বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সিঙ্গাপুর: রাজনীতিবিদের বিবাহবহির্ভূত কেলেঙ্কারীর নাগরিক আলোচনা

সিঙ্গাপুরের একটি সামাজিক-রাজনৈতিক ওয়েবসাইট- টেমাসেক প্রিভিউ এমেরিটাস (টিআরই), ওয়ার্কার্স পার্টির (ডব্লিউপি) সদস্য এবং হুগাং এসএমসি‘র সংসদ সদস্য ইঅ শিনকে একটি বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িত অভিযুক্ত করে একটি নিবন্ধ পোস্ট করে:

টিআর এমেরিটাস একটি নির্ভরযোগ্য সুত্র থেকে কয়েকবার গোপন তথ্য পেয়েছে যে একটি নামকরা বিরোধী দলের মূল সদস্য তার একই দলের এক বিবাহিত মহিলার সাথে বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িত।

এই নিবন্ধটি সিঙ্গাপুরীদের মাঝে মূলধারার ও সামাজিক প্রচার মাধ্যম উভয় স্থানে প্রচুর গুজব ও অনুমানের জন্ম দিয়েছে। বক্তৃতা অনুবাদ করতে সাহায্য করা এক চীনা শিক্ষিকাসহ তার গির্জার এক মহিলার সাথে ইঅ-এর সম্পর্ক দাবি করে অন্যান্য মহিলাদের সঙ্গে অভিযুক্ত সম্পর্কের নতুন সংবাদ বেরিয়ে আসছে।

গুজব-এর জবাব দেয়ার পরিবর্তে ইঅ এবং ডব্লিউপি, উভয়ই চুপ থাকে, কিন্তু ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখে দলটি জানায় যে ইঅ দলের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি (সিইসি) থেকে পদত্যাগ করেছেন:

ওয়ার্কার্স পার্টি জনসাধারণকে অবহিত করতে চায় যে মঙ্গলবার, ৭ ফেব্রুয়ারি ২০১২ তারিখ-এ, নির্বাহী পরিষদের মাসিক সভায়, পরিষদ ইঅ শিন লিয়ং-এর পদত্যাগ গ্রহণ করে। একই সময হতে দলের কোষাধ্যক্ষ পদ থেকে ইঅ শিন লিয়ং-এর অব্যহতি কার্যকর হবে।

A photo Yaw posted on his Facebook page of himself working with colleagues over the Chinese New Year.

ইঅ তার নিজের ফেসবুক পাতায় চীনা নববর্ষে সহকর্মীদের সাথে কর্মরত অবস্থায় নিজের একটি ছবি পোস্ট করেছেন।

পার্টি, অবশ্য জনগণকে, বিশেষ করে হুগাং এলাকার ভোটারদের আশ্বস্ত করেছে যে ইঅ সংসদ সদস্য হিসেবে তার দায়িত্ব পালন করে যাবেন।

যেভাবে ইঅ এবং ওয়ার্কার্স পার্টি একসাথে পুরো উপাখ্যানটি সামাল দিয়েছে তাতে অনেক সিঙ্গাপুরী নাগরিক অসন্তুষ্ট হয়েছে এই ভেবে যে তাদের নীরবতা তাদের মধ্যেকার স্বচ্ছতার অভাব এবং প্রচার মাধ্যম নিয়ন্ত্রণে তাদের অনভ্যস্ততাকেই নির্দেশ করে।

এসজিপলিটিক্সের, এনজি ই-জে মনে করেন ইঅর নিজেকে পরিষ্কার করা উচিত বা সংসদ সদস্য হিসেবে পদত্যাগ করা উচিত:

সাম্প্রতিক অগ্রগতির আলোকে আমি উপসংহার টানতে বাধ্য হচ্ছি যে অভিযুক্ত যৌন আচরণটি, জনাব ইঅ‘র দল এবং নির্বাচনী এলাকা উভয় পর্যায়ে স্বার্থের দ্বন্দ্ব তৈরির সম্ভাবনা রয়েছে।

হয় জড়িত নারীদের ভবিষ্যৎ বিড়ম্বনা এবং হয়রানি থেকে বাঁচাতে জনাব ইঅকে তার যৌন অসদাচরণঘটিত সত্যটি পরিষ্কার করা উচিত, অথবা নিজেকে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের জন্য অনুপযুক্ত বিবেচনা করে হুগাং-এর সংসদ সদস্য হিসেবে পদত্যাগ করা উচিত।

অনেকে মনে করেন ওয়ার্কার্স পাটির কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটি থেকে ইঅ‘র পদত্যাগ করা মানে প্রকারান্তরে দোষ স্বীকার করে নেওয়া:

@জান্নাজাউহার:, “ওয়ার্কার্স পাটির সদস্য ইঅ শিন লিয়ংকে সমস্যাক্রান্ত থাকার ব্যাপারে বিশ্বস্ত মনে হচ্ছে। #ম্যান

@শৈলেশ৮৮:“এই ইঅ শিন লিয়ং হলেন (সিঙ্গাপুরী) জেমস বন্ড। তিনি যেখানেই যান সর্বত্র একটি মহিলার সাথে জড়িত থাকেন

ইয়নিং ব্রেডের, অ্যালেক্স অউ বলেছেন এই উপাখ্যানটিতে ওয়ার্কার্স পাটির নীরবতার অর্থ হচ্ছে শাসক পিপলস এ্যাকশন পার্টির (পিএপি) মধ্যে স্বচ্ছতার অভাব রয়েছে (যার জন্যে তারা মাঝে মাঝেই সমালোচিত হয়):

যদি দল আশা করে যে পরবর্তী সাধারণ নির্বাচনগুলোর সময় হুগাং-এর ভোটাররা অভিযোগটি এড়িয়ে যাবে — যা তাদের ভুলে যাওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম — তবে কেন দল বিশ্বাস করছে না যে, সিঙ্গাপুরীরা এখন সেটা বুঝতে পারে? তবে দল এখন কেন সততা ও স্বচ্ছতার উদাহরণ সৃষ্টি করছে না?

তবে কেন ওয়ার্কার্স পাটি, পিএপির (সিঙ্গাপুরের ক্ষমতাসীন দল) মতো বিমর্ষ প্রতিরোধের মুখোশ পড়ে আছে?

কিন্তু ২০১১ সালে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ত্যান কিন লিয়ান, ইঅ এবং ওয়ার্কার্স পাটির বিষয়টি সামলানোকে সমর্থন করেন:

“আমাদের একাধারে একজন নাগরিক ও বিখ্যাত ব্যক্তির অধিকারকে শ্রদ্ধা করতে হবে, তার ব্যক্তিগত বিষয়ে চুপ থাকতে হবে যেগুলো তাদের সরকারী দায়িত্ব পালনে প্রভাব ফেলে না।

জনাব ইঅর-এর পরিবারের গোপনীয়তা রক্ষার স্বার্থে আরো কিছু প্রকাশ করার কোন প্রয়োজন নেই

পরবর্তী সাধারণ নির্বাচনের হুগাঙের ভোটাররা জনাব ইঅর-এর বিচার করবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .