বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

তিউনিশিয়া: সময় এখন নির্বাচনের জন্য নাম নিবন্ধন করার

এই প্রবন্ধটি তিউনিশিয়া বিপ্লব ২০১১ সম্বন্ধে আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ:

১১জুলাই, ২০১১ তারিখ থেকে তিউনিশিয়ায় ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন শুরু হয়েছে। এই নিবন্ধন প্রক্রিয়া চলবে ২রা আগস্ট পর্যন্ত। তবে পরিসংখ্যান বলছে যে তিউনিশীয় নাগরিকরা তালিকায় নিজেদের নাম নিবন্ধন করতে উদগ্রীব। এ কারণে তিউনিশিয়ার একদল ব্লগার তিউনিশীয় নাগরিকদের ভোটের জন্য নাম নিবন্ধন করার আহ্বান জানিয়ে অনলাইনে প্রচারণা শুরু করেছে। তার নাগরিকদের কাছে আহ্বান জানাচ্ছে যেন তারা আগামী ২৩শে অক্টোবর, ২০১১-তারিখে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া সংসদ নির্বাচনের ভোট দেবার জন্য নাম নিবন্ধন করে।

এর জন্য তারা, “তাদের প্রচারণার জন্য নাম নিবন্ধন করা” নামক শ্লোগান বেছে নিয়েছে (নীচে ডান দিকে দেখুন)।

এছাড়াও ব্লগুইয়ে পুর ল'ইনসক্রিপসিন লিসতে ইলেক্টোরাল (নাম নিবন্ধনের জন্য ব্লগ)‘ নামক ফেসবুকে একটি পাতা খুলেছে। ২৫ এবং ২৬ জুলাইয়ের এই অনুষ্ঠানের জন্য ৩০৯ জন ব্লগার নাম নিবন্ধন করেছে।

"Time to Register for their campaign"

তাদের প্রচারণার জন্য নাম নিবন্ধন করা

অনেক ব্লগার এর জন্য পোস্ট লিখেছে, যেমন, ওয়াল্লাদা [আরবী ভাষায়] লিখেছে :

أنا سجّلت اسمي في القائمات الانتخابيّة ، و كذلك الشّأن بالنّسبة إلى أفراد عائلتي و جيراني و أصدقائي . سجّلنا برغم كلّ شيء برغم زخم الأحزاب و خطابها السّياسي غير المقنع ، و برغم الانفلات الأمني ، و الحرائق المُدَبَّرة ، برغم غلاء المعيشة و تدهور المقدرة الشرائيّة ، برغم الاحتكار و الاستغلال و استمرار البطالة ، برغم البطولات الورقيّة و العنف و الاستفزاز … برغم كلّ هذا و غيره سجّلنا

لأنّ الإحجام عن التسجيل سلبيّة و استقالة و السلبيّة لا تبني بلدا

ভোটার তালিকায় আমি নিজের নাম নিবন্ধন করেছি I আমার পরিবারের সদস্য, আমার প্রতিবেশী, এবং আমার বন্ধুরাও আমার মত ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন করেছে। সকল কিছু সত্বেও আমরা ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন করেছি। দেশে রাজনৈতিক দলগুলোর সংখ্যা অবিশ্বাস্য হওয়া সত্বেও এবং তাদের রাজনৈতিক দর্শনে মুগ্ধ না হবার মত কিছু না পাওয়া সত্ত্বেও, আইনের শাসন না থাকা সত্ত্বেও এবং ইচ্ছাকৃত ভাবে অগ্নি সংযোগ সত্বেও, জীবনযাত্রার মান উচ্চ হওয়া সত্ত্বেও এবং ক্রয়ক্ষমতার মান ক্রমশ থাকা সত্ত্বেও, কারো একচেটিয়া অধিকার সত্ত্বেও, শোষণ এবং ক্রমাগত বেকারত্ব সত্ত্বেও, কাল্পনিক জয় এবং বীরদের অপেক্ষায় থাকা সত্ত্বেও, সংঘর্ষ এবং উত্তেজনা সত্ত্বেও, এই সকল এবং তার সাথে অন্য সব ঘটনা সত্ত্বেও আমরা ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন করেছি। বাস্তবতা হচ্ছে, বয়কট করা খারাপ। এটা আসলে হাল ছেড়ে দেওয়ার মত বিষয়। কোন কিছুকে খারাপ ভাবে দেখা এবং হাল ছেড়ে দেওয়ার মধ্যে দিয়ে দেশকে গড়া যায় না।

এবং এ্যানাদার ব্রিক ইন দি ওয়াল [আরবী ভাষায়] লিখেছে:

ناس عطاطها ولادها وأكبادها

ناس عطاتها أعزّ ما عندها

ناس عطاتها عمر فناتو في خدمته

ناس عطاتها ايّامها ولياليها

وأنت؟ ما عندكش دقيقة ليها؟

برى قيّد باش كان تحبّ تعاود تبنيها

برى قيّد و ما تبخلش عليها!!

من وقتك، دقيقة أعطيها !!

قيّد….خير ما نبكيو عليها

এর জন্য অনেকে তাদের সন্তান উৎসর্গ করেছে

অন্যরা তাদের হৃদয়ের মণিকে এর জন্য প্রদান করেছে

অনেকে তাদের দিন আর রাত উভয়কে এর জন্য উৎসর্গ করেছে।

আর আপনি, এর জন্য আপনার কি একটা মিনিট সময় আছে?

যদি আপনি সবকিছু আবার নতুন করে গড়তে চান, তাহলে আসুন এবং নাম নিবন্ধন করুন

আসুন এবং নাম নিবন্ধন করুন, এর জন্য নিজেকে ছোট ভাববেন না।

আপনার মূল্যবান সময় থেকে একটা মিনিট ব্যয় করুন।

নাম নিবন্ধন করুন অন্যথায় আমরা এর জন্য শোক করব

কয়েক জন ব্যক্তি যেমন ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন করার আহ্বান জানাচ্ছে, তেমনি অন্যদিকে কয়েকজন ব্যক্তি তা বয়কট করার জন্য আহ্বান জানাচ্ছে। যেমনটা তাক্রিজ ( তিউনিশীয় আরবিতে যার মানে “ক্রোধ” ) নামক গ্রুপ টুইটারে ভোটার তালিকায় নাম নিবন্ধন না করার এবং নির্বাচন বয়কট আহ্বান জানিয়ে আসছে। তারা তিউনিশীয় সরকারকে উদ্দেশ্য বলছে :

@তাক্রিজ: আপনারা নির্বাচন চান? ন্যায়বিচার, স্বচ্ছতা এবং রাজনৈতিক দলের অর্থের প্রতি আমাদের নিয়ন্ত্রণ প্রদান করুন। নির্বাচনী প্রক্রিয়ায় যে সব বিচিত্র নীতিমালা তার পরিমাণ এবং বিদেশিদের নিয়ন্ত্রণ কমিয়ে আনুন।

যখন সংসদীয় নির্বাচনের দিনটি ধীরে ধীরে এগিয়ে আসছে, তখন তিউনিশিয়ায় এই নিয়ে অনেক আলোচনা এবং বিতর্ক দেখা দিচ্ছে। তিউনিশীয় নাগরিকরা এক স্বৈরাচারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে সক্ষম হয়েছে এবং এখন এক সত্যিকারের গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র নির্মাণের চেষ্টা করছে। এই কাজে তারা কি সফল হবে? সময় তা বলে দেবে।

এই প্রবন্ধটি তিউনিশিয়া বিপ্লব ২০১১ সম্বন্ধে আমাদের বিশেষ কাভারেজের অংশ

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .