বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইয়েমেনঃ নারীরা তাদের অবগুণ্ঠন পুড়িয়ে ফেলেছে

এই প্রবন্ধটি ইয়েমেন বিক্ষোভ ২০১১ এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

ইয়েমেনে নারীর তাদের মুখের আচ্ছাদন অবগুণ্ঠন এবং মাথার কাপড় পুড়িয়ে ফেলেছে। ইয়েমেনের শাসকের নির্মমতা এবং তার চালানো হামলার নিন্দা জানানোর ক্ষেত্রে এক প্রতীকী প্রতিবাদ হিসেবে তারা এই কাজটি করে। শাসকের এবার এক রাতের মধ্যে সানা এবং তাইজে ২৫ জন নাগরিককে খুন করে, সম্প্রতি তারা নারীদের হামলার লক্ষ্যবস্তু করেছে। এই আন্দোলন নিয়ে কেউ কেউ ভুল বুঝতে পারে, তবে এই বিক্ষোভ কোনভাবে নারী অধিকার কিংবা ইসলামের পর্দা প্রথার বিরুদ্ধে নয়। এটা বিশেষ করে শাসকদের কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে সবার কাছে এক সাহায্যের জন্য এক করুন আবেদন।

@সার্পোটইয়েমেন টুইট করেছে :

ইয়েমেনের নারীরা, শাসকের নির্মমতা এবং হামলার প্রতিবাদের তাদের অবগুণ্ঠন পুরিয়ে ফেলেছে। দেশটির শাসক বিশেষ করে নারীদের হামলার লক্ষ্যবস্তুতে পরিণত করেছে …… fb.me/AdNY5LTS

নীচের ভিডিওটি ইউটিউবে পোস্ট করেছে আইসেমেটিক। এই ভিডিওটি প্রদর্শন করছে যে সানার ৬০ নাম্বার সড়কে নারীরা জড়ো হয়েছে এবং তারা তাদের অবগুণ্ঠন পুড়িয়ে ফেলছে:

ইয়েমেনের নারীরা, উপজাতি এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে একটি শক্তিশালী বিবৃতি প্রদান করেছে এবং তাদের কাছে অনুনয় করছে যে তারা যেন শাসকের এই নির্মম হামলার পরিসমাপ্তি ঘটানোর জন্য কিছু করে। (ভিডিও পোস্ট করেছে আইননিউজ১):

@দোরি_ইরিয়ানি ইয়েমেনের নারীদের বার্তার মূল ভাবটি টুইট করেছে, যা এক প্রচারপত্রে বিতরণ করা হয়:

“স্বৈরাচারী সালেহ যে নির্মম গণহত্যা চালিয়ে যাচ্ছে তার প্রত্যক্ষদর্শী হবার কারণে আমরা বিশ্বের সমানে আমাদের অবগুণ্ঠন [ মাকারামা, সম্মানের প্রতীক] পুড়িয়ে ফেলছি।” #ইয়েমেন#বার্নিংভেল

উপজাতি ঐতিহ্য অনুসারে নারীদের অবগুণ্ঠন পোড়ানোর অর্থ হচ্ছে সাহায্যের জন্য আবেদন। ইয়েমেন হচ্ছে এক উপজাতি সমাজ এবং ইয়েমেনের সমাজে এবং ইসলাম ধর্মে নারীকে হত্যা করা এক কলঙ্কজনক বিষয়। যার ফলে দেশটির উপজাতি সমাজ এবং বিশ্বের কাছে ইয়েমেনের নারীদের এটা পরিষ্কার এবং জোরালো বার্তা, যেন তারা বিক্ষোভকারীদের হত্যার ঘটনায় তারা যেন হস্তক্ষেপ করে।

@সামেরনাসের:

আজ বিক্ষোভের সময় নারীরা তাদের অবগুণ্ঠন পুড়িয়ে ফেলেছে। অবগুণ্ঠন পুড়িয়ে ফেলার প্রতীকী অর্থ হচ্ছে তারা ইয়েমেনের উপজাতি সম্প্রদায়ের কাছে সাহায্যের আবেদন জানাচ্ছে।#ইয়েমেন#ওয়াইএফ

@জামজোমসিএনএন:

নারীরা তাদের অবগুণ্ঠন পোড়াচ্ছে: উপজাতি সম্প্রদায়কে অবশ্যই বুঝতে হবে যদি তাদের নারীদের উপর হামলা চালানো হয় এবং এই ঘটনায় তারা যদি চুপ করে থাকে তাহলে তারা ইয়েমেনের নারীদের কাছ থেকে কোন শ্রদ্ধা লাভ করবে না। #ইয়েমেন

@মো_আলশারাফি টুইট করেছে, যদিও ইয়েমেনের নারীরা এক রক্ষনশীল সমাজে বাস করে, তারপরেও তারা বর্তমান বিপ্লবে সাহসিকতার এবং নেতৃত্বের এক উদাহরণ তৈরি করেছে, যা সকল ইয়েমেনী নাগরিককে গর্বিত করেছে:

ইয়েমেনের নারীরা আসলেই বীর। #ইয়েমেনের নারী বিপ্লবীদের সকলকে ধন্যবাদ।

এই প্রবন্ধটি ইয়েমেন বিক্ষোভ ২০১১ এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .