বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আলজেরিয়াঃ ফুটবল খেলার মাঠ, ভিন্নমত প্রকাশের এক নুতন ক্ষেত্র

নিজেদের কণ্ঠস্বর তুলে ধরার জন্য আলজেরীয় নাগরিকরা নতুন উপায় আবিষ্কার করেছে। ফুটবল খেলার দর্শকরা মাঠে রাজনৈতিক দৃষ্টিভঙ্গি প্রদর্শনের সুযোগ গ্রহণ করেছে। আলজেরিয়া হচ্ছে সেই রাষ্ট্র যা এখন পর্যন্ত তথাকথিত আরব বিপ্লবের বসন্তের ছায়া থেকে নিজেকে আড়াল করে রাখতে সক্ষম হয়েছে।

টুইটারে, আলজেরীয় টুইটার ব্যবহারকারী বাকী ৭আওয়ার এই নতুন ধারার প্রতি আমাদের মনোযোগ আকর্ষণ করছে।

@৭আওয়ার: #আলজেরিয়ায় এক অস্বাভাবিক ঘটনাঃ ফুটবল সমর্থকরা স্টেডিয়ামের ভেতরে রাজনৈতিক স্লোগান দিচ্ছে, ‘শাসকের বোমা বিস্ফোরণ ঘটায়, আর দোষ দেয় আল কায়েদার’। http://ow.ly/6DIjx।

এই ভিডিও, যা পোস্ট করেছে ইজিপ্টকিং১, সেটি আমাদের প্রদর্শন করছে, একদল প্রাণবন্ত জনতা ড্রামের তালে তালে গান গাইছে:

আলজেরীয় বা দরিজা ভাষায় গাওয়া এই গানের কথাগুলো হচ্ছেঃ

““[আলজেরীয় রাষ্ট্রপতি আবদুল আজিজ ) বুতাফ্লিকা আরো এক দফা রাষ্ট্রপতি পদে থাকতে চায়, আর জেরহোউনি [ প্রাক্তন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী] তা নিশ্চিত করার জন্য সবকিছু করছে। এর মধ্যে রয়েছে বোমা হামলার নাটক সাজানো এবং তারপর এর জন্য তারা আল কায়েদাকে দোষারোপ করছে”।

৭আওয়ার, আমাদের আরেকটি লিঙ্ক প্রদর্শন করছে, যেখানে দর্শকরা আলজেরিয়ার শ্রেণী সংগ্রাম; ধনী এবং দরিদ্রের মধ্যে যে সংঘাত, সেই বিষয়ে মনোযোগ আকর্ষণ করেছে।

@৭আওয়ার: # আলজেরিয়া: ফুটবল মাঠে দর্শকরা আরেকটি বিষয়ে রাজনৈতিক স্লোগান দিচ্ছে, তাদের স্লোগানের বিষয় হচ্ছে সুবিধা বঞ্চিত বনাম সুবিধা ভোগী শ্রেণীর সংগ্রাম।http://ow.ly/6DJtq।

ভিডিওটি এখানে রয়েছে। ইউটিউবে এটি আপলোড করেছে সাইমিরাশাদি:

http://www.youtube.com/watch?v=fI2u-VFgJHc

তবে মালিকা স্লিমানির মতে, রাজনৈতিক মত প্রকাশের এই ক্ষেত্র একেবারে নতুন কিছু নয়।

@তানিয়াস্লিমানি: @জাস্টআমিরা; স্মরণ করতে পারি, ফেব্রুয়ারী/ মার্চে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার সময় তাদের আমি “লিবিয়া” বলে স্লোগান দিতে দেখেছি।

যদিও ফেব্রুয়ারি মাস থেকে বিক্ষোভ শুরু হয়েছে, তারপরেও আলজেরিয়া, আরব বিপ্লবের বসন্তের পূর্ণ মাত্রায় বিকশিত হবার সময়েও নিজেকে এর থেকে আড়াল করে রাখতে সক্ষম হয়েছে। দেশটির ফুটবল খেলাগুলো রাজনৈতিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক সমস্যাকে তুলে ধরার জন্য একটি ক্ষেত্র হতে পারে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .