বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

হংকং-এর প্রধান নির্বাহী নির্বাচনঃ শূকর ছানা, নেকড়ে এবং খালি জায়গায় ভোট প্রদান

হংকং-এর প্রধান নির্বাহী পদের জন্য, ২৫ মার্চ ২০১২ তারিখে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। ১,২০০ সদস্যের এক সুবিধা প্রাপ্ত নির্বাচন কমিটিকে , হেনরি টাঙ্গ, এবং চুং ইঙ্গ লেয়ুং-এর মাঝে একজনকে বেছে নিতে হবে, হংকং–এর সংবাদপত্র প্রথম জনকে শূকর ছানা, এবং দ্বিতীয় জনকে নেকড়ে নামে অভিহিত করে থাকে, উভয়ে প্রার্থী হিসেবে বেইজিং সরকার-এর আশীর্বাদপুষ্ট। এই অগণতান্ত্রিক নির্বাচন পদ্ধতির প্রতিবাদে হংকং এর সুশীল সমাজ নির্বাচক কমিটির সদস্যদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, তারা যেন তাদের প্রাপ্ত সুবিধা ত্যাগ করে এবং ভোটটি খালি জায়গায় প্রদান করে।

প্রজেক্ট সিন্ডিকেট-এর সিন মিং শাও উভয় প্রার্থীর পেছনের ইতিহাস ব্যাখ্যা করে। প্রথমে হেনরি টাঙ্গ ওরফে ‘শূকর ছানার’-এর পেছনের ঘটনা:

টাঙ্গ, যে কিনা হালকা রুচির মানুষ, এক কাপড় ব্যবসায়ী পরিবারের বংশধর, যার পিতা চীনের প্রাক্তন নেতা জিয়াং জেমিন-এর আস্থাভাজন ছিল। টাঙ্গ, প্রাথমিকভাবে দুটি ভুল করেছে। প্রথমত সে দ্রুত স্বীকার করেনি যে তার কয়েকজন রক্ষিতা আছে, যাদের একজনের কিনা কলেজে পড়ুয়া এক সন্তান রয়েছে …সম্ভবত যে সন্তানের পিতা টাঙ্গ। তার দ্বিতীয় ভুলটা আরো বিচিত্র নির্বুদ্ধিতার পরিচায়ক। স্থানী পত্রিকাগুলো আবিষ্কার করেছে যে সে তার এক বাসভবনের নীচের অবৈধভাবে বিশাল, স্পা সুবিধা সহ এক রাজকীয় মদের ভাণ্ডার গড়ে তুলেছে। সরকারে এক ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা হিসেবে সে জানে যে এই ধরনের স্থাপনা অবৈধ, এবং হয় তাকে এটিকে বৈধ করার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করা উচিত ছিল অথবা এটিকে ভেঙ্গে ফেলা উচিত ছিল- যার জন্য খরচ উত সামান্য পরিমাণ অর্থের, আর টাঙ্গের কাছে তা প্রচুর পরিমাণে আছে।

A satirical poster remixed by Facebook user Rex Lee at Tang's Earthquake Page

টাঙ্গের ভূকম্পনের পাতায় ফেসবুক ব্যবহারকারী রেক্স লি-এর রিমিক্স করা ব্যাঙ্গাত্মক পোস্টার।

সি ওয়াই লেয়ুং ওরফে নেকড়ের পেছনের ইতিহাস জানা যাক:

ধনাঢ্য ব্যবসায়ীরা শঙ্কা প্রকাশ করেছেন যে পুরোনো ভাবধারার কমিউনিস্ট মূল্যবোধ সম্পন্ন লেয়ুং হয়ত বাজারে তাদের যে একচ্ছত্র অধিপত্য তা খর্ব করতে পারে। প্রচার মাধ্যম তাকে একজন সবকিছু এড়িয়ে যাওয়া ব্যক্তি হিসেবে আবিষ্কার করেছে। ইন্টেলিজেন্ট এশিয়া তাকে একজন সতর্ক আন্ডারগ্রাউন্ড কমিউনিস্ট পার্টির সদস্য হিসেবে আবিষ্কার করেছে, যা কিনা সে অস্বীকার করেছে। এবং সরকারি কর্মকর্তারা বিশ্বাস করে যে লেয়ুং হচ্ছে হংকং-এর বিট্রিশ উপনিবেশিক মানসিকতা ধারণকারী এক ব্যক্তি, যার মধ্যে সরকারের চেহারা সবচেয়ে দৃশ্যমান।

টাঙ্গের ব্যক্তিগত কেলেঙ্কারির ঘটনা সাধারণ নাগরিকের কাছে বেশী বেশী চোখে পড়েছে, যার ফলে তার জনপ্রিয়তা লেয়ুঙ্গের চেয়ে অনেক কমে গেছে। একই সাথে বেইজিং ভিত্তিক সংবাদপত্র সমূহ এই সংবাদ ছড়িয়ে দিচ্ছে যে সি ওয়াই লেয়ুং, বেইজিং-এর মনোনয়ন প্রাপ্ত হংকং-এর প্রধান নির্বাহী।

তার প্রতিপক্ষের আক্রমণে হতাশ হয়ে এবং মরিয়া হয়ে, ১৬ মার্চ তারিখে অনুষ্ঠিত এক গণ বিতর্কে, টাঙ্গ উন্মোচন করেন যে সি ওয়াই লেয়ুং জোর করে মৌলিক আইনের ২৩ তম ধারা প্রয়োগে সমর্থন করেছিলেন ( এটি তথাকথিত জাতীয় নিরাপত্তা আইন)। এবং ২০০৩ সালের বিক্ষোভের সময় দাঙ্গা পুলিশ এবং কাঁদানে গ্যাস নিয়ে তিনি বিক্ষোভ দমনের জন্য তৈরী ছিলেন। তিনি আরো উন্মোচন করেন যে, স্থানীয় প্রচার মাধ্যমগুলো যাতে স্বনিয়ন্ত্রিত সেন্সরশিপ আরোপে বাধ্য হয় তার জন্য হংকং-সরকারে উপর লেয়ুং চাপ প্রয়োগ করেছিল, যাতে প্রশাসন স্থানীয় রেডিও স্টেশনের লাইন্সেসের মেয়াদ সংক্ষিপ্ত করে ফেলে।

এই সমস্ত সংবাদে বিরক্তি হয়ে আরো বেশী বেশী নাগরিক এবিসি-এর প্রতি সমর্থন প্রদান করা শুরু করে। এবিসি মানে সি ওয়াই লেয়ুং ছাড়া অন্য যে কোন কিছুতে ভোট দাও। এবিসি-এর সমর্থকরা নির্বাচক কমিটির কাছে আহ্বান জানিয়েছে যে তারা যেন নীচের কাজ গুলো করে, ১) তারা এ্যালবার্ট হোকে ভোট প্রদান করে, যে কিনা প্যান-ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক জোটের নামমাত্র এক প্রার্থী; ২) তারা যেন তাদের ভোট নষ্ট করার জন্য খালি জায়গায় ভোট প্রদান করে; ৩) তারা যেন হেনরি টাঙ্গকে ভোট দেয়, যে কিনা জিতবে পারবে না, কারণ সে সরকারে আভ্যন্তরীণ আলোচনা জনসম্মুখে প্রকাশ করেছে।

প্রায় ৩০ টি বেসরকারি সংগঠনের একটি নাগরিক জোট সবাইকে সংগঠিত হবার আহ্বান জানায়। তারা অনুরোধ জানিয়েছে [চীনা ভাষায়] যেন নির্বাচন কমিটির সদস্যরা খালি জায়গায় ভোট প্রদান করে:

今年的「特首選戰」只是一場鬧劇,各候選人雖然都提出不同的政綱,但在過程中沒有諮詢並排拒基層市民的參與,更選擇性地接見有權勢有選票的團體。這突顯不論誰人當選,行政長官都只會為一小撮特權階級服務。更荒謬的是,主要候選人只透過互揭醜聞作政治宣傳手段,除顯示當權者缺乏政治誠信外,只不過是富豪階級及大財團的利益代言人,當選後只會將利益向金融資本和大商家輸送,而民間團體及普羅市民一直爭取的社會議題,最終只會石沉大海。

প্রধান নির্বাহী নির্বাচন এক তামাশা ছাড়া আর কিছুই না। সকল প্রার্থী, তাদের তথাকথিত নীতি পরিকল্পনা সামনে উপস্থাপন করেছে, কিন্তু এর জন্য কোন আলোচনা সভা রাখেনি এবং তারা অংশগ্রহনকারীদের মাঝে কেবল সাধারণ নাগরিকদের রেখেছে। তাদের প্রচারণার সময়, তারা কেবল সেই সমস্ত দলের লোকেদের সাথে মিশেছে যাদের ভোট দেবার ক্ষমতা আছে। যেই জিতুক না কেন, প্রধান নির্বাহী কেবল সংখ্যালঘুদের সেবা করা যাবে, এক বিশেষ সুবিধাভোগী শ্রেণীর। আরো বিচিত্র তথ্য হচ্ছে, নির্বাচনী প্রচারণায় কেলেঙ্কারির বিষয়টি প্রধান হয়ে দেখা দিয়েছে । এই নির্বাচনে বিজয়ী কোন ভাবে জনগণের সাথে যুক্ত থাকবে না এবং সরকারের ভবিষ্যত নীতি নির্ধারনের মাধ্যম সে কেবল ধনাঢ্য ব্যবসায়ী এবং তাদের লাভের বিষয়টি দেখবে, সমাজ সংস্কারের বিষয়টি এখানে উপেক্ষা করা হবে।

我們現呼籲全港市民以不同形式站出來,以行動杯葛小圈子選舉,而手握一票的人士,以「不投票」的形式,洗淨身上特權的污垢。

আমরা হংকং-এর নাগরিকদের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি, তারা যেন উঠে দাঁড়ায় এবং এই নির্বাচন বয়কট করে। নির্বাচনে যাদের ভোট দেবার ক্ষমতা আছে তারা যেন তাদের এই ক্ষমতা পরিত্যাগ করে।
Profile picture of the Hong Kong Federation of Student Union's mobilization page

হংকং ফেডারেশন অফ স্টুডেন্ট ইউনিয়ন-এর একত্রিত করণ পাতার প্রোফাইল ছবি

২৪ মার্চের রাতে, হংকং-এর ফেডারেশন অফ স্টুডেন্ট ইউনিয়ন এক বিক্ষোভের আয়োজন করেছে। তাদের এই একত্রিত করণ উদ্যোগের এক সারসংক্ষেপ, যা ফেসবুকের মাধ্যমে গ্রহণ করে হয়েছে [চীনা ভাষায়] :

近日,社會輿論都集中在候選人的醜聞和私人生活上,把特首選舉鬧得熱哄哄。傳媒每日上演著一幕幕選戰風雲,給予我們有選擇權的幻象。然而,這無非是一小撮利益集團的權力鬥爭。香港人既沒有投票權也沒有決定權,而基於候選人不必向市民直接負責的關係,一般港人也不會是下屆特首的主要服務對象。…我們希望透過是次行動,將社會近來聚焦的方向,由候選人的醜聞轉移回到問題的根本:制度的不公和小圈子選舉的不平等,從而喚起民眾的醒覺,理解到自己的公民權利被剝削,從而走上繼續爭取民主自由的道路。

সম্প্রতি, প্রধান নির্বাহী নির্বাচন নিয়ে প্রচার মাধ্যম আসা সংবাদের সবকটাই হচ্ছে কেলেঙ্কারি নিয়ে। প্রচার মাধ্যমে “নির্বাচনী নাটক” নাগরিকদের মাঝে এক বিভ্রম সৃষ্টি করেছে যে এটা যেন আমাদের বেছে নেবার অধিকার। বাস্তবে এটা হচ্ছে ক্ষমতাবান ধনী শ্রেণীর একটি দলের মাঝে ক্ষমতা নিয়ে সংঘর্ষ। হংকং-এর নাগরিকদের সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য ভোট দেবার কোন অধিকার নেই। প্রার্থীরা জনতার মনোমত নয় এবং এ কারণে ভবিষ্যত প্রধান নির্বাহী আমাদের সেবা করবে না… এই কাজের মাধ্যমে আমরা আমাদের মনোযোগ আবার প্রার্থীদের কেলেঙ্কারি থেকে হংকং-এর মৌলিক সমস্যার উপর ফিরিয়ে আনতে চাই; এটি অন্যায় এবং বৈষম্যের এক নির্বাচন পদ্ধতি। জনতার এই বিষয়ে সচেতন হওয়া প্রয়োজন আমাদেরকে আমাদের নাগরিক অধিকার থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে এবং সে কারণে স্বাধীনতা এবং গণতন্ত্রের জন্য লড়াই চলতে থাকবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .