বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

রাশিয়া: ভ্লাদিভস্টকে প্রাকনির্বাচনী ধাঁধাঁ

এই পোস্টটি রাশিয়ার নির্বাচন ২০১১/১২-এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

৪ মার্চ রাশিয়ার রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রাক্কালে রাজনৈতিক উত্তাপের মাত্রা এখন চরমে পৌঁছেছে। রাশিয়ান কর্তৃপক্ষ না পারছে সারাদেশের বৃহদায়তন বিক্ষোভ উপেক্ষা করতে, আবার না পারছে মানুষের প্রত্যাশায় পর্যাপ্তভাবে সাড়া দিতে।

বর্তমানে সবার সবকিছু রাজনৈতিক বিষয়ে পরিণত হয়েছে এবং দূরপ্রাচ্যের শহর ভ্লাদিভস্টকও এখন এই প্রাকনির্বাচনী জ্বরে আক্রান্ত হয়েছে।

সাম্প্রতিকতম উদাহরণ হল একটি রহস্যময় বিজ্ঞাপনী প্রচারণা, যা নিয়ে ভ্লাদিভস্টকের নেট-নাগরিকেরা এই মূহুর্তে আলোচনা করছে। এটি পুরোপুরি বাণিজ্যিক ও অ-রাজনৈতিক একটি প্রকল্প হতে পারে। কিন্তু নিশ্চিতভাবেই এটা জনস্বার্থে চালিত এবং সর্বশেষ রাজনৈতিক চিত্রকে নিয়ে বিতর্ক সৃষ্টি করে।

প্রথমতঃ শহরটির একটি রাস্তার উপর বিশাল একটি ব্যানার জিজ্ঞেস করছে “কে? কে?” (নিচের ছবিটি প্রাইমমিডিয়া.আরইউ-এর এই নিবন্ধটি [রুশ ভাষায়] থেকে এসেছে এবং পোর্টালটির পুনঃপ্রকাশের নিয়মাবলী [রুশ ভাষায়] আনুযায়ী এখানে পুনরায় প্রকাশ করা হয়েছে):

Who? Who? by Anton Balashov

কে? কে? ছবি আন্তন বালাশভ-এর

এই প্রশ্নটি ৪ মার্চের রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীদের নির্দেশ করতে পারে, আবার নাও করতে পারে। এখানে দৃষ্টিভঙ্গিটি বাণিজ্যিক এবং রাজনৈতিক উভয় প্রচারণার জন্যে একই: প্রাথমিক বিজ্ঞাপনগুলো সরাসরি কোনো নির্দিষ্ট পণ্য/প্রার্থীকে নির্দেশ করে না। (সম্প্রতি ভ্লাদিভস্টকে অনুরূপ রাজনৈতিক বিজ্ঞাপনের উদাহরণ দেখা গিয়েছে এখানে এবং এখানে: প্রথমটি বলছে যে দেশটি প্রথমবার ধ্বংস হয়েছিল ১৯১৭ সালে রুশ বিপ্লবের সময়, আবার আরো বেশি ১৯৯১ সালে সোভিয়েত যুগের শেষে, কিন্তু ২০১২ সালে কী হবে তা এখনও দেখার আছে; দ্বিতীয়টি জিজ্ঞেস করছে, “আবার বিশৃঙ্খলা?”।)

উত্তরগুলো আসতে বেশি দেরি হয়নি। কিন্তু তারা ঠিক আগের “কে? কে?”-এর মতো প্রশ্ন করে ভ্লাদিভস্টকের বাসিন্দাদের ধাঁধাঁ আর বিভ্রান্তিতে ফেলে রেখেছে: বড় বড় ব্যানারে সারা শহর ছেয়ে গেছে, যেগুলোর মধ্যে অন্যান্যদের সাথে স্পঞ্জ বব [রুশ ভাষায়], অবতার তুরুক মাক্তো [রুশ ভাষায়], মাইকেল জ্যাকসন এবং মি. বীন [রুশ ভাষায়] এবং জনপ্রিয় একটি আঞ্চলিক রুশ ছড়ার কোট পরিহিত ঘোড়া রয়েছে।

কিছুটা সময় পরেই ব্লগারদের কাছে এই বিজ্ঞাপনগুলোতে ধরা পড়ে একটি স্থানীয় আবহাওয়া পোর্টাল প্রাইমপোগোডা.আরইউ-এর মতো সব চরিত্র:

Who? Who? Answers: Sponge Bob, Horse in a Coat (rhymes in Russian), Turuk Manto (character from Avatar) screen shots taken from PrimPogoda.ru

কে? কে? উত্তর: স্পঞ্জ বব, কোট পরা ঘোড়া (রুশ ভাষার ছড়া), তুরুক মাক্তো (অবতার চরিত্র) পর্দা প্রাইমপোগোডা.আরইউ থেকে নেয়া স্ক্রিনশট।

এলজে (লাইভজার্নাল) ব্যবহারকারী এলেক্সহিত্রোভের দেয়া এই ধাঁধার সমাধান [রুশ ভাষায়] হল সবচেয়ে বেশি সম্ভব এটা স্থানীয় অনলাইন সম্প্রদায়ের কাজ। তিনি প্রাইমপোগোডা.আরইউ-এর বিজ্ঞাপনগুলোতে উল্লিখিত প্রতিটি চরিত্রের পরেই একটি সংখ্যাসহ একটি চেক-বক্স রয়েছে বলে যুক্তি দেখিয়ে ভোটের নমুনা ব্যালট দেখানো একটি টিভি সংবাদ অনুষ্ঠানের একটি স্ক্রীনশট সরবরাহ করেছেন। :

[নমুনা ভোটদান ব্যালটটিতে] প্রতিটি রাষ্ট্রপতি প্রার্থীর প্রতিনিধিত্ব করছে [রহস্যময় বিজ্ঞাপনটির] একটি করে চরিত্র এবং স্বাভাবিকভাবেই ব্যালটটিতে সংশ্লিষ্ট নম্বরটিও রয়েছে।

এলেক্সহিত্রোভের মতে তুরুক মাক্তো প্রতিনিধিত্ব করে উদার গণতান্ত্রিক পার্টির নেতা ভ্লাদিমির ঝিরনোভস্কিকে; স্পঞ্জ বব জাস্ট রাশিয়া দলের নেতা সের্গেই মিরোনভকে; আর পুতিন, #৫ হয়েছেন প্রবাদবাক্যের কোট পরা ঘোড়া।

লাইভজার্নাল ব্যবহারকারী ভ্লাদিমির গোলেভ এই প্রসঙ্গে স্পঞ্জ ববকে রাজনৈতিক প্রার্থীর চেয়ে বরং একটি কার্টুন চরিত্র বলেই মনে হয় ভেবে এটা লিখেছেন [রুশ ভাষায়]:

আমি স্পঞ্জ ববকে ভোট দিব। স্পঞ্জ বব স্থায়ীত্ব হল, সর্বোপরি।

রাশিয়া অনেকটা তাড়াতাড়িই তার পরবর্তী প্রধানের নাম জানবে। ভ্লাদিভস্টকেকের বাসিন্দারাও সম্ভবত রহস্যময় বিজ্ঞাপনী প্রচারণাটির মানে এবং এর উদ্দীষ্টদের আবিষ্কার করবে।

এই পোস্টটি রাশিয়ার নির্বাচন ২০১১/১২-এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .