বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশর: নারীর বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার নিয়ে সংসদে বিতর্ক

মিশরের নতুন সংসদের কার্যাবলী সামাজিক প্রচার মাধ্যমে চলতে থাকা এক বিতর্কের বিষয়ে পরিণত হয়েছে, নতুন সংসদকে গণতন্ত্রের প্রতি এক অগ্রযাত্রা হিসেবে বিবেচনা করা হচ্ছে, তবে সংসদে যে সব বিষয় নিয়ে আলোচনা হচ্ছে, তা দেশটির অত্যন্ত প্রয়োজনীয় চাওয়া-যেমন পর্নোগ্রাফিক ওয়েবসাইট নিষিদ্ধ করার অনুরোধের মত বিষয়ের সাথে মোটেও প্রাসঙ্গিক নয়।

একজন সংসদ সদস্য এক বিতর্কের সৃষ্টি করেন, যখন তিনি দাবী করেন যে ইংরেজী শিক্ষা মিশরীয় নাগরিকদের পশ্চিমা নাগরিক বানানোর এক ষড়যন্ত্র। একেবারে সাম্প্রতিকতম চিত্র হচ্ছে এক সংসদ সদস্যের অনুরোধ, যে সমস্ত নারী বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার দাবী করবে তাদের তিনি পোষাক খুলে নেবার অনুরোধ জানান।

অতীতে, যখন নারীদের বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকারের বিষয়টি সামনে উঠে এসেছে, মিশরীয় নারীদের প্রচণ্ড বৈষম্যের শিকার হতে হয়েছে। মিশরের পুরুষের আদালতে না গিয়ে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটাতে পারে। কিন্তু বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটানোর জন্য নারীদের লম্বা পথ পাড়ি দিতে হয়, জটিল এবং আমলাতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মধ্যে দিয়ে নারীদের বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার লাভ করতে হয়। পরিস্থিতির সামান্য উন্নতি ঘটে তখন, যখন ২০০০ সালে এক আইন পাশ করা হয়, যে আইনে নারীদের একটি ত্রুটিহীন (খুলা’) তালাকের আবেদন করার অধিকার প্রদান করা হয়। এই আইনের মাধ্যমে নারীরা বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার তো লাভ করতে পারে, কিন্তু তাদের সকল অর্থনৈতিক অধিকার ত্যাগ করতে হয়।

সংসদে খুলা তালাক বাতিলের পরামর্শ প্রদান করে আনা খসড়া আইনের ব্যাপারে সামাজিক প্রচার মাধ্যম ব্যবহারকারীরা দ্রুত প্রতিক্রিয়া প্রদান করেছে।

মেরিট আল-সায়িদ বলছে [আরবী ভাষায়]:

مشروع الغاء قانون الخلع خطأ فادح. الخلع دفعة الى الامام للمرأة التي من حقها البدأ من جديد في حياتها.

খুলা তালাক বাতিল করার জন্য একটা খসড়া আইন তৈরী করা হয়েছে, যা কিনা এক মারাত্মক ভুল; নারীদের জীবন নতুন করে শুরু করার জন্য এটা তাদের অধিকার।

মিরা সামি এর সাথে যোগ করেছে [আরবী ভাষায়]:

مشروع قانون لإلغاء الخلع هو البرلمان دا جئ علشان يقضى على كل حقوقنا بدل ما يجيب الحقوق المغتصبة ولا دا جزء من خطة ولا يوم من أيامك يامبارك
খুলা তালাক বাতিল করার জন্য একটা খসড়া আইন’? সংসদ কি এই জন্য তৈরী করা হয়েছে যে তারা আমাদের সর্বশেষ প্রদান করা অধিকার সব কেড়ে নেবে? অথবা এটা হচ্ছে এমন একটা পরিকল্পনার অংশ, যাতে আমরা বলে উঠি “মুবারক ফিরে এসো”?

এই সংবাদে কেবল নারীরা নয়, অনেক পুরুষও তাদের ক্ষোভ প্রকাশ করেছে। ওয়াএল খালিল আবেদন জানাচ্ছে [আরবী ভাষায়]:

ال كنت عامل حسابه وخايف منه بيحصل: مشروع قانون لالغاء الخلع…. الاخوة النواب – فرجونا شوية شطارة على السلطة والعسكر مش على الشعب المسالم
যা ঘটছে তাতে আমি উদ্বিগ্ন: খুলা বাতিলের জন্য এক খসড়া আইন’. প্রিয় সংসদ সদস্যরা, কর্তৃপক্ষ এবং সামরিক বাহিনীর বিরুদ্ধে কিছু চাতুর্যপূর্ণ কাজ প্রদর্শন করুন, শান্তিপ্রিয় জনতার বিরুদ্ধে নয়।

আলি হাগ্রিস আর্তনাদ করে উঠেছে :

إلغاء قانون الخلع هو ببساطة اعطاء الضوء الأخضر للرجال للأساءة إلى زوجاتهم جنسيا و إذا اعترضت فهي كافرة و زنديقة ؟ أترضاه لاختك يابو دقن ؟
খুলা তালাকের অধিকার বাতিল করার মানে হচ্ছে খুব সাধারণভাবে পুরুষদের সবুজ সঙ্কেত প্রদান করা যে, তারা তাদের স্ত্রীর উপর যৌন নিপীড়ন চালাতে পারবে; এবং যদি স্ত্রী আপত্তি জানায়, তখন বলা হবে যে সে এক অবিশ্বাসী? শ্মশ্রুমণ্ডিত পুরুষ, আপনি কি আপনার বোনের ক্ষেত্রে এমনটি ঘটতে দিতে চান?

এবং শেরিফ খায়রি এর সাথে প্রতিধ্বনিত করেছে:

مشروع قانون منع الخلع ده على أقل تقدير ساذج.. افتراض ان خراب البيوت بيجي لما الطلاق يحصل.. مش مدرك ان الخراب الأكبر انهم يعيشوا كارهين بعض
অন্তত বলা যায়, এই খসড়া আইন হচ্ছে অকার্যকর হতে যাওয়া আইন, যদি স্বামী স্ত্রী পরস্পরের প্রতি ঘৃণা নিয়ে বসবাস করে, তাহলে সেটা কি আরো বেশী ক্ষতিকর নয়?

যথারীতি, এই ঘটনায় অনেক ব্যাঙ্গাত্মক এবং রসিকতাপূর্ণ মন্তব্যের সৃষ্টি হয়েছে। নুন আরাবিয়া এই বিতর্কের উপর আসা কিছু বিষয়ের উপর প্রবন্ধ তৈরী করছে, মুলত @এলমা৭রোসার করা টুইটের উপর ভিত্তি করে করা, যে কিনা #الخلع_قوة নামক হ্যাশট্যাগের উপর বেশ কিছু টুইট করেছে, এই হ্যাশট্যগের অর্থ, “খুলা হচ্ছে ক্ষমতা”।

এর সাথে, রিহাম মোহাম্মদ রসিকতা করেছে:

مجلس الشعب كده بيلعب بالنار .. قالك يلغى قانون الخلع .. ده كانت الستات قاموا عليهم قطعوهم ‎:D‏
এই সংসদ আগুন নিয়ে খেলছে। যদি তারা বলে যে তারা ‘খুলা’ বাতিল করে দেবে, তাহলে নারীরা সেখান যাবে এবং তাদের টুকরো টুকরো করে ফেলবে! 😀

মুহাব তালাত একই সাথে নিবেদন করছে:

اكيد الي قدم طلب الغاء الخلع عايز يلعب بديلوا وخايف مراتوا تخلعوا وعجبي

যে সংসদ সদস্য খুলা বাতিল করার অনুরোধ জানাচ্ছে নিঃসন্দেহে সে বোকা হতে চাইছে, কিন্তু সে শঙ্কিত যে তার স্ত্রী হয়ত তাকে তালাক দিতে পারে

এবং স্যালি জোহনে তার মায়ের বক্তব্য উদ্ধৃত করেছে:

ماما اللي بتخاف من المظاهرات ” لو مجلس المتخلفين ده لغى الخلع أنا حجيب خيمة ومش حمشي من قدام مجلس الشعب”…ادوني عقلكم
আমার মা, যে কিনা বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে ভয় পায়, সে বলছে “যদি মানসিক প্রতিবন্ধীদের দ্বারা গঠিত এই সংসদ ‘খুলা’ নামক আইন বাতিল করে, তাহলে আমি সংসদের সামনে অবস্থান গ্রহণ করব এবং সেখান থেকে নড়ব না”। শুনে আমি তাজ্জব হয়ে গেছি!

এই বিষয়টি উল্লেখ করার মত নয় যে, উক্ত সংসদ যে খুলা পদ্ধতি বাতিল করার জন্য খসড়া আইন তৈরী করেছে, সে ইসলামিক কোন দলের সদস্য নয়, বরঞ্চ সে উদারনৈতিক দল ওয়াফদ দলের প্রাক্তন সদস্য। এই ঘটনায় আহমেদ শোকরিই তার দৃষ্টিভঙ্গি এভাবে প্রদান করেছে :

مطالبة عضوا بإلغاء الخلع الذي حلله الدين توددا للإسلاميين هي متاجرة بالدين ، تؤكد ان مطالبة الغير بتطبيق أمور تحت مظلة الدين ليست لأجل الدين

একজন সংসদ সদস্য ‘খুলা’ বাতিলের আহ্বান জানিয়েছে, যা ধর্মীয় ভাবে গ্রহণযোগ্য, ইসলামপন্থীদের শান্ত করা যেন অনেকটা ইসলাম নিয়ে ব্যবস্যা করা। এই বিষয়টি নিশ্চিত করছে যে, ধর্মীয় পোষাকে আসা কোন অনুরোধ, আসলে ধর্মের স্বার্থে নয়।

ঘটনাক্রমে, বিতর্কে এই বিষয়টি উঠে এসেছে যে খুলা ইসলামিক কোন আইনের বিষয় কিনা। অনেক নেট ব্যবহারকারী উদ্ধৃত করেছে যে ‘খুলা’ হচ্ছে একটি ইসলামিক আইন। মোহাম্মদ এলগোওহারী এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছে যে খুলা হচ্ছে ইসলামিক আইন এবং সে বলছে:

‘খুলাকে’ বাতিল করা যাবে না, যতক্ষণ ইসলাম সংসদীয় আইনের মূল ভিত্তি।

সবশেষে, সকলে এই বিষয়ে একমত নয়, এবং সকলে মনে করে না যে খুলা বাতিল করা খারাপ কোন বিষয়। টুইটার ব্যবহারকারী @_আধহেম টুইট করেছে:

انا ضد قانون الخلع لانه مش في الإسلام حاجة بتقول كده ولو ع الخمسين واحد الي علي تويتر دول عادي هما بيسافروا بره كتير ‎‫#مصر‪‏
আমি ‘খুলা’ নামক আইনের বিপক্ষে, কারণ এটা মোটেও ইসলামিক কোন আইন নয় যা অনেকে বলেছে, এবং যে পঞ্চাশ জন টুইটার ব্যবহারকারী এর পক্ষে, সেটা খুব একটা বড় বিষয় নয়। তারা ইতোমধ্যে অনেকবার বিদেশ ভ্রমণ করে এসেছে!

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .