বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

তুরস্কঃ ইস্তাম্বুলের রাস্তায় সংঘর্ষ ছড়িয়ে পরার প্রেক্ষাপটে জাতিগত উত্তেজনা আরো বৃদ্ধি পেয়েছে

এ মাসের শুরুতে সামরিক বাহিনী এবং কুর্দি বিচ্ছিন্নতাবাদী দল পিকেকে-এর মধ্যে সংর্ষের ঘটনা ঘটে। তাতে উভয় পক্ষ নিজেদের ডজন খানেক ব্যক্তি নিহত হয়েছে বলে দাবী করেছে। এর ফলে তুরস্কে জাতিগত উত্তেজনা ক্রমশ বাড়তে শুরু করেছে। ২১ জুলাই তারিখে ইস্তাম্বুলের জেইতুনবুরনু এলাকায় এক বড় আকারের সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে, যখন উগ্র জাতীয়তাবাদী তুর্কী একটি দল পিকেকেপন্থী বিডিপে দলের অফিস অভিমুখে যাত্রা শুরু করে এবং সেটি আক্রমণের চেষ্টা করে। এর ফলে ঘটনাস্থলে পুলিশ এসে হাজির হয় এবং কয়েক ঘণ্টাব্যাপি সংঘর্ষের পর তারা সেই এলাকা দখল নিতে সমর্থ হয়। সামাজিক প্রচার মাধ্যমে এই ঘটনার পর এই বিষয়ে এবং এর উপর সংবাদ প্রদানে এক বিশেষ ভুমিকা পালন করে, যেমনটা এই সম্মিলিত যাত্রা বা মার্চের সংগঠকরা সামাজিক প্রচার মাধ্যমের মধ্যে দিয়ে নিজেদের সংগঠিত করেছে।

ফেসবুকের একটি পাতা ২১ জুলাই, ৫৮ বুলভার জেইতিনবুরনু-এ অবস্থিত বিডিপি অফিসের দিকে মার্চ করে যাবার জন্য লোকদের একত্রিত করার কাজে ব্যবহার করা হয়েছে। ইউটিউবের একটি ভিডিও প্রদর্শন করছে যে উগ্র জাতীয়তাবাদীরা “শহীদেরা কখনো মারা যায় না!” স্বদেশ কখনো বিভক্ত হয় না! স্লোগান দিতে দিতে জেইতিনবুরনু-এর রাস্তা ধরে এগিয়ে যেতে থাকে। যা শুরুতে এই পাতায় পোস্ট করে হয়েছেঃ

এই বিশেষ ভিডিওটি শ খানেকের মত লাইক এবং মন্তব্য লাভ করেছে। এদের মধ্যে কেউ কেউ বিষয়টিকে সমর্থন করেছে এবং কেউ কেউ এর নিন্দা করেছে।

এই ঘটনার পর ফেসবুকের আরেকটি পাতা সৃষ্টি করা হয়, যার নাম জেইতিনবুরনুমেহমুতচিকলেয়ারি (মানে জেইতিনবুরনু-এর সেনা) এবং একদিনের মধ্যে এটি ৬০০০ লাইক অর্জন করতে সক্ষম হয়। মুস্তাফা কামাল আতাতুর্ক বলেছিলেন, সে ব্যক্তিটি কত সুখী যে বলতে পারে যে আমি এক তুর্কী ( নে মুটলু তুরকুম দিয়েনে ), এই পাতার মন্তব্য বিভাগে অনেকে এই মন্তব্যটি করেছে।

যদিও পরবর্তীতে বেশ কিছু সংবাদপত্র সংবাদ প্রকাশ করে যে উগ্র জাতীয়তাবাদীদের এই শোভাযাত্রা ছিল স্বতঃস্ফুর্ত, কিন্তু যে সমস্ত প্রতক্ষ্যদর্শী এই যাত্রার ভিডিও ধারণ করেছে, সে সব ভিডিও দেখাচ্ছে যে এটা ছিল একটা সংগঠিত যাত্রা, যেখান তুরস্কের বিশাল বিশাল পতাকা বহন করা হয় এবং সঙ্গীত বাজানো হয়। যেমনটা নীচের ভিডিওটি তুলে ধরছে, যা ধারণ করেছে অজানিস্লাইডার :

এছাড়াও, সংঘর্ষের সময় উপস্থিত ইকলাল তুরান এর বর্ণনা করেছে [তুর্কী ভাষায়], ভদ্রমহিলার কাছে এই যাত্রা স্বতঃস্ফুর্ত বলে মনে হয়নিঃ

haberlerde genellikle “bdp'lilere tepki gösteren mahalleli” diyor ama bnm sokaklarda gördüğüm organize olmuş ülkücü bir grup

“সংবাদে তারা সাধারণভাবে বর্ণনা করেছে যে এই [ যাত্রা ছিল] বিডিপির সমর্থকদের প্রতিক্রিয়ায় সৃষ্টি, কিন্তু আমি দেখলাম রাস্তায় উলকুচু [উগ্র জাতীয়তাবাদী দল] সংগঠিত হয়ে এগিয়ে যাচ্ছে”

এছাড়াও সে উল্লেখ করেছে যে [তুর্কী ভাষায়] জেইতিনবুরনু-এর ঘটনা তিন দিন আগে শুরু হয়ে এখনো তা চলছে:

zeytinburnu'ndaki olaylar 3 gün önce bdp'lilerin mahalede çöpleri yakıp evleri taşlaması ile başladı, sonra ülkücüler ayaklandı hala sürüor.

জেইতিনবুরনু-এর ঘটনার শুরু তিনদিন আগে, যখন বিডিপি-এর সমর্থকরা আবর্জনা [ক্যান] জ্বালিয়ে দেয় এবং অনেক বাড়িতে পাথর ছুঁড়ে মারে এবং এর পরে উলকুচু জেগে ওঠে [এবং] এখনো সেই সংঘর্ষ চলছে।

এই দিনের ঘটনার ছবি তুলেছেন ফ্রেড টার্ক, এতে দেখা যাচ্ছে বেশীরভাগ উগ্র জাতীয়তাবাদীদের হাতে লাঠি রয়েছে।

Ultra-nationalist crowd with sticks

লাঠি হাতে উগ্র জাতীয়তাবাদী জনতা, ইস্তাম্বুল, তুরস্ক, ছবি টুইটার ব্যবহারকারী @ফ্রেডটার্ক-এর।

Ultra-nationalist crowd marching, Istanbul, Turkey.

উগ্র জাতীয়তাবাদী জনতা এগিয়ে যাচ্ছে। ইস্তাম্বুল, তুরস্ক। ছবি টুটার ব্যবহারকারী @ফ্রেডটার্ক-এর।

দৃশ্যত জনতা যেখানে জমা হয়েছিল, তারা সেখানকার অনেকের বক্তিগত সম্পত্তিতে হামলা চালায়।

Stores, cars, and many other kinds of private property, around the area of the clashes, were damaged.

যে এলাকায় সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ে, উত্তেজিত জনতা সেখানকার অনেক দোকান, গাড়ি এবং অন্য অনেক ব্যক্তিগত সম্পত্তি বিনষ্ট করে। ইস্তাম্বুল, তুরস্ক। ছবি টুইটার ব্যবহারকারী @ফ্রেডটার্ক-এর।

আলপের বুডকা একজন সাংবাদিক যিনি ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন। তিনি টুইটারে সংবাদ প্রদান করেছেন [তুর্কী ভাষায়] যে সংঘর্ষ এবং হামলা বন্ধের জন্য পুলিশ এসে হাজির হয়।

Polis, kalabalığa biber gazıyla karşılık verdi. Bu sırada caddeye doğru bi havai fişek patladı. Vatandaşlar dükkanlara kaçıştı

পুলিশ জনতার দিকে মরিচের গুঁড়া ছড়িয়ে দিচ্ছে… এক মুহূর্তে মূল সড়কের দিকে এক আগুন ধরানো বস্তু ছুঁড়ে মারা হয়। এতে সাধারণ জনতা দোকান থেকে পালিয়ে যায়।

ছাড়াও সে উল্লেখ করেছে [তুর্কী ভাষায়] যে সে সময় দাঙ্গা পুলিশ এসে হাজির হয়:

Ardından 70-80 kişilik takviye çevik kuvvet ekibi geldi. Kalabalık dağılmıştı fakat biraz sonra yeniden aynı yerde toplandlar. Hala ordalar

এরপর বাড়তি ৭০-৮০ জন দাঙ্গা পুলিশ এসে হাজির হয় এবং জনতা ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়, কিন্তু কিছুক্ষণের মধ্যে তারা কিছু কিছু জায়গায় আবার একত্রিত হতে শুরু করে। এখনো তারা সেখানে রয়েছে।

ইকলাল_তুরান মরিচের গুঁড়া ব্যবহারের বিষয়ে সংবাদ প্রদান করছে [তুর্কী ভাষায়];

her şey bir yana polisin biber gazı kullandığı yer insanların akşam gezdiği, yürüdüğü bi yer. küçücük çocuklar gaza maruz kaldı, ağladılar!

সকল কিছু সত্ত্বেও, লোকজন যেখান দিয়ে হাঁটছিল, পুলিশ যেখানে মরিচের গুঁড়া ব্যবহার করেছে, সন্ধ্যর সময়টি তারা জ্বালাময়ী করে তোলে। ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের চোখে এই গ্যাস এসে লাগে। তারা কাঁদতে শুরু করে!

জেইতিনবুরনু-এর এক বাসিন্দা গ্রেগরামসামসাম সংবাদ প্রদান করেছে [তুর্কী ভাষায়] যে পুলিশের হেলিকপ্টার সেই এলাকার উপর পাহারা দিচ্ছিলো, যেখানে এক সময় জনতাকে ছত্রভঙ্গ করা হয়।

Zeytinburnu'nda olaylar nihayet duruldu galiba. sadece devriye gezen helikopterlerin sesi var şu an.

অবশেষে জেইতিনবুরনু-এর ঘটনা পরিসমাপ্ত হয়েছে, আমি ধারণা করি। এখন সেখানে কেবল উড়তে থাকা হেলিকপ্টারের শব্দ শোনা যাচ্ছে।

এইচটিওয়াই ৯৬, একজন ইউটিউব ব্যবহারকারী, তিনি জনতার কয়েকজনের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ছবি এক ভিডিও পোস্ট করেছেন।

http://www.youtube.com/watch?v=-hlX4K796-U

২১ জুলাইয়ের রাতের ঘটনার পর কুর্দিপন্থী পিকেকে গ্রুপ এবং উগ্র জাতীয়তাবাদী তুর্কী গ্রুপ-এর মধ্যে দিনভর চলা সংঘর্ষের পরে দেশটিতে জাতিগত দাঙ্গা উসকে দেবার জন্য কেউ কেউ উভয় দলকে দায়ী করেছে। সিনান দিরলিক মন্তব্য করেছে [তুর্কী ভাষায়] :

zeytinburnundan günlerdir içsavaş provası uğraşındaki türk ve kürt sersemler. yangın her yeri sardığında mı rahatlayacaksınız?

তুর্কী এবং কুর্দীরা বোকার মত জেইতিনবুরনুতে সারাদিন ধরে এক গৃহযুদ্ধের মহড়া প্রদান করেছে, যখন এই আগুন সব জায়গায় ছড়িয়ে পড়বে তখন কি আপনারা শান্ত হবেন?

অনেকে দাবী করছে যে এই ঘটনার জন্য উভয় দলকে সমানভাবে দায়ী করা ঠিক হবে না। উদাহরণ হিসেবে কাফা_রাডিও বলছে [তুর্কী ভাষায়]

iki tarafa da esit mesafeli olalim demek erki elinde bulunduran ezileni yok etmesine zimnen ortak olmak anlamina geliyor.

সে বলছে যে, আসুন সমান দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে উভয় দলের দিকে তাকাই, সম্পুর্ণ মানে শক্তিশালীদের দ্বারা পুরোপুরি দমনের শিকার হওয়া।

জেইতিনবুরনুর ঘটনায় গুলচিন আভসার বিভিন্ন দলের সাধারণ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ার ঘটনার সমালোচনা করেছে। সে মন্তব্য করেছে [তুর্কী ভাষায়]:

Zeytinburnu savaş alanına dönmüş.. Hâlâ yakıp yıkarak o çok mukaddes amaçlarına ulaşacaklarını düşünenlerin olması ne hazin…

জেইতিনবুরনু একটা যুদ্ধ ক্ষেত্রে পরিণত হয়েছে। এটা খুব বেদনাদায়ক যে এখনো অনেকে আছে যারা মনে করে লুটপাট এবং ধবংসাত্মক কর্মকাণ্ডের মধ্যে দিয়ে তাদের লক্ষ্য পুরণ করবে…। …

এখনো জেইতিনবুরনু এলাকায় আবারো সংঘর্ষ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা রয়ে গেছে এবং সে এলাকা ঘিরে অনেক গুজব ছড়িয়ে পড়েছে, সেখানকার এক বাসিন্দা গ্রেগরামসামসাম মন্তব্য করেছে [তুর্কী ভাষায়]:

bu arada söylentiler doğru ise bugün Zeytinburnu'da olaylar daha da büyüyecekmiş. bu sefer diğer ilçelerden bdp'liler geliyormuş.

যদি গুজবের বিষয়টি ঠিক হয়ে থাকে, তাহলে জেইতিনবুরনুতে আবারো এ ধরনের ঘটনা ঘটতে যাচ্ছে। বলা হচ্ছে যে এবার অন্য এলাকা থেকে বিডিপির সমর্থকরা এখানে আসবে।

এছাড়াও সে উল্লেখ করেছে [তুর্কী ভাষায়] যে এই এলাকার অনেক বাসিন্দা অস্থায়ী ভাবে এলাকা ছেড়ে চলে গেছে।

çoğu kişi diğer ilçelerdeki akrabalarına gidiyor. bir mal benim ya ben evde bekliyicem inadına. annemler bile gidiyor be.

অনেকে এখন এই এলাকা ছেড়ে অন্যত্র তাদের আত্মীয়ের বাসায় চলে গেছে। এক নির্বোধ হিসেবে আমি কেবল আমার ঘরে রয়ে গেছি। আমি এক একগুঁয়ে ব্যক্তি। এমনকি আমার মা এবং পরিবার এই এলাকা ছেড়ে যাচ্ছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .