বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভারত: মুম্বাইয়ে সিনিয়র ক্রাইম রিপোর্টারকে গুলি করে হত্যা

মুম্বাইয়ের পোয়াইয়ে আজ (১১ই জুন) দুপুরে অজ্ঞাতনামা বন্দুকধারীদের খুব কাছ থেকে করা গুলিতে প্রখ্যাত ক্রাইম রিপোর্টার জ্যোতির্ময় দে নিহত হন। সিনিয়র সাংবাদিক জনাব দে ছিলেন মুম্বাইয়ের অন্যতম প্রধান ট্যাবলয়েড পত্রিকা মিড ডে-এর একজন অনুসন্ধানী সম্পাদক। তাঁর হত্যাকান্ড জনগণকে এবং বিশেষভাবে সাংবাদিক/প্রচার মাধ্যম কর্মীদের শোকাহত করেছে। প্রধান প্রচার মাধ্যমগুলোসহ অন্যান্য সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইটগুলোতে তাঁর হত্যাকান্ডের বিষয়ে প্রতিক্রিয়া প্রদান অব্যাহত রয়েছে।

টুইটারে প্রাপ্ত কিছু প্রতিক্রিয়া:

@সুহেলশেঠ: দুঃখজনক যে মুম্বাইয়ের মত একটা শহরে প্রকাশ্য দিবালোকে একজন নিরিহ কঠোর পরিশ্রমী সাংবাদিককে তাঁর পেশার জন্য জীবন দিতে হল। দুঃখজনক।
@হাফিজচাচার: জে দের মৃত্যুর খবর শুনে মর্মাহত। মুম্বাই সাংবাদিকদের কাছে তিনি ‘কমান্ডার জে’ নামে পরিচিত ছিলেন।

মিড ডে-এর স্ক্রিন শট

@কাঞ্চনগুপ্ত: দে’র হত্যাকান্ড মাফিয়া আর মাস্তানদের পক্ষ থেকে একটা শীতল ধাক্কা। সারা দেশের সাংবাদিকদের প্রতিবাদ করা উচিত। প্রচার মাধ্যমের জন্য একটা দুঃখজনক দিন।
@সুচেতাদালাল: জে দে অপরাধের বিষয়গুলো নিয়ে লিখতেন.. বিশ্বাস করা কঠিন যে পুলিশ তার গোয়েন্দাদের কাছ থেকে অথবা আন্ডারওয়ার্ল্ডের কাছ থেকে এত সময় চলে যাওয়ার পরেও কোনো তথ্য পায়নি। এমনকি কোন পূর্ব সতর্কতাও পায় নি??
@জিতেশপিল্লাই: সাহসী যোদ্ধা জে দের জন্য নিরব প্রার্থনা। তিনি প্রকৃত সাংবাদিকতায় বিশ্বাসী ছিলেন। যিনি কারণে বিশ্বাসী ছিলেন এবং সত্যের জন্য জীবন-যাপন করতেন।
@মিনিশা_লাম্বা: প্রকাশ্য দিবালোকে সাংবাদিক জে দে’র হত্যাকান্ডে আমি এখনো মর্মাহত। বিচার দ্রুত, সুষ্পষ্ট এবং কঠোর হওয়া উচিত।

ইয়ুথ কি আওয়াজ এর মতে দে ছিলেন দেশের অল্প কয়েকজন সাহসী অনুসন্ধানী সাংবাদিকদের অন্যতম একজন:

১৯৯২ সাল থেকে এখন পর্যন্ত প্রায় ২৮ জন অনুসন্ধানী সাংবাদিক হত্যাকান্ডের শিকার হয়েছেন এর মধ্যে ১৪ জনই মুম্বাইয়ের। ভারতে সাংবাদিকতা সত্যের স্তম্ভ হিসেবে বিবেচিত। ভারত খুব কমই এমন একজন সাহসী অনুসন্ধানী সাংবাদিক দেখেছে।

সংবাদ শিল্প এ মুহূর্তে বিহ্বল ও মর্মাহত। আমরা বিশ্বাস করি মাফিয়া ও সমাজ বিরোধীরা যেমন জে দে’র কন্ঠরোধ করতে পারেনি ঠিক তেমনি সাংবাদিকতাও মাফিয়া ও সমাজ বিরোধীদের কাছে মাথা নত করবে না। তাঁর হত্যাকাণ্ড প্রেসের স্বাধীনতার উপর আক্রমন।
আমরা তাঁর সাহসিকতাকে সম্মান করি। তাঁর পরিবার ও নিকটজনের প্রতি শোক প্রকাশ করি।

বলা হয়ে থাকে যে মুম্বাইয়ের আন্ডারওয়ার্ল্ড- সম্ভবতঃ রাস্তা নির্মাণকারী/ তেল মাফিয়ারা তাঁর হত্যাকাণ্ডের সাথে জড়িত। ভারতের প্রধানমন্ত্রী জনাব মনমোহন সিং এ হত্যাকাণ্ডকে “মর্মান্তিক” ও “অগ্রহণযোগ্য” বলে নিন্দা প্রকাশ করেছেন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .