বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভিডিও: গৃহহীন, কিন্তু স্বরহীন নয়

কলম্বিয়া, কানাডা, যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্রে আমাদের বেশ কিছু ভিন্ন ভিন্ন উদ্যোগ রয়েছে যার উদ্দেশ্য হচ্ছে সেই সমস্ত ব্যক্তিদের দুর্দশাকে সামনে নিয়ে আসা, যাদের কথা দ্বিতীয়বার ভুলে যাওয়া হয়েছে; শিশু, আদিবাসী, অভিবাসী, এবং লিঙ্গ পরিবর্তনকারী সম্প্রদায়ের দুর্দশার কথা।

কলম্বিয়ার ভিডিওগ্রাফার জোসে আলেজান্দ্রো গোনজালেজ বছরের পর বছর ধরে দেশটির গৃহহীন মানুষদের জীবন ভিডিওতে ধারন এবং তা প্রদর্শন করে আসছে। গত বছর ইনসাইডার প্রজেক্টের মাধ্যমে ওই সমস্ত ভিডিওর অনেকগুলো দুটি লম্বা চলচ্চিত্র, সত্য এবং গৃহ-এর মাধ্যমে প্রদর্শিত হয়।

হোমলেস$$ ছবিববের সিসিবাই-এর মাধ্যমে ব্যবহার করা হয়েছে

দি ট্রুথ, কলম্বিয়ার বোগোটার বেশ কয়েকজন গৃহহীনের অনুসরণ করেছে। যারা তাদের জীবন, রাজনৈতিক, সামাজিক এবং অর্থনৈতিক প্রেক্ষাপটে গৃহহীন হয়ে থাকার মত বিষয় নিয়ে কথা বলেছে। ওই সমস্ত সাক্ষাৎকারের মধ্যে ১৫ বছরের একজনের সাক্ষাৎকারের কথা রয়েছে, যে তার পরিবারের সাথে বিচ্ছিন্ন হয়ে যাওয়া, নেশায় আসক্ত হয়ে পড়া, মাদকের জন্য শহরের কুখ্যাত এলাকায় প্রবেশ করা, এবং আবার “ভালো হয়ে যাওয়া” এবং শহরের অন্য প্রান্তে অবস্থিত বাসায় গিয়ে বড়দিন উদযাপনের ইচ্ছের কথা প্রকাশ করেছে:

দি হাউস, আমাদের এক গৃহহীন ব্যক্তির বাসগৃহে নিয়ে যাচ্ছেঃ এটি একটি ম্যানহোল এর ঢাকনা-এর নীচে এবং বোগাটার কেন্দ্রীয় এলাকার এক সড়কের নীচে ভূগর্ভস্থ বাতিল মালামাল রাখার কক্ষে অবস্থিত। এখানে দারিও আকোস্টার বিছানা, বই, রেডিও, ব্যাটারি চালিত বাতি এবং তার কল্পিত কুকুরের বাসবাস।

মার্ক, ৯০ এর দশকে গৃহহীন হয়ে পড়ে, সে লস এঞ্জেলসের হলিউডের এক সড়কে বাস করে। সে মাদকে আসক্ত ছিল এবং এখন পর্যটকদের কাছে তার ইগুয়ানার ছবি বিক্রি করে। বর্তমানে সে ইনভিজিবল পিপলস প্রজেক্টকে পরিচালিত করে, এর জন্য সে যুক্তরাষ্ট্র এবং কানাডার বিভিন্ন জায়গায় গিয়ে গৃহহীনদের নিজেদের কাহিনী এবং কণ্ঠস্বর তুলে ধরার আহ্বান জনান।

কানাডায় এক ভ্রমণের সময় তিনি আদিবাসী এবং গৃহহীনতার মধ্যে এক সর্ম্পক খেয়াল করেন, এবং তিনি এরপর কেবল তাদের কাহিনী সংগ্রহ করার চেষ্টা শুরু করলেন না, বা কেবল দেখালেন না যে, যখন তারা তাদের সংস্কৃতিক সংবেদনশীলতা বজায় রাখার চেষ্টা করে তখন তারা অনন্য এক পরিস্থিতির মুখোমুখি হয়, সেই সাথে তিনি তাদের পরিস্থিতি পরিবর্তনে এক আশার সঞ্চার করলেন।

নীচের সাক্ষাৎকারটি ডেভ ওয়ার্ডের। সে এডমন্ডের, হোমওয়ার্ড ট্রাষ্টের ডিরেক্টর। এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা। ডেভিড, আদিবাসী সংস্কৃতি এবং গৃহহীনদের সমস্যা সমাধানের বিষয়ে কথা বলেছে। আমার কাছেও মনে হয় সবচেয়ে বড় বিষয় হচ্ছে ‘শোনা’। আমাদের উচিত তাদের সংস্কৃতির কথা শোনা এবং সমাধানের সূত্র আবিষ্কার করা, আর তা প্রয়োগ করার ক্ষেত্রে আমাদের আদিবাসী জনতাকে যুক্ত করা উচিত।

অন্যতম এক হৃদয় বিদারক সাক্ষাৎকার হচ্ছে আলমার। সে উইনিপেগ এর এক গৃহহীন নানী, যে কিনা কলেজে ভর্তি হয়েছে এই আশায়, শিক্ষা তার ক্ষমতায়নে এবং তার নাতনিকে শিশু রক্ষা বিভাগের কাছ থেকে ফিরে পাবার অধিকার বৃদ্ধিতে সাহায্য করবে, কারণ তখন সে তারা নাতনিকে আরো উন্নত এক জীবন প্রদানে সক্ষম হবে।

ইউটিউবের ইনভিজিবল পিপলস চ্যানেলে এ রকম আরো অনেক ভিডিও রয়েছে এবং আপনারা @ইনভিজিবল পিপলসের মাধ্যমে টুইটারে মার্ককে অনুসরণ করতে পারেন।

ইংল্যান্ডের ব্রাডফোর্ড-এ, হোপ হাউজিং, সেই সমস্ত গৃহহীন নাগরিকদের জন্য সুবিধা প্রদান করে, যারা সুবিধা লাভের যোগ্য বলে বিবেচিত হয় না, এদের দেশীর ভাগ এই সুবিধা পায় না কারণ তারা অভিবাসী এবং যাদের কাছে কোন কাগজপত্র নেই এবং তারা বেকার। আর এ কারণে অবৈধ বসতি গড়ে অথবা টিকে থাকার জন্য রাস্তায় বসবাস করে।

তাদের ভিডিও, দি নট সো প্রমিজড ল্যান্ড-এ, তারা অর্থনৈতিক কারণে যে সমস্ত নাগরিক অভিবাসনের জন্য পাড়ি জমাচ্ছে, তাদের সমস্যার উপর মনোযোগ প্রদান করেছে। পূর্ব ইউরোপীয় দেশসমূহের যে সমস্ত নাগরিকরা কাজের সন্ধানে যুক্তরাজ্যে পাড়ি জমিয়েছে, তারা আবিষ্কার করেছে যে, তারা যতটা ভেবেছিল পরিস্থিতি তার চেয়ে কঠিন হয়ে পড়ছে। হোপ হাউজিং তাদের দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে, যাতে তাদের আর রাস্তায় থাকতে না হয় এবং যুক্তরাজ্যে তারা যে ‘কাজের’ সন্ধানে এসেছিল, তার যেন তা খুঁজে পায়।

ডায়মন্ড স্টাইল গর্বের সাথে নিজেকে ইন্ডিয়ানা অঙ্গরাজ্যের ইন্ডিয়ানাপোলিসের লিঙ্গ পরিবর্তনকারী নিগ্রো (কালার) নারী হিসেবে বর্ণনা করেছেন। তবে সম্প্রতি সে টেক্সাসের হিউস্টনে বাস করছে। সে তার ইউটিউব চ্যানেলে লিঙ্গ, বর্ণ এবং যৌনতার মত অনেক বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছে।

এই ভিডিওতে, সে তার গৃহহীন অবস্থায় থাকার অভিজ্ঞতার কথা জানাচ্ছে। সে সময় সে আবিষ্কার করে যে একজন এইচআইভি মুক্ত লিঙ্গ পরিবর্তন কারী হিসেবে, নারী, পুরুষ কিংবা লিঙ্গান্তর কারী এইচআইভি আক্রান্ত ব্যক্তিদের জন্য নির্মিত আশ্রয়স্থলে তার আশ্রয় নেবার উপায় নেই। কাজেই এমন কেউ ছিল না, যে তার জন্য হাত বাড়িয়ে দেবে এবং তাকে তার পায়ের উপর দাঁড়াতে সাহায্য করবে, এই সিস্টেম পুরোপুরিভাবে তাকে পৃষ্ঠপ্রদর্শন করেছিল:

1 টি মন্তব্য

  • পিংব্যাক: Video: senza tetto ma non senza voce

    […] · ভিডিও: গৃহহীন, কিন্তু স্বরহীন নয় […]

আলোচনায় যোগ দিন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .