বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

লিবিয়া: গাদ্দাফির ডান হাত আব্দেসসালেম জালুদের ইতালিতে পলায়ন

এ পোস্টটি আমাদের বিশেষ কাভারেজ লিবিয়া জাগরণ ২০১১-এর অংশ

লিবিয়ায় বিপ্লবীদের একের পর এক শহর দখলের খবর বিশ্বজুড়ে শান্তি বয়ে এনেছে। বড় খবরটি ছিল লিবিয়ার প্রাক্তন দ্বিতীয় ব্যক্তি আব্দেসসালেম জালুদ মাল্টার একটি বিমানে চড়ে তিউনিসিয়া হয়ে ইতালির উদ্দেশে দেশত্যাগ করেছেন। তিউনিসিয়ার একজন জেষ্ঠ্য সরকারি কর্মকর্তা বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। জালুদের দেশত্যাগের ঘটনাকে অনেকে গাদ্দাফি শাসনামলের শেষ চিহ্ন বলে দেখছেন। যদিও সামাজিক প্রচার মাধ্যমগুলোতে অনেকে একথা বলতে ভোলেন নি যে জালুদ তার শাসনামলের একজন অপরাধী এবং তাকে বিচারের মুখোমুখি করা উচিত। অনেকে আবার জালুদের আনুগত্য ত্যাগকে অভিনন্দন জানান এবং বলেন যে জালুদ এর আগে গাদ্দাফির বিরুদ্ধে অবস্থান নেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন। টুইটারের কিছু প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হল।

তিউনিসে লিবিয়রা 'শেষের শুরু' উদযাপন করছে

তিউনিসে লিবিয়রা ‘শেষের শুরু’ উদযাপন করছে। ছবি- ঘাইয়ার খালেদ, স্বত্ব ডেমোটিক্স (২২/০৮/২০১১)

ফিলিস্তিনীয় টুইটার ব্যবহারকারী নুর (@নুরজ৪৮) লিখেন:

@নুরজ৪৮:সত্যি# জালুদ? এখন # গাদ্দাফি জনগণের সাথে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে? গত ৪২ বছর ধরে জনগণের প্রতি বিশ্বস্ততা আপনার কোথায় ছিল? জাহান্নামে যাও।

আসমা মাজারিয়াফ (@লিবিয়ানবেন্টব্লাদি) সন্দেহ প্রকাশ করেন যে ইতালি থেকে জালুদ গাদ্দাফির পক্ষে কাজ করবেন:

@লিবিয়ানবেন্টব্লাদি: আনুগত্য ত্যাগের ২৪ ঘণ্টারও কম সময় পর জালুদ এরই মধ্যে লিবিয়ার বাইরে। এখানে থাকা কি তার জন্য অনিরাপদ ছিল? বাইরে থেকে কার্যক্রম পরিচালনার জন্য তিনি কি খুবই গুরুত্বপূর্ণ?

ফাদওয়া এল-গালাল(@ দোউউ) জালুদ ও লিবিয়ার জাতীয় ক্রান্তিকালীন কাউন্সিলের মধ্যে একটা তুলনা করেছেন:

@দোউউ: ১৯৮৭ সালে জালুদ গাদ্দাফির আনুগত্য ত্যাগ করেছে যেখানে এনটিসির অনেক সদস্যই এ বছর আনুগত্য ত্যাগ করেছে। তারা যদি বীর হতে পারে তবে আমি মনে করি সেও একজন বীর!

টুইটার ব্যবহারকারী হ্যানকার (@হ্যান্কারটন) মনে করেন জালুদ আনুগত্য ত্যাগ বড্ড দেরিতে করেছেন:

@হ্যান্কারটন: #জালুদ একটু দেরি করে ফেলেছেন এখন কি এটা ‘আমাদের’ বিপ্লব?! আপনি এখন অপ্রয়োজনীয়। আপনাকেও বিচারের সম্মুখীন হতে হবে।

মায়মুনা আগলিউ (@এফকুকরুনা) জালুদের বিষয়ে একাধিক টুইট করেন এবং তথ্য দেন:

@এফকুকরুনা: আসলে কয়েক বছর ধরে জালুদ গৃহবন্দী ছিলেন।

আল-জাজিরার সঙ্গে জালুদের সাক্ষাতকার এবং তার দৃষ্টিভঙ্গীর বিষয়ে অন্যান্য টুইটার ব্যবহারকারীরা মন্তব্য করেন:

@লিবিয়া_হোর্রা: হায় ঈশ্বর আপনারা কি দেখেছেন #জালুদ কি করলো.. সে যা বলতে চেয়েছিল তা বলার পর মাইক বন্ধ করে দিল, গাধা সবসময় গাধাই থাকে

লিবিয়া ৭ ওররা (@লিবিয়া_হোর্রা) সাক্ষাতকার বিষয়ে অন্য একটি মন্তব্য করেন:

@লিবিয়া_হোর্রা: জালুদ বলেছেন পুরো ত্রিপোলীর এক হওয়া উচিত, ভালো তাহলে আপনি পালালেন কেন আপনার উচিত ছিল ত্রিপোলীতে থেকে লড়াই চালিয়ে যাওয়া।

মুহাম মার্ক সুগিয়োনো (@লোকালটারমিন) জালুদের বিষয়ে সরস মন্তব্য টুইট করেছেন:

@লোকালটারমিন: লিবিয়াতে রাজনৈতিক জীবন শুরু করতে চাইলে পাগলাটে হওয়ার চেষ্টা করুন। আমাদের পরবর্তী রাষ্ট্রপতির গোলাপী টুটু পরিধান করা উচিত আর নাচের সময় চীৎকার করা উচিত।

হেনরি স্মিথ (@টিএইচ_স্মিথ) জালুদের আনুগত্য ত্যাগের বিষয়টিকে লিবীয় বিপ্লবের মূল বলে মনে করেন:

@টিএইচ_স্মিথ: জালুদের আনুগত্য ত্যাগের বিষয়টি উপরে বলা হয়েছে।দমনকারী শক্তির আনুগত্য ত্যাগই হল মূল চাবিকাঠি।

আলা (@ইকাই) নামের আরেকজন টুইটার ব্যবহারকারীও জালুদের স্বপক্ষ ত্যাগের বিষয়টিকে ইতিবাচক ইংগিত বলে মনে করেন এবং এটা অন্য একটা পর্যায়ে নিয়ে যাবে বলে মনে করেন:

@ইকাই:যে যাই মনে করুক আমার মতে সে আন্তরিক অনেকদিন ধরে সে নিষ্ক্রিয় ছিল এবং অনেকদিন ধরেই সে বলতে চেয়েছিল।

এ পোস্টটি আমাদের বিশেষ কাভারেজ লিবিয়া জাগরণ ২০১১-এর অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .