বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইয়েমেনঃ সালেহ ক্ষমতা ত্যাগ করছে? মনে হয় না!

এই পোস্টটি ইয়েমেন বিক্ষোভ-২০১১ সম্বন্ধে আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

৩৩ বছর ধরে ইয়েমেন শাসন করে আসা শাসকের বিরুদ্ধে মাসের পর মাস ধরে চলা এক প্রতিবাদের পর, সেই শাসনকর্তা রাষ্ট্রপতি আলি আবদুল্লাহ সালেহ গত ৮ই অক্টোবর শনিবার সংসদ এবং শুরা কাউন্সিলের সামনে টেলিভিশনে সরাসরি সম্প্রচারিত এক ভাষন প্রদান করেন। এই ভাষণে তিনি জানান যে, আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তিনি ক্ষমতা ত্যাগ করতে যাচ্ছেন। তিনি বলেন, আমি ক্ষমতাকে প্রত্যাখান করেছি এবং ক্রমাগত তাকে প্রত্যাখান করে যাব, আর আগামী যে কোন একটি দিনে আমি ক্ষমতা ত্যাগ করতে যাচ্ছি।

তবে অনেকে মনে করে যে এটি ক্ষমতা নিয়ে তার এক নতুন খেলা। জাতি সংঘের রাষ্ট্রদূত জনাব জামাল বেন ওমর ইয়েমেনের উপর যে রিপোর্ট প্রদান করতে যাচ্ছেন, তাতে হস্তক্ষেপ করার লক্ষ্যে এই পদক্ষেপ। ওমর তার এই রিপোর্ট মঙ্গলবারে জাতি সংঘের নিরাপত্তা পরিষদে হস্তান্তর করতে যাচ্ছে।

A Carlos Lattuf cartoon

কার্লোস লাতুফ-এর কার্টুন

সালেহ বলেছেন যে তিনি ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াবেন এবং গালফ কোঅপারেশন কাউন্সিলের যে উদ্যোগ, তাতে আবারও স্বাক্ষর করবেন। ঘটনাক্রমে এই উদ্যোগ অনেক ইয়েমেনী নাগরিক প্রত্যাখ্যান করেছে। কেবল ইয়েমেনিদের মধ্যে নয়, অনেকের কাছেই এখন আর তার গ্রহণযোগ্যতা নেই।

গত মে মাসে পোস্ট করা হয়েছিল একটি জনপ্রিয় ভিডিও, যা সালেহ সম্বন্ধে অনেক ইয়েমেনির ভাবনাকে বহন করে। এই ভিডিওটি সালেহ-এর ভাষণের পর সানা ভিত্তিক ফ্রিল্যান্স সাংবাদিক @আদামবারোন পোস্ট করেছে। :

সাম্প্রতিক ভাষণের আলোকে বলা যায়, সম্ভবত এটা আসলে নতুন করে শুরু করার ইঙ্গিত- এটি এভাবে তুলনা করার যোগ্য http://www.youtube.com/watch?v=klxvHEKzqQM#কেটিপেরি #সালেহ#ইয়েমেন

এখানে টুইটারে প্রকাশিত আরো কিছু প্রতিক্রিয়া প্রদান করা হল:

@সামওয়াদ্দাহ: #সালেহকে তার বক্তৃতা প্রদানের সময়, এক নির্বোধ, মিথ্যাবাদী, ভণ্ড, উপেক্ষিত এবং প্রতারক বলে মনে হচ্ছিল। অন্য কথায় সে সময় সে তার নিজের মত করেই নিজেকে উপস্থাপন করে। #ইয়েমেন#সালেহব্লাব্লা

@ইয়েমেন৪(ফর)চেঞ্জ: আমি সততার সাথে বলতে পারি যে “আগামী যে কোন দিন” বলতে কি বোঝায় আমি তা জানি না। #সালেহ #ইয়েমেন

এক ইয়েমেনি সাংবাদিক @খালেদহামাদি এই ভাষণের ব্যাপারে টুইট করেছে। :

#ইয়েমেনের বিক্ষোভকারীরা কখনো প্রচার মাধ্যমে #সালেহ-এর বক্তৃতার বিষয়ে মনোযোগ প্রদান করেনি, যে ভাষণে আগামী কয়েকদিনের মধ্যে তিনি ক্ষমতা ছেড়ে দেবার প্রতীজ্ঞা করছেন। তারা গুরুত্ব প্রদান করেনি, কারণ তার বিশ্বাস করে যে এটা তার একটা নতুন কৌশল।

এবং @সামারনাসের বলছে:

এফওয়াইআই [ফর ইয়োর ইনফরমেশন বা আপনার জ্ঞাতার্থে] :সালেহ প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে যে সে ক্ষমতা থেকে সরে যাবে। গতকালের ভাষণের আগে তিনি, তিন বার এ রকম প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছেন। একবার যে মিথ্যা কথা বলে সে বারবার মিথ্যা বলে। #ইয়েমেন#সাপোর্ট ইয়েমেন

মিশরীয় সাংবাদিক @রাওয়ারাগেহ এর সাথে যোগ করেছে:

এটা একটা পরাবাস্তব বিষয় যে, কতবার আলি আবদুল্লাহ #সালেহ ক্ষমতা থেকে সরে যাবার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছে। সত্যিকার অর্থে। #ইয়েমেন

অনেক নেট নাগরিক বলছেন যে সালেহ -এর ভাষণ এবং বেছে বেছে শব্দ ব্যবহার করে বলা যে ‘তিনি সামনের যে কোন সময়ে ক্ষমতা ত্যাগ করতে যাচ্ছেন’ আসলে তা নোবেল শান্তি পুরষ্কার বিজয়ী তাওয়াক্কল কারমান যে যৌক্তিক কারণে তার এই পুরষ্কার বিজয়কে উপভোগ করছেন, তার থেকে সবার এবং প্রচার মাধ্যমের মনোযোগ আকর্ষণ করার এক বেদনাদায়ক প্রচেষ্টা।
@দিমা_খাতিব একজন সুপরিচিত সাংবাদিক এবং তিনি আরব বিপ্লব এবং ইয়েমেনের প্রচণ্ড সমর্থক। তিনি টুইট করেছেন:

যখন একজন স্বৈরশাসক, তিনটি বিপ্লবের জননী, ৩২ বছরের এক সম্মানিত সাহসী নারীর প্রতি ঈর্ষাপরায়ণ হয়ে উঠেন…তখন তার কাছ থেকে আর কিছুই আশা করা যায় না। #ইয়াল্লাসালেহ#ইয়েমেন

@টোটা৭৭০ টুইট করেছে:

আমি #সালেহকে বিশ্বাস করি না। সে এক মিথ্যাবাদী। সে সবার মনোযোগ আকর্ষণ করতে চায়, কারণ গতকাল সে #তাওয়াক্কল কারমানের প্রতি ঈর্ষাপরায়ণ হয়েছিল, যে কিনা #নোবেল পুরস্কার লাভ করেছে। 😛

সালেহ-এর ভাষণের ব্যাপারে তাওয়াক্কল কারমানের প্রতিক্রিয়া, বিক্ষোভকারীরা এই ভাষণের ব্যাপারে যা অনুভব করে তার প্রতিফলন, @নাসেরমাওয়েরি তা টুইট করেছে:

#তাওয়াক্কলকারমান: আমি #সালেহকে বলতে চাই যে, বিপ্লব জয় লাভ করতে যাচ্ছে এবং সে জিতবেই, ইয়েমেন সব সময় মুক্ত হয়ে থাকবে‌ যেমনটা সে সবসময় ছিল। #ইয়েমেন

এই পোস্টটি ইয়েমেন বিক্ষোভ-২০১১ সংক্রান্ত আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .