বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

জাম্বিয়াঃ বিখ্যাত ফুটবল ব্যক্তিত্বের ভুয়া ফেসবুক একাউন্ট

কালুশাহ বাওয়ালা সম্ভবত জাম্বিয়ার সবচেয়ে পরিচিত মুখের মধ্যে অন্যতম, কারণ ফুটবলের মাধ্যমে সে দীর্ঘ সময় ধরে দেশের সেবা করে আসছে। সে ৩৫ বছর ধরে নানা ভাবে দেশটির ফুটবল অঙ্গনে কাজ করে যাচ্ছে। তবে যখন ফেসবুকের বিষয়টি সামনে চলে আসে তখন বোঝা মুশকিল কোন নামের একাউন্ট সঠিক এবং কোনটি ভুয়া।

কালুশা বাওয়ালার ছবি যা ভুয়া ফেসবুক একাউন্টে দৃশ্যমান হয়েছে।

বর্তমানে কালুশাহ জাম্বিয়া ফুটবল অ্যাসোসিয়েশনের (ফাজ) এর সভাপতি। এটি এমন এক পদ যা তাকে আফ্রিকার ফুটবল সংস্থা (সিএএফ) এবং আন্তর্জাতিক ফুটবল সংস্থার (ফিফা) আলোচনা সভায় বসার সুযোগ করে দিয়েছে,।

একজন ফুটবল খেলোয়াড় হিসেবে কালুশাহ ১৯৮৮ সালে অলিম্পিক-এ খেলার যোগ্যতা লাভের সময় তারকা খচিত ইতালী ফুটবল দলকে ৪-০ গোলে পরাজিত করে এবং সে অনেক বছর ধরে ইউরোপের পেশাদার লীগে ফুটবল খেলে। সে অনেক ফুটবল ম্যাচে জাম্বিয়ার ফুটবল দলকে জেতাতে সাহায্য করেছে। হতাশাজনক বিষয় হচ্ছে জাম্বিয়া কখনো আঞ্চলিক বা আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোন প্রতিযোগিতায় শিরোপা জয়লাভ করতে সক্ষম হয়নি। তবে অনেক খেলায় তারা সেমিফাইনাল বা ফাইনাল খেলায় পরাজিত হয়েছে।
১৯৯৩ সালে কালুশা একটি বিমানে চড়তে ব্যর্থ হয়, উক্ত বিমানে ছিল দেশটির ২২ জন ফুটবল খেলোয়াড় এবং আটজন কর্মকর্তা। তারা বিশ্বকাপের চুড়ান্ত পর্বে উর্ত্তীণ হবার লক্ষ্যে একটি খেলায় অংশ নিতে সেনেগালের উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করেছিল। যারা গ্যাবনের সমুদ্র উপকূলে বিমান দুর্ঘটনায় মারা যায়। এই বেদনাদায়ক ঘটনার পর সে আর কখনো জাতীয় দল থেকে নিজের মুখ ফিরিয়ে নেয়নি বরঞ্চ যদিও উৎসাহজনক নয় কিন্তু তার অংশগ্রহণ জাতীয় দলের অপরিহার্য অংশে পরিণত হয়।

সামাজিক প্রচার মাধ্যম যেমন ফেসবুকের আগমনে অনেক সেলিব্রেটি তাদের ফেসবুক একাউন্ট খুলছে, যখন কালুশাহ-বাওয়ালার নামে একটি একাউন্ট খোলা হয়, তখন তা কারো ভ্রূকুঞ্চন-এর জন্ম দেয়নি। স্বাভাবিকভাবে এই ফেসবুক একাউন্ট অনেক নাগরিকের মনোযোগ আকর্ষণ করে যারা জাম্বিয়ার এই ফুটবলের প্রতীকের বন্ধু হতে আগ্রহী হন এবং দ্রুত দুমাসের মাথায় এই একাউন্টের অনুসারীর সংখ্যা ২,০০০-এ পরিণত হয়।

জেডলিকে এই ঘটনাতে প্রকাশ হয়ে পড়ে :

ফাঁস হয়ে যাওয়া এই ঘটনার মাধ্যমে জানা যাচ্ছে যে এক প্রতারক গত দুই-মাস ধরে জাম্বিয়ার ফুটবল সংস্থার সভাপতি এবং কিংবদন্তির ফুটবলার কালুশাহ বাওয়ালার নামে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে একটি একাউন্ট পরিচালিত করে আসছে। কালুশাহ বাওয়ালা নামের যে একাউন্ট তাতে প্রকৃত কালুশাহ-এর ছবি দেওয়া আছে। এই একাউন্ট খোলার কয়েক সপ্তাহের মধ্যে প্রায় ২০০০ জন ব্যক্তি তার বন্ধু হয়, যারা কোনভাবে তাকে সন্দেহ করেনি। তারা এই প্রতারকের সাথে এই ভেবে ফেসবুকে সম্পর্ক তৈরি করে যে উক্ত ব্যক্তি হচ্ছে ১৯৮৮ সালের আফ্রিকার সেরা ফুটবলার নির্বাচিত হওয়া খেলোয়াড়টি প্রকৃত ফেসবুক একাউন্ট।

এই পাতাটি বর্তমানে আর সক্রিয় নেই। এর স্ট্যাটাস পোস্টে যা লেখা রয়েছে তা পাঠ করুনঃ

“আমাদের জনতা ফুটবল সম্বন্ধে কথা বলছে”, তার খেলাটিকে দূরে সরিয়ে দিচ্ছে, আক্ষরিক অর্থে। দ্রুত এই লেখাটি তাদের চোখে সন্দেহ তৈরি করে যারা কালুশাহ-এর কথা বলার ঢং-এর সাথে পরিচিত। কালু শাহ কখনো আমি, আমাকে অথবা আমার শব্দটি ব্যবহার করে না। তার বদলে সে “আমরা” নামক যৌথ পরিচয় তৈরি করা সর্বনাম ব্যাবহার করে।

নিজস্ব ফেসবুকের পাতার মাধ্যমে ফাজ এক বিবৃতি প্রদান করে। এতে তারা বলে ফেসবুকে “কালুশাহ বাওয়ালার” ফুটবল পাতা জাম্বিয়ার ফুটবল কিংবদন্তির নিজের ফেসবুক একাউন্ট নয়:

ফাজের সভাপতির বিবৃতি; প্রিয় সকলে, দয়া করে জেনে রাখুন যে আমার নিজের কোন ফেসবুক এ্যাকাউন্ট নেই। যার ফলে কালুশাহ বাওয়ালা নামের (আমার ছবি সহ) সকল ফেসবুক একাউন্টের কোনটাই সঠিক নয়। এর কোনটাই আমি নিজে বা আমার কোন প্রতিনিধির দ্বারা আপডেট করা হয় না।

ডোনাল্ড নাজয়াকা যখন জানতে পারলেন যে সে এক প্রতারককে অনুসরণ করছে, তখন সে লেখে:

জনগণ জেগে উঠুন এবং ভূয়া কালুশাহ-এর ফেসবুক একাউন্ট অনুসরণ করা বন্ধ করুন। নিজস্ব ফেসবুক একাউন্ট থাকার কথা কালুশাহ অস্বীকার করেছে।

ফেসবুকের আরেক পর্যবেক্ষক মাইকেল ভিক্টর চিজিকাওয়ায়া বলছে:

এই বিষয়ে প্রায় ৫০টির বেশী মন্তব্য রয়েছে, কিন্তু তথাকথিত কালুশাহ কোন কিছুই বলেনি। “আভান্স ব্রাজিল” এর কাছ থেকে সৃষ্টিশীল এক নির্মাণ। দেখা যাচ্ছে এক সময় যে খেলাটি সে দাপটের সাথে খেলেছে, সে খেলা সম্বন্ধে সে খুব সামান্য জানে। ভুয়া এক ব্যক্তি ( অসৎ)

“আভান্স ব্রাজিল” এর কাছ থেকে সৃষ্টিশীল এক নির্মাণ। দেখা যাচ্ছে এক সময় যে খেলাটি ফাজের প্রকৃত ফেসবুকে (যা কিনা ফাজের ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রবেশ করা যাবে) একাউন্টে মন্তব্য করতে গিয়ে বিশ্বাস না করা ওয়েবস্টার সাবুসালে লিখেছেঃ

আমি আশা করি যে জাম্বিয়ার ফুটবল সংস্থা (ফাজ) আরেক প্রতারক নয়।

বেশ কিছু বিখ্যাত ব্যক্তি যেমন রাষ্ট্রপতি রুফিয়া বান্দা তার নিজের নামে ফেসবুক একাউন্ট খুলেছে। এর ফলে রাষ্ট্রপতি ভবন থেকে এক বিবৃতি জারি করা হয় যে জাম্বিয়ার এই নেতা অবশেষে তার নিজস্ব ফেসবুক এ্যাকাউন্ট খুলেছে। তবে এক বিবৃতিতে রুফিয়া বান্দার নামে অন্য যে সব এ্যাকাউন্ট রয়েছে সে সবের কথা উল্লেখ করা হয়নি।।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .