বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আরব বিশ্ব: ১১ সেপ্টেম্বরের ঘটনাকে স্মরণ করা

এই প্রবন্ধটি গ্লোবাল ভয়েসেস-এর ৯/১১ আক্রমণের পর্যালোচনা সম্বন্ধে আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

সারা আরব বিশ্বের টুইটার ব্যবহারকারীরা ১১ সেপ্টেম্বরের ঘটনায় নিহত ৩০০০ নাগরিকের স্মরণে শ্রদ্ধা নিবেদন করেছে। এখন থেকে ১০ বছর আগে আল কায়েদার এক সন্ত্রাসী হামলায় এই ভয়াবহ ঘটনা ঘটে। এতে সন্ত্রাসীরা চারটি জেট বিমানকে যুক্তরাষ্ট্রের কিছু ভবনের দিকে পরিচালিত করে তা ধ্বংস করে ফেলে।

সৌদি আরবের কার্টুনিষ্ট মালেক নেজার বলছে ১১ সেপ্টেম্বরে যে ঘটনা ঘটেছিল, তা ছিল ঘৃণ্য এক অপরাধ, তা সে যেই করে থাকুক না কেন।

عموماً، ١١ سبتمبر جريمة بشعه، سواء قام به مسلمين أو يهود أو حتى مجموعة كائنات فضائية
: @নেজার: সেপ্টেম্বর ১১- এর ঘটনা ছিল এক ঘৃণ্য অপরাধ। তা সে মুসলমান, খ্রিষ্টান, ইহুদী অথবা, অপরিচিত কেউ করে থাকুক না কেন।
9-11 Tribute Lights Photowalk

৯-১১ -এর আলোক শ্রদ্ধাঞ্জলি, নিউ ইয়র্ক ২০১০ © ফ্লিকারের কামাউ আকাবুয়েজে (অনুমতিক্রমে প্রকাশিত)

সংযুক্ত আরব আমিরাতে দুবাই থেকে, এবাস্ট্রুসেআরিফ উল্লেখ করেছে :

@এবাস্ট্রুসেআরিফ: আজকের দিনটি হচ্ছে এমন এক ঘটনার দিন, অনেকে চায়নি যে এই ঘটনা ঘটুক…তারপরেও তা ঘটেছে।#স্ক্রিমস্টিলরিসনেট#৯১১

বাহরাইন থেকে ব্লগার মোহাম্মদ আল মাসকাতি ওরফে ইমুডজ, টুইট করেছে:

@ইমুডজ:আমার চিন্তা এবং প্রার্থনা #৯১১ নামক ভায়াবহ সন্ত্রাসের শিকার আমেরিকান, আফগান এবং ইরাকিদের জন্য…প্রার্থনা করছি যেন তাদের আত্মা শান্তিতে চির নিদ্রা যাক..

তিনি এর সাথে যোগ করেন :

@ইমুডজঃ #৯১১ পরবর্তী সময়ের ঘটনাবলিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র যে ভাবে নিয়ন্ত্রণ করেছে তার থেকে প্রচুর শিক্ষা গ্রহণ করার রয়েছে#লুলু#বাহরাইন

১১ সেপ্টেম্বর-এর ঘটনায় এবং একই সাথে ইরাক এবং আফগানিস্তানে যারা নিহত হয়েছেন তাদের মৃত্যুর জন্য সৌদি আরবের দন্ত চিকিৎসক নৌফ আবদুল রেহমান, সৌদি আরবের সন্ত্রাসী ওসামা বিন লাদেনকে অভিযুক্ত করেছেন- এই ঘটনার পর যুক্তরাষ্ট্র, সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যুদ্ধের অংশ হিসেবে এই দুটি দেশে অভিযান চালায়।

ভদ্রমহিলা টুইট করেছেন:

ضحايا العراق و افغانستان انا احمل بن لادن – لا رحمه الله – دمائهم و دموع أهاليهم وليس ضحايا امريكا فقط #sept11
@ডঃ_নৌফ: আমি এর জন্য ওসামা বিন লাদেনকে অভিযুক্ত করছি। তার আত্মা যেন শান্তি না পায়, এবং কেবলমাত্র যুক্তরাষ্ট্রের ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের জন্য নয়, তার সাথে ইরাক এবং আফগানিস্তানে যে সব নাগরিকদের রক্ত ঝরছে এবং তাদের পরিবারে কান্নার জন্য তাকে আমি অভিযুক্ত করছি।

সৌদি আরবের নাগরিক সাউদ আল শেখ-এর কাছে এই ঘটনার স্মৃতি অন্য সব বেদনাদায়ক ঘটনার কথা মনে করিয়ে দেয়, তিনি টুইট করেছেন:

@সামআলশেখ: আপনারা ৯/১১ নামক ঘটনার কথা স্মরণ করেন। কিন্তু বসনিয়ায় যে ৮০০০ জনের বেশী মুসলমান নিহত হয়েছে তাদের কথা স্মরণ করেন না।

@সামাআলসেখ: আপনারা ৯/১১ নামক ঘটনার কথা স্মরণ করেন। কিন্তু ১৯৪৮ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্যালেস্টাইনে যে প্রায় ২০ লক্ষ নাগরিক নিহত হয়েছে তাদের কথা স্মরণ করেন না।

সৌদি আরবের রিয়াদ থেকে, আহমেদ অটাব একই ধরনের এক মনোভাব প্রদান করেছেন:

@আহমেদঅটাব: যুক্তরাষ্ট্রে ৯/১১ (একটি) নামক ঘটনা ঘটেছে আর প্যালেস্টাইন, ইরাক এবং আফগানিস্তানে ২৪/৭ (প্রতিদিন) সময় ধরে একই ঘটনা ঘটছে।

এবং সৌদি আরবের নোরা আল শেখ, এর সাথে যোগ করেছে:

@নিয়ার্টঃ আমি দুঃখিত যে ৯/১১ নামক ঘটনায় কিছু মানুষ মারা গেছে কিন্তু মধ্যপ্রাচ্যে এটা প্রতিদিনই ঘটছে, এখানে প্রতিদিন নাগরিকরা মারা যাচ্ছে…

তারই স্বদেশী সৌদি নাগরিক হানিন বাইতালমাল কিছু মানুষের বিবেচনার অভাবের বিষয়ে আবেদন করেছে, ভদ্রমহিলা লিখেছে:

@হানেনবা: আমি ঠিক বুঝতে পারি না কেন লোকজন বলে যে ৯/১১ ঘটনা নিয়ে বাড়াবাড়ি করা হচ্ছে। ঈশ্বরের দোহাই যেন আপনার হৃদয়ে যেন কিছু ক্ষমা সুলভ গুণ থাকে !

সর্বশেষ কিন্তু অন্যগুলোর মত সমান গুরুত্বপূর্ণ মন্তব্য, দুবাই-ভিত্তিক সংবাদ সাংবাদিক টম গারা পর্যবেক্ষন করেছেন:

@টমগারাঃ এটা প্রায় দশ বছর, নতুন একটা ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার করতে প্রায় দশ বছর লেগেছে। মূলত দুবাই, দুবাইকে নির্মাণ করছে।

এই প্রবন্ধটি গ্লোবাল ভয়েসেস-এর ৯/১১ আক্রমনের পর্যালোচনা সম্বন্ধে আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .