগ্রস্ত নারীদের নিয়ে কাজ করার জন্য বিশেষ অনুমতি দেয়া উচিত(…)

অবশেষে, অ্যাপোরিয়াতে অ্যান্টোনিও রাঞ্জেল এই সৌন্দর্যচর্চার বিরুদ্ধে সামাজিক উদাসীনতা এবং এটি কেন এত জনপ্রিয় তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেনঃ

Es imposible negar que algunas mujeres, víctimas de la poderosa alienación o enajenación mental que las ha hecho creer que ser más sexy o atractiva las conduce directamente al éxito social y económico, convertidas de la noche para la mañana en señuelos sexuales irresistibles, serán dotadas del poder de seleccionar entre la manada de turulatos seguidores a quien ellas consideren que es el mejor “partido” (…) Les resulta impensable que (…) los reinados de belleza, los desfiles de moda, los cosméticos mágicos, son las mismas que se lucran con las prótesis…

কিছু নারীর কথা বাদ দেয়া অসম্ভব যারা হয়রানি বা নির্যাতনের শিকার, যা তাদেরকে ভাবতে শিখিয়েছে যে, আবেদনময়ী বা আকর্ষণীয় হওয়াটা সামাজিক ও অর্থনৈতিক সাফল্য, অনিবার্য আবেদনময় টোপের সাহায্যে সবচেয়ে ভালোটিকে “সঙ্গী” হিসেবে বেছে নেয়ার সাথে সরাসরি সম্পর্কযুক্ত। তারা ভাবতেই পারে নি যে, এই কোম্পানিগুলোই সৌন্দর্য প্রতিযোগিতা, ফ্যাশন শো, লোভনীয় কসমেটিকস থেকে আয় করে যেমন এই ক্ষেত্রে লাভ করে…

আরো অনেক প্রশ্ন ও আলোচনা ওয়েব দুনিয়ার জায়গা ভরিয়ে দেবে। লক্ষ লক্ষ নারী এখনো সার্জারি ও চিকিৎসার বিস্তারিত জানে না। চিকিৎসা ক্ষেত্রে সৌন্দর্য সম্পর্কিত সার্জারির প্রতিক্রিয়া ও এর বহুল ব্যবহার অনেক বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে এসেছে। যদিও, আইনি লড়াই এখনো শুরু হয় নি বললেই চলে, কিন্তু নারীদের সৌন্দর্যচর্চার উপর সামাজিক বাধ্যবাধকতা এবং এ নিয়ে নারীদের প্রতিক্রিয়াই এখন চারিদিকে আলোচনার বিষয়। [All links lead to Spanish language pages except when otherwise noted]

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .