বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরানঃ অনশন ধর্মঘট রত বন্দীদের প্রতি একাত্মতা ঘোষণা

ইরানের বন্দিশালায় অনশন ধর্মঘট রত বন্দীদের প্রতি একাত্মতা ঘোষণা করার জন্য, শনিবার, ২৫ জুন, ২০১১-এ, সারা বিশ্বের অন্তত ২৫ টি শহরে একযোগে বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়েছিল। ইরানের দু’টি কারাগারে প্রায় ১৮ জন রাজনৈতিক বন্দী রয়েছে, যারা অনশন ধর্মঘট পালন করছে।

দুজন রাজনৈতিক একটিভিস্টের মৃত্যুর ঘটনায় বন্দীরা অনশন ধর্মঘট পালন করা শুরু করে। উক্ত দুই একটিভিস্টের নাম রেজা হোদা সাবের এবং । বন্দীরা রোববার সন্ধ্যায় তাদের অনশন ধর্মঘট [ফার্সী ভাষায়] সমাপ্ত করে।

সবুজ বিক্ষোভ নামক প্রচারণা (গ্রীন প্রটেস্ট), সারা বিশ্বে এক প্রতিবাদের আহ্বান জানানোর জন্য ফেসবুকে একটি পাতা তৈরি করেছে:

Iran green

সবুজ বিক্ষোভ এক সপ্তাহের জন্য “রাজনৈতিক উপবাস” নামক এক প্রচারণা কথা ঘোষণা করে, যা রোববার, ১৯ জুন ২০১১-এ, শুরু হয়। এর উদ্দেশ্য ছিল হালেহ সাহাবী এবং হোদা সাবের-এর হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় আরো নিন্দা জানানো। এর সাথে যোগ হয় ২৫ জুন তারিখের “ব্লাক ওয়েভ” (কালো তরঙ্গ) নামের এক অবস্থান গ্রহণ। যা সারা বিশ্বের প্রধান সব শহরগুলোতে অনুষ্ঠিত হয়। এর উদ্দেশ্য হচ্ছে এই সব অন্যায় হত্যাকাণ্ড এবং ইসলামিক প্রজাতন্ত্র ইরান যে ক্রমাগত মানবাধিকারের লঙ্ঘন করে যাচ্ছে, তার প্রতিবাদ করা।

বিশ্বের অন্তত ২৫ টি শহর, যেমন তুরস্কের আঙ্কারা, যুক্তরাষ্ট্রের লন্ডন, এবং নরওয়ের অসলোর মত শহরে এই বিক্ষোভ প্রদর্শিত হয়।
আঙ্কারা

নেহজাতশাবজ ব্লগে লেখা হয়েছে যে তুরস্কে বেশ কয়েকজন রাজনৈতিক আশ্রয় প্রার্থী আঙ্কারায় বিক্ষোভ প্রদর্শন করে। ব্লগে এই বিক্ষোভের বেশ কিছু ছবি প্রকাশ করা হয়েছে।

লন্ডন

থাবলেসাবজ লিখেছে যে প্রতিবাদকারীরা হালেহ সাহাবী এবং হোদা সাবের-এর স্মরণে জনতার মাঝে সাদা গোলাপ বিতরণ করে। সকল ছবি এখানে দেখতে পাবেন। লন্ডনের বিক্ষোভকারীরা অনশন ধর্মঘট রত ব্যক্তিদের ছবি বহন করে।

অসলো

মোহাম্মেদ মোস্তাফা একজন মানবাধিকার আইনজীবী যে ইরান থেকে পালিয়ে গেছে। সে এই ভিডিও-তে (নীচের ভিডিওটি) বলছে যে অনশনরত বন্দীদের স্বাস্থ্যের অবস্থা ক্রমশ খারাপের দিকে যাচ্ছে:

আমরা তাদের কণ্ঠস্বর শুনতে পেয়েছি এবং আমরা তা সারা বিশ্বকে শোনাতে চাই… প্রতি ঘন্টায় আমার ইরানের রাজনৈতিক বন্দীদের সম্বন্ধে খারাপ সংবাদ এবং তাদের কারাদণ্ডের কথা শুনতে পাচ্ছি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .