বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইজরায়েলের প্রতি ইরানী নাগরিকবৃন্দ: “ আমরা, তোমাদের বন্ধু”

ইজরায়েলের প্রতি ইরানী নাগরিকরাঃ “ আমরা, তোমাদের বন্ধু”।

ইজরায়েলের এক ফেসবুক প্রচারণায় ইরানের নাগরিকদের উদ্দেশ্য বলা হয়েছে ” আমরা কখনোই তোমাদের দেশে বোমা নিক্ষেপ করব না। আমরা, তোমাদের ভালোবাসি”, যা কিনা একই রকম ভাবে তৈরী করা ইরানী ফেসবুক প্রচারণা থেকে উত্তর লাভ করেছে, যে প্রচারণায় ইজরায়েলের উদ্দেশ্যে বলা হয়েছে, ” আমরা তোমাদের বন্ধু”।
ইজরায়েলের নাগরিক এড্রি এবং তার স্ত্রী মিশেল তামির, ইজরায়েলে-এর রাজধানী তেল আভিভের একটি ছোট্ট গ্রাফিক ডিজাইনার স্কুলের ছাত্রছাত্রীদের জন্য ফেসবুক প্রোফাইল ‘পুস্পিন মেহিনায়” এক উদ্যোগ গ্রহণ করেছেন।

এই প্রচারণা ইন্টারনেটে প্রচুর মনোযোগ আকর্ষণ করেছে এবং এমনকি ইজরায়েলের একটি ইংরেজি দৈনিক হারেৎজ, লিখেছে যে ” ইজরায়েলি দম্পতির এই অনলাইনে ডাকা শান্তির আহ্বান ইতোমধ্যে ১,০০০ ইজরায়েলী এবং ইরানী নাগরিকের সমর্থন লাভ করেছে। আর এর শুরু হয়েছে দুটি পোস্টার থেকে।

এখন ইরানীরা, ফেসবুকের, “ইরান থেকে শান্তি এবং গণতন্ত্রের জন্য নামক একটি পাতায় তাদের ছবি এবং বার্তা রেখে, তাতে বাড়তি আকর্ষণ প্রদান করেছে”।

প্রত্যেকটি ছবির শুরু হয়েছে প্রথমে একটি নাম দিয়ে, তারপর তাতে লেখা রয়েছে, “ আমরা পারমাণবিক বোমা চাইনা, আমরা গণতন্ত্র এবং শান্তি চাই, আমরা, তোমাদের বন্ধু”।

নিমার প্রদান করা বার্তাটি এখানে তুলে ধরা হলঃ

শুভ নওরোজ! আসুন এটিকে একটি নতুন যুগের মাধ্যমে শুরু করি!
আমরা, ইরানীরা, কোন পারমাণবিক বোমা চাই না!
আমরা, ইরানীরা, কোন যুদ্ধ চাই না!
আমরা, ইরানীরা, ইসলামিক শাসনতন্ত্র চাই না!
আমরা, ইরানীরা, কোন সন্ত্রাসী দলকে সমর্থন করতে চাই না
আমরা গণতন্ত্র চাই!
আমরা শান্তি চাই!
আমরা শ্রদ্ধা চাই!
আমরা স্বাধীনতা চাই



শান্তির জন্য এক চুমুক

এখানে আমিরের ছবি তুলে ধরা হল।

…এবং এক মানবাধিকার একটিভিস্ট

আহমাদ বেতাবি, ইরানের প্রাক্তন এক চেতনার বন্দী (চিন্তা প্রকাশ করার কারণে যাদের কারাগারে রাখা হয়)। তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার সময়, ১৭ জুলাই, ১৯৯৯-এ,দি ইকোনমিস্ট পত্রিকায় দৃশ্যমান হবার কারণে তিনি আন্তর্জাতিক খ্যাতি লাভ করেন, যেখানে তাকে, তার এক সঙ্গী বিক্ষোভকারীর জামা ধরে রাখতেন দেখা যায়, যে জামায় রক্ত লেগে ছিল। এখান তার সেই ছবিটি।

হয়ত একদিন ইরান এবং ইজরায়েল সহ-অবস্থান করবে, বাস্তব জগতে, যা তারা ভার্চুয়াল জগতে করে দেখিয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .