বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

বাহরাইনঃ গুলিতে কিশোর বিক্ষোভকারী নিহত

এই প্রবন্ধটি বাহরাইন বিক্ষোভ ২০১১ এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

বাহরাইনে তখন আবার বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে যখন একদল ক্ষুব্ধ এবং শোকার্ত নাগরিক ১৬ বছর বয়স্ক আহমেদ আল কাত্তানকে দাফন করে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের ভাষায় সে একটি শর্টগানের গুলিতে মারা গেছে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় খুব কম সময় বিক্ষোভকারীদের সম্বন্ধে সত্য কথা বলে থাকে:

@মোই_বাহরাইন: সরকারি আইনজীবীর দপ্তর থেকে প্রাপ্ত রিপোর্ট অনুসারে আহমেদ জাবের একটি বন্দুকের গুলিতে আহত হয়ে মৃত্যু বরণ করেছে।

@মোই_বাহরাইন: আহমেদ জাবেরের মৃত্যুর ঘটনায় স্বরাস্ট্র মন্ত্রণালয় দ্রুত এক তদন্তের নির্দেশ দেয়।

এর বিপরীতে, ২০১১ এর ফ্রেব্রুয়ারি গণজাগরণের ঘটনায় অজস্র সাজানো সংবাদ প্রকাশ করেছে যে পত্রিকা, সেই বাহরাইন নিউজ এজেন্সি এই কিশোরের মৃত্যুর ঘটনার ভিন্ন কারণ বর্ণনা করেছে:

@বিএনএ_ইএন: স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বলেছে আহমেদ আল যাবের মারা গেছে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়েhttp://tinyurl.com/3cxrub4

বৃটিশ ব্লগার মার্ক ওয়েন জোনস (@মার্কওয়েনজোনস) আল কাত্তানীর মৃত্যুর বিষয়ে বাহরাইনি প্রচার মাধ্যমের সংবাদের ব্যাপারে টুইট করেছে:

@মার্কওয়েনজোনস:বাহরাইনের কোন ইংরেজী দৈনিক আহমেদ জাবের আল কাত্তানির মৃত্যুর ব্যাপারে কোন সংবাদ প্রকাশ করেনি, যদিও স্টিভ জবসের মৃত্যুর ব্যাপারে দুই পৃষ্টার সংবাদ ফিচার ছাপা হয়েছে।

বিরোধী আল ওয়েফাক দলের আলি সালমান (@ওয়ফাকজিএস) [আরবী ভাষায়] আল কাত্তানির মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করছে, সে বলছে:

شعب البحرين يزف أحمد القطان شهيدا اخر على طريق الحرية والديموقراطية اللهم تقبل منا هذا القربا

@ওয়ফাকজিএস: বাহরাইনের জনতা আহমেদ আল কাত্তানিকে উপহার দিল। স্বাধীনতা এবং গণতন্ত্রের পথে আরেক শহীদ। আমরা করুণাময়ের কাছে প্রার্থনা করছি যেন তিনি এই আত্মত্যাগ গ্রহণ করেন।

বাহরাইনের সবচেয়ে সক্রিয় টুইটার ব্যবহারকারী মোহাম্মদ আসোর (@মোহাম্মদআসোর) এই বিষয়ে মন্তব্য করে টুইট করেছেন :

@মোহাম্মদআসোর: আহমেদ শামস ১৫ বছর, মোহাম্মদ ফারহান ৬ বছর, আল আল সেইখ ১৪ বছর, কাল আল কাত্তানি ১৬ বছর, এরা সব বাহরাইনের শিশু শহীদ।

রুলা আল সাফফার (@আলসাফারুলা) সালমানিয়া মেডিকেল কমপ্লেক্স-এর নার্সদের প্রধান, তাকে আহত বিক্ষোভকারীদের চিকিৎসা করার দায়ে ১৫ বছরের কারাদণ্ড প্রদান করা হয়েছে। তিনি এই কিশোর শহীদদের ব্যাপারে টুইট করেছেন, তিনি বলেছেন :

@আলসাফারুলা: যদি আমাদের সরকারী হাসপাতালগুলো নিরাপদ হত এবং সেখানে আসল ওষুধ পাওয়া যেত তাহলে হয়ত আহমেদকে বাঁচানো যেত! আমার হৃদয়ে রক্তক্ষরণ হচ্ছে!

বাহরাইন-এর টুইটার ব্যবহারকারী (@বোমুহসিন), আহমেদের মৃত্যু সনদপত্রের কপি টুইট করেছে যেখানে বন্দুকের গুলিতে সৃষ্ট আঘাতকে তার মৃত্যুর কারণ হিসেব উল্লেখ করা হয়েছে:

Ahmed Al-Qattan's death certificate

আহমেদ আল কাত্তানির মৃত্যুর সনদপত্র

এই ভিডিওতে [সতর্কতা: গ্রাফিক্স বা পীড়াদায়ক ভিডিও], যে সব বিক্ষোভকারীরা শেষ মুহুর্তে আহমেদের সাথে ছিল তাদের দেখা যাচ্ছে। এতে দেখা যাচ্ছে একদল তরুণ ব্যক্তি একটা দেহের চারপাশ ঘিরে আছে। তারা সেই ব্যক্তির পালস এবং উক্ত দেহে জীবন আছে কিনা তা পরীক্ষা করে দেখছে। চিকিত্সা বিষয়ক সাহায্য আসার আগে একটা বাসায় তারা এই কর্মকাণ্ড গুলো করছিল। এই মুহুর্তে বাহরাইনে পুলিশের গুলিতে আহত নাগরিকরা চিকিৎসার জন্য হাসপাতলে যেতে ভয় পায় কারণ তাদের আশঙ্কা থাকে যে সেখানে গেলে পুলিশ তাদের গ্রেফতার করতে পারে।

বাহরাইনের সাংবাদিক আব্বাস বু সাফাওয়ান টুইট করেছেন:

@আব্বাসবুসাফওয়ান:সকলের জানা উচিত যে বাহরাইনে আহত বিক্ষোভকারী যদি চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে যায়, তাহলে সেখানে তাদের গ্রেফতার করার শঙ্কা থেকে যায়। #ইউএসএ #ইইউ# ইউকে#আরবস্প্রিং

নিঃসন্দেহে, আল কাত্তানকে স্বাভাবিক ভাবে দাফন করা হয়নি। বাহরাইনের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার বাহরাইনি তার দাফন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়। যার ফলে সে অনুষ্ঠানে পুলিশের সাথে তাদের সংঘর্ষের বেঁধে যায়।

@জিহানকাজরোমী: আহমেদ আল কাত্তানি নামক ১৬ বছরের শহীদের মৃত্যুতে হাজার হাজার বাহরাইনি নাগরিক যোগ দেয়।

আরেকজন বাহরাইনি (@লাভফরবাহরাইন) একটি ভিডিও পোস্ট করেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে যে দাঙ্গা পুলিশের এক গাড়ী বিক্ষোভে অংশ নিতে শোভাযাত্রা কারীদের দিকে ধেয়ে যাবার চেষ্টা করছে। :

@লাভফরবাহরাইন: পুলিশ শহীদ আহমেদ কাত্তানির দাফন অনুষ্ঠানে আসা শোভাযাত্রা কারীদের দিকে ধেয়ে যাবার চেষ্টা করেছে

এখানে আলা কাত্তানির দাফন অনুষ্ঠানের এক ভিডিও যেখানে দেখা যাচ্ছে যে সেটি এক পর্যায়ে বিক্ষোভে পরিণত হয় যেখানে লোকজন শাসকদের বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে থাকে। :

সারা সন্ধ্যায় বেশ কয়েক জনের আহত হবার ঘটনা ঘটে।
এই প্রবন্ধটি বাহরাইন বিক্ষোভ ২০১১ এর উপর করা আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .