বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হংকং: একটি অগণতান্ত্রিক সিটি মেয়র নির্বাচনকে নেটনাগরিকরা না বলছে

২৫ মার্চে হংকং-এর চীনা কেন্দীয় লিয়াজো অফিসের সক্রিয় প্রভাব এবং লবীর মাধ্যমে, প্রধান নির্বাহী নির্বাচক কমিটির ১,২০০ জন সদস্যের মধ্যে, ৬৮৯ জনের ভোটে নির্বাচিত লুয়েন চুন ইঙ্গ-হংকং-এর আগামী মেয়র হতে যাচ্ছেন। যখন নির্বাচনের ফলাফল প্রকাশ করা হয়, তখন অস্থায়ী নির্বাচনী কেন্দ্রের সামনে হাজার হাজার বিক্ষোভকারী, নির্বাচনে বেইজিং-এর প্রভাব খাটানোর বিরুদ্ধে বিক্ষোভ প্রদর্শন করে।

অনুরূপ এক গণ ভোট।

নির্বাচনের আগে, ২৩ ও ২৪ মার্চে, হংকং-এর প্রায় ২২০,০০০ জন বাসিন্দা, হংকং বিশ্ববিদ্যালয়ের গণমত কর্মসূচি বিভাগ আয়োজিত এক অনুরূপ গণ ভোটে অংশ নেয়, (মক বা অনুরূপ নির্বাচন) যা মূলত ক্ষুদ্র পরিসরে আয়োজিত এই নির্বাচনের প্রতি অসন্তোষ এবং সিটি মেয়র নির্বাচনে নিজেদের ভোটাধিকারের দাবীতে আয়োজন করা হয়েছিল।

যদিও অনলাইনের ভোটিং সিস্টেমে হ্যাকাররা আক্রমণ চালায় , তারপরে হাজার হাজার ভোটার ( স্থানীয় বাসিন্দা যাদের বয়স ১৮ বছরের উর্ধ্বে)। ভোট দেবার জন্য স্থানীয় ভোট কেন্দ্রে লাইন তৈরী করতে উৎসাহ প্রদান করে:

Polling station at Poly University on March 24. From Facebook Page: Civic Referendum

২৪ মার্চে পলি স্টেশনের সামনে ভোট কেন্দ্রের অবস্থা। ছবি সিভিক রেফারেন্ডামের ফেসবুকের পাতা থেকে নেওয়া হয়েছে।

ফেসবুক ব্যবহারকারী লেয়ুং চাউ মিং ২৩ মার্চে একটি ভোট কেন্দ্রের বাইরে এক লাইনে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি ফেসবুকের পাতায় এই গণ ভোট কার্যক্রমের আবেগীয় দৃশ্যের বর্ণনা প্রদান করেছেন:

當時我身在其中, 寒風中大家也很自律, 有老中青, 更有媽媽在邊排隊邊給小朋友餵飯。

深明今天所為, 從64至71到323 etc., 未會於 有生之年 見証 民主之成果; 但為下一代…下兩代…下下下N代,我們是有責任的, 亦是 每個香港人 此時此刻 應盡的義務!

আমি একটি লাইনে দাঁড়িয়ে ছিলাম, প্রচণ্ড ভীড় সত্ত্বেও আমার সবাই শৃঙ্খলাবদ্ধ দাঁড়িয়ে থাকি। লাইনে, (সেখান) বয়স্ক, প্রাপ্তবয়স্ক এবং তরুণরা উপস্থিত ছিল। লাইনে দাঁড়ানো অবস্থান এক মা তার শিশু পুত্রকে দুগ্ধ পান করাচ্ছিল। আমি খুব ভাল ভাবে উপলব্ধি করতে পারি জুন ৪ [ বাৎসরিক মোম প্রজ্বলন রাত্রি প্রার্থনা] ১ জুলাই [এই বছর] এবং ২৩ মার্চে [নির্বাচনে বেইজিং-এর হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে], ইত্যাদি প্রতিবাদ এবং মিছিল সত্ত্বে, আমরা আমাদের জীবনে গণতন্ত্রের ফল দেখতে পাব না, তবে এখন থেকে প্রজন্ম তৈরী হচ্ছে, আমাদের সেই পরবর্তী প্রজন্ম এবং পরবর্তী প্রজন্মের পরবর্তী প্রজন্ম হয়ত এর ফল লাভ করতে পারবে। আমাদের দায়িত্ব রয়েছে, আর এটি বাধ্যতামূলক বিষয় যে সকল হংকং বাসীকে এখানে আসতে হবে এবং তা এখনই!

লুয়েং-এর সাথে থমাস প্যাং সেই একই লাইনে দাঁড়িয়ে ছিল এবং সে ব্যাখ্যা করছে কেন সে এই অনুরূপ নির্বাচনে ভোট দেওয়ার জন্য লাইনে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়:

এটা হচ্ছে বর্তমান বাস্তবতা, কিন্তু আমরা একটা পরিবর্তন চাইছি। আর আমরা “চীনের মত-প্রসাদ রাজনীতি চাইনা”। এ কারণে আমরা ভোট দেওয়ার জন্য বের হয়েছি। আমরা এই কাজটি করব, কারণ আমরা চাই না আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম আবার একই ঘটনার জন্য রাস্তায় নেমে আসুক। আমি আশি করি লোসো তা অনুভব করবে।

ঘটনাক্রমে, ২২২, ৯৯০ জন নাগরিক এই অনুরূপ নির্বাচনে ভোট দিয়েছে, যার মধ্যে ৫৪.৬ শতাংশ নাগরিক ব্লাঙ্ক ভোট বা খালি স্থানে সিল মেরেছে। এতে লিয়েং চুন ইঙ্গি মাত্র ১৭.৮ শতাংশ ভোট পেয়েছে, যা কিনা ক্ষুদ্র পরিসরে অনুষ্ঠিত হওয়া নির্বাচনের একেবারে বিপরীত অবস্থা। হংকং এর কনভেনশন এবং এক্সিবিশন সেন্টারে প্রধান নির্বাহী নির্বাচনের ভোট অনুষ্ঠিত হয়েছে।

২৫ মার্চে সিটি হলের বাইরের বিক্ষোভ

২৫ মার্চে, প্রায় ২,০০০-এর বেশী নাগরিক অস্থায়ী নির্বাচন কেন্দ্রের বাইরে বিক্ষোভ প্রদর্শন কর। তারা লুয়েং-এর জয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করে এবং পুলিশের গড়া ব্যারিকেডে ধাক্কা দেয়। নিচে বিক্ষোভ প্রদর্শনের এলাকা থেকে ইনমিডিয়াএইচকে.নেট-এ প্রকাশিত থেকে নাগরিক সাংবাদিকদের তোলা কিছু ছবি প্রদর্শন করা হল:

Protesters pushing the police barricades on March 25. Image by Flickr user inmediahk (CC BY-NC).

২৫ মার্চে বিক্ষোভকারীরা পুলিশের ব্যারিকেডে ধাক্কা দিচ্ছে। ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী ইনমিডিয়াএইচকে-এর (সিসি বাই-এনসি)

Protesters sitting outside the election hall. Image by Flickr user inmediahk (CC BY-NC).

বিক্ষোভকারীরা নির্বাচনী হলের বাইরে বসে আছে, ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী ইনমিডিয়াএইচকে-এর (সিসি বাই-এনসি)

No to the small circle election: the Pig, the Wolf and the Dove. Image by Flickr user inmediahk (CC BY-NC).

ক্ষুদ্র পরিসরের নির্বাচনকে না বলুন, শুকরছানা, নেকেড়ে এবং ঘুঘুর নির্বাচনকে। ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী ইনমিডিয়াএইচকে (সিসি বাই-এনসি)

জোশুয়া উং একজন তরুণ একটিভিস্ট, তিনি বিক্ষোভের উপর দৃষ্টি প্রতিফলিত করেছেন এবং এই ধরনের কার্যক্রমে জনতার অংশগ্রহণে অনিচ্ছার ব্যাপারে তার হতাশা ব্যাক্ত করেছেন:

還記得今天在會展外的馬路坐下時,忽然有人大叫:「梁振英當選!」,群眾們立即站立起哄,面上流露著驚訝的神情。我本身對梁振英當選也有心理準備,但也想不到他可在第一輪投票以689票立即當選。

回家時十分痛心,我痛心的不是梁振英當選,我痛心的是大家的那種犬儒和事不關已的心態,「邊個做特首都唔關我事,平平安安和和諧諧咪算」、「懶衝動只會搞到政局亂哂搞臭香港個名」、「抗爭完都無用架啦」、「呢個世界邊有真正民主」……

我很想告訴大家,梁振英當選並不可怕,可怕的是大家對強勢政治和硬推政策無動於衷,即使將來對遊行集會的打壓會越來越強,但我乃我始終如一地相信群眾運動的力量,特別很想告訴各位同學和朋友,嘗試第一次的社會行動,把握今年的七一遊行,讓大家以一個又一個足印,告訴中共政權,我們不要這個由小圈子選舉產生,只有18%認受性的梁振英特首。

আমি স্মরণ করতে পারি, যখন আমি কেন্দ্রের পাশে রাস্তার ধারে বসে ছিলাম, সে সময় হঠাৎ একজন চেচিয়ে উঠল, সি ওয়াই লুয়েং জিতেছে! নাগরিকরা উঠে দাঁড়ালো এবং চেঁচামেচি শুরু হল। মনে হল তারা বেশ অবাক হয়ে গেছে, আমি তার জয়ের জন্য প্রস্তুত ছিলাম। কিন্তু আশা করিনি যে প্রথম রাউন্ডে সে ৬৮৯ ভোটে জিতবে।

আমি ভগ্ন হৃদয়ে ঘরে ফিরে এলাম, এই কারণে নয় যে লুয়েং জয়লাভ করেছে, বরঞ্চ হতাশা এবং বিচ্ছিনতার কারণে। এই উত্তেজনা এক রাজনৈতিক বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করবে এবং হংকং-এর চরিত্র ধ্বংস করে ফেলবে। .’, ‘ বিক্ষোভের পরও বিষয়টি অর্থহীন হয়ে রইল’, ‘ বিশ্বের সকল প্রান্তেই সত্যিকারের কোন গণতন্ত্র নেই'……

আমি সত্যিকার অর্থে আপনাদের জানাতে চাই যে লুয়েং-এর জয় ভয়ঙ্কর নয়; ভবিষ্যতের লৌহ মুষ্টির যে রাজনৈতিক হুমকি, সে বিষয়ে সবার সচেনতার অভাব। এমনকি যদি বিক্ষোভ প্রদর্শন এবং এই উদ্দেশ্য সমাবেত হবার মত স্বাধীনতায় উপর দমন চালানোর ঘটনাও বাড়তে থাকবে, তারপরেও আমি জনতার ক্ষমতার উপর বিশ্বাস রাখি। বিশেষ করে, সামাজিক কার্যক্রমে ছাত্র এবং বন্ধুদের ক্রমাগত যোগ দেওয়ার জন্য আমি উৎসাহ প্রদান করে যাব, বিশেষ করে ১ জুলাই-এর মিছিলে যোগ দেওয়ার সুযোগ যেন গ্রহণ করে। আসুন আমাদের পদক্ষেপ যেন চীনে কমিউনিস্ট শাসকদের বলে যে আমরা লুয়েং চুন ইঙ্গ-কে চাই না, যে কিনা এক ক্ষুদ্র পরিসরের নির্বাচনের মাধ্যমে “ নির্বাচিত” হয়ে এসেছে এবং মাত্র ১৮ শতাংশ জনতা যাকে আমাদের প্রধান নির্বাহী হিসেবে দেখতে চায়।

স্থানীয় রাজনীতিতে বেইজিং-এর হস্তক্ষেপের প্রতিবাদে আগামী ১ এপ্রিলে আরেকটি বিক্ষোভ প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .