বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মেক্সিকো:বিতর্কিত টুইটের বিষয়ে টুইটার ব্যবহারকারীরা প্রশ্ন তুলেছে

১০ নভেম্বর, ২০১১ তারিখে স্পামেও ফ্লোরেস (@মারেওফ্লোরেস) এই টুইটটি প্রকাশ করেছিলেন

No salía tan temprano del trabajoI hadn't left my job so early since Mouriño's aircraft crashed. Be careful, flying government officials.

১১ নভেম্বর তারিখে মেক্সিকোর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ফার্নান্ডো ব্লেক মোরা এক হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় নিহত হন। মেক্সিকো অঙ্গরাজ্য এবং কেন্দ্রীয় জেলার সীমান্ত এলাকায় এই হেলিকপ্টার দুর্ঘটনায় পতিত হয়। তার মৃত্যুতে সরকারের শীর্ষ স্থানীয় কর্মকর্তারা শোক প্রকাশ করে এবং ২০১২ সালের বাজেট আলোচনার মাঝে তার মৃত্যু এক রাজনৈতিক সমঝোতার সৃষ্টি করে ।

অনেকে নিজেকে প্রশ্ন করছে, মারেও ফ্লোরেস যে টুইট করেছে তা কি নিছকই এক রসিকতা, নাকি সে আগে থেকে এই ঘটনা সম্বন্ধে জানত। গতকাল মেক্সিকোর এটর্নী জেনারেল (স্প্যানিশ অদ্যাক্ষরে পিজিআর) এই ঘটনায় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করে [স্প্যানিশ ভাষায়]। তারা এখানে যুক্তি প্রদান করে যে ” ঘটনার আদ্যপান্ত তদন্ত প্রয়োজন”।

যখন নাগরিকরা এই ব্যাপারটি সম্বন্ধে জানতে পারে, তখন এই নিয়ে অনলাইনে এক প্রতিবাদের ঝড় উঠে। মেক্সিকোর টুইটার ব্যবহারকারীরা এ ক্ষেত্রে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়ে ওঠে। তারা সরকারের বিরুদ্ধে এই কারণে অভিযোগ আনে, সরকার একে পরিষ্কার ভাবে মানুষের ভুলে সৃষ্ট একটা একটা দুর্ঘটনা হিসবে তুলে ধরতে চেয়েছে।

এই ঘটনা, সম্প্রতি ভেরাক্রুজ অঙ্গরাজ্যের গভর্নরের সেন্সরশিপ আরোপের সাথে যুক্ত হয়ে পড়ে, যার ফলে টুইটের ক্ষেত্রে এক অনশ্চিয়তা দেখা দেয়। মিগুয়েল সি (@মাইকস্কোবেডো) তার লেখায় যে মনোভাবটি প্রকাশ করেছেন।:

#mareoflores ya hasta tengo miedo twitear #NoMiento

#মারোওফ্লোরেস এখন আমি টুইট করতে শঙ্কা বোধ করছি#নোমিয়েন্তো

এছাড়াও, এই বিষয়টি উদ্বিগ্ন টুইটার ব্যবহারকারীদের সমানে এক নজীর যে, সরকারের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান তাদের নাগরিকদের তথ্য নিয়ে কি কি করতে পারে, যেমনটা জেসুস রোবেল মালোফ (@ রোবেলসমালোফ) বর্ণনা করেছে:

¿De donde obtuvo la PGR información sobre la identidad de la persona que utiliza la cuenta de #MareoFlores y de su domicilio?

পিজিআর (এটর্নী জেনারেল) কি ভাবে জানলেন, কোন নাগরিক #মারেওফ্লোরেস নামের একাউন্ট ব্যবহার করে, কোথা থেকে তিনি এই তথ্য এবং তার ঠিকানা পেলেন?

এই বিষয়ে সাংবাদিক মারিও ক্যাম্পোস তার উদ্বেগের কথা আমাদের জানাচ্ছেন:

Delicada la detención de #MareoFlores -del que urge info- como imprudente su bio como “ángel de la muerte de panistas voladores”

#মারেওফ্লোরেস-এর গ্রেফতার এক সূক্ষ্ম কর্ম – তথ্যে অনুসন্ধানের দিক থেকে- তার জীবনী তুলে ধরার ক্ষেত্রেও সে বেপরোয়া, যেখান সে নিজেকে “উড়ন্ত রক্ষণশীল মৃত্যুর দেবতা’ হিসেবে বর্ণনা প্রদান করেছে।

ঘটনা হচ্ছে, দেশটিতে সম্প্রতি যে হানহানির পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে তার প্রেক্ষাপটে জুনো (@ভয়োপ্রসিগারোস) -এর মত কেউ কেউ এই ধরনের পরিবেশে সৃষ্টির যুক্তি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন:

En México puedes matar y vender droga, pero si tuiteas eres considerado una amenaza. #MareoFlores

মেক্সিকোতে আপনি মানুষ খুন এবং মাদক দ্রব্য বিক্রি করতে পারবেন, কিন্তু যদি আপনি কোন টুইট করেন, তাহলে আপনি একটা হুমকি হিসেবে বিবেচিত হবেন।#মারেওফ্লোরেস

এখনো এই বিষয়ে অনেকের সন্দেহ রয়েছে, কোন গ্রেফতারী পরোয়ানা ছাড়া কর্তৃপক্ষ কি কাউকে আটক করতে পারে? জেরাল্ডিনা জিভি (@জেরাল্ডিনাস্প্ল্যাশ) একে যে ভাবে দেখছেন:

Tuit o no tuit. La cosa es que ninguna autoridad te puede detener sin una órden de aprehensión. #MareoFlores

টুইট করুন বা না করুন, বিষয়টি হচ্ছে এই যে এখানে কর্তৃপক্ষ আপনাকে বিনা গ্রেফতারী পরোয়ানায় গ্রেফতার করতে পারবে। #মারেওফ্লোরেস

এই ঘটনা যে সংবেদনশীলতার সৃষ্টি করেছে তার কারণে এ বিষয়ে কোন সন্দেহ নেই যে এই সংবাদ ক্রমে আরো বিতর্কের ঘেরে আবদ্ধ হবে। কিন্তু টুইটার ব্যবহারকারীদের মধ্যে সাধারণ মনোভাব হচ্ছে ক্ষোভের, যেমনটা প্রকাশ করেছে উন মাল নেসেসারিও [ এক প্রয়োজনীয় শয়তান] ( @ ফ্রাঙ্ক _লোজান্ডোর) :

Como ciudadano mexicano lamenté la muerte de Blake Mora. Como ciudadano mexicano, también repudio la injusticia contra #MareoFlores

মেক্সিকোর এক নাগরিক হিসেবে আমি ব্লেক মোরার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছি, কারণ আমি মেক্সিকোর এক নাগরিক, একই সাথে #মারেওফ্লোরেস-এর প্রতি যে অন্যায় করা হয়েছে আমি তার নিন্দা জানাচ্ছি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .