বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

উগান্ডা: উগান্ডা ফুটবল দল আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস প্রতিযোগিতার চূড়ান্ত পর্বের দ্বার প্রান্তে পৌঁছায় উত্তেজনা

আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস নামক ফুটবল প্রতিযোগিতায় উগান্ডা এক ঐতিহাসিক প্রত্যাবর্তনের দ্বারপ্রান্তে এসে দাঁড়িয়েছে। দেশটি ১৯৭৮ সালে শেষবারের মত মহাদেশীয় এই প্রতিযোগিতার আসরে উত্তীর্ণ হয়েছিল। ৪ জুন, ২০১১ তারিখে ক্রেইন নামে পরিচিত উগান্ডার জাতীয় দল দেশটির রাজধানী কাম্পালায় ২-০ গোলে গিনি বিসাউকে পরাজিত করে চূড়ান্ত পর্বে উত্তীর্ণ হবার দ্বারপ্রান্তে এসে পৌঁছেছে।

এখন ১০ পয়েন্ট নিয়ে উগান্ডা এখন গ্রুপের শীর্ষে অবস্থান করছে,এই সপ্তাহের ছুটির দিনে অ্যাঙ্গোলা কেনিয়াকে পরাজিত করে, যার ফলে এখন ২০১২ সালে গ্যাবন আর ইকুয়েটোরিয়াল গিনিতে অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহণের যোগ্যতা অর্জনের জন্য উগান্ডার মাত্র ১ পয়েন্ট দরকার। গডফ্রে উইলুসিম্বা এবং জেওফ্রি মাসার উভয় অর্ধে দেওয়া গোলে উগান্ডা ২-০ গোলে পশ্চিম আফ্রিকার এই দেশটিকে পরাজিত করে। এটা ছিল এমন এক মুহুর্ত যখন হাজার হাজার উগান্ডাবাসী তা উদযাপন করে।

সর্বব্যাপী সর্মথন

উগান্ডার সবাই তাদের দলকে সমর্থন করে। ম্যান্ডেলা ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে প্রায় ৫০,০০০ সমর্থক এই খেলা উপভোগ করে। বিগত কয়েক মাসে সংঘটিত বিভিন্ন ঘটনার মত, উগান্ডাবাসীরা এই ঘটনা সম্বন্ধে কথা বলার জন্য টুইটার বেছে নেয়, এমনকি অনেকে খেলার মাঠ থেকে সরাসরি টুইট করে।

#উগান্ডাফুটবল এবং #আফকন (আফ্রিকান কাপ অফ নেশনস) নামক হ্যাশট্যাগের অধীনে অনেক উগান্ডাবাসী এই খেলা নিয়ে তাদের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেছে, যা তাদের ঘরের মাঠে অনুষ্ঠিত হয়েছে। একই দিনে অনুষ্ঠিত অন্যান্য খেলায় খুব কম দলই নিজেদের মাঠে জয়লাভ করতে সমর্থ হয়েছে।

@রুগেয়েন্ডো এই খেলাকে সামনে রেখে জিজ্ঞেস করছে, সে কোথায় তাঁর মুখ জাতীয় পতাকার রঙে রাঙাতে পারবে:

ক্রেইনদের জন্য আমি কোথায় আমার মুখ রাঙাতে পারি, কেউ কি কোন ধারনা দিতে পারে?#উগান্ডা ফুটবল।

@বিলিবায়ুরাগাবা এই খেলাটিকে সামনে রেখে শহরের আবেগের বিষয়ে সংবাদ প্রদান করেছে:

আজ কাম্পালা দারুন উত্তেজিত!!! এই খেলাটিকে ঘিরে যে উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে তাকে আমি দারুন উপভোগ করছি, কিন্তু সমর্থকদের সমর্থনে আজকে উগান্ডাকে জিততে হবে। #উগান্ডা ফুটবল


@মুগুমায়া নির্দেশ করেছে
এই খেলার সব টিকিট বিক্রি হয়ে গেছে:

উগান্ডার ফুটবল সংস্থা ফুফা (এফইউএফএ) ৪৬০০০ ছাপানো টিকিট বিক্রি করেছে এবং আমারটা আমার পকেটে। হাহাহা#উইগোউইগো#উগান্ডা ফুটবল। ইউ গোল।

Over 50,000 fans watched the game at the Mandela National Stadium. Photo courtesy of Twitter user @mugumya.

ম্যান্ডেলা ন্যাশনাল স্টেডিয়ামে ৫০, ০০০ দর্শক খেলা দেখেছে। ছবি টুইটার ব্যবহারকারী @মুগুমায়ার।

@এনামারা সরাসরি, স্টেডিয়াম থেকে সংবাদ প্রদান করেছে:

একজন গর্বিত উগান্ডান হিসেবে নামবোলে স্টেডিয়াম থেকে সরাসরি টুইট করছি। অজস্র জনতা, চমৎকার এক পরিবেশ বিরাজ করছে। #উইগোউইগো#উগান্ডা ফুটবল।l

@মাগুমারা একটি ছবি পোস্ট করেছে একটা কুসংস্কারের বিষয়ে, এতে দেখা যাচ্ছে স্টেডিয়ামের উপর কালো মেঘ ছড়িয়ে পড়েছে, যা অতিথি ফুটবলারদের জন্য মন্দ ভাগ্যের প্রতীক:

উইগো, উইগো, নামবোলার উপর ঘন কালো মেঘ, যা মূলত অতিথি খেলোয়াড়দের জন্য অশুভ এক প্রতীক!#উগান্ডা ফুটবল, উইগো!http://twitpic.com/56ab87

@সাকিকা, যে কিনা উগান্ডার সরকারী টেলিভিশনে সম্প্রচার কেন্দ্রের (উগান্ডা ব্রডকাস্টিং কোপারেশন) মাধ্যমে টেলিভিশন সেটের সামনে বসে খেলাটি দেখেন, এই খেলার দুর্বল ধারা বর্ণনার বিষয়ে তাঁর বলার ভাষা নেই

ইউবিসি এত নির্বোধ। এই খেলার সরাসরি দেখানোর জন্য অনেক কিছু করেছে। ধারা বর্ণনা ছিল বেদনাদায়ক।#উগান্ডা ফুটব্ল#ক্রেইনস#উইগোউইগো#ইউজিক্রেইনস#এপিকফেইল

রাজনীতি এবং ক্রীড়ার বিষয়ে বলার ক্ষেত্রে বলা যায়, ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রেসিডেন্ট নরবার্ট মাও, যিনি ফোরাম ফর ডেমোক্রেটিক চেঞ্জ–এর নেতা ডঃ কিজ্জা বেসিগেয়ে-এর সাথে মিলে কাজে যাবার জন্য হাঁটা (ওয়াক টু ওয়ার্ক) নামক প্রতিবাদে জন্ম দিয়েছেন, তারা দুজনেই খেলা দেখেছেন। মাও প্রথম গোল করা খেলোয়াড়কে ১ লক্ষ উগান্ডান শিলিং প্রদান করার প্রতিশ্রুতি প্রদান করেছিলেন।

@এন্ডিক্রিস্টিয়ান তুলে ধরছেন ফুটবলের প্রতি মাওয়ের যে ভালোবাসা সেই বিষয়টি

@নরবার্টমাও, নামবোলার ভিড়ের মাঝে খেলা দেখছেন।#উগান্ডাক্রেইনস, এখন আপনারা জানলেন যে রাজনৈতিক দলের সভাপতিও খেলা দেখে। তাই না? #উগান্ডাফুটবল

এই রাতে যে বিষয়টি ছিল হতাশার সেটি হচ্ছে উগান্ডার স্ট্রাইকার ডেভিড অবুয়ার জার্সি ছুড়ে মারা। যখন মাঠে তার বদলে আরেক জনকে নামানো হয় তখন সে এই ঘটনা ঘটায়। অবুয়া স্কটল্যান্ডের জাতীয় লীগে হার্টস নামক দলের পক্ষে খেলে থাকেন।

@মুমাকেইথ এই ঘটনায় তাঁর ভাষা হারিয়ে ফেলেছে:

তাঁর কতটা দুঃসাহস, যে সে উগান্ডার জাতীয় দলের জার্সি ছুড়ে ফেলে?#অবুয়া#উইগো উইগো#উগান্ডাক্রেইন্স।

বি_গিলবার্ট জানাচ্ছে @যে সে অবুয়ার আচরণের কারণে টুইটারে আর অবুয়াকে অনুসরণ করবে না।

তবে,@স্নট্টায়গান্ডা বলছে যে সকল বড় মাপের খেলোয়ড়েরা খারাপ সময় যায় এবং জার্সি খুলে ফেলার জন্য তাঁর প্রতি বিরূপ হবার কোন কারণ নেই।

@রুজিইয়োন্ডে, এমনকি মহান ফুটবলারও ভুল করে থাকে, বেকহাম, রুনি, ল্যাম্পার্ড, এবং রোনালদিনহোরাও ভুল করেছে, কিন্তু তাঁর জন্য আমরা তাদের সন্ত্রাসী বলতে পারি না। @রোজবেলকে

@এনটিভিউগান্ডা একটি ভিডিওর লিঙ্ক পোস্ট করেছে, যেখানে ম্যান্ডেলা স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত খেলার স্মরণীয় মুহূর্তগুলো তুলে ধরা হয়েছে।

@রেডপিপারিউজি সংবাদ প্রদান করছে, উগান্ডাবাসী সারারাত ধরে এই জয় উদযাপন করেছে।

যখন উগান্ডার ক্রেইনসরা গিনি বিসাউকে পরাজিত করল, তখন উগান্ডার সকল শহর সারারাত ধরে উৎসব করেছে! http://bit.ly/kyC1TH #উগান্ডাফুটবল#উইগো উইগো

এটা হচ্ছে এমন একটা দিন, যে দিন উগান্ডার অনেক লোক উগান্ডাবাসী হিসেবে এক গর্ব অনুভব করবে:

@এজেস্ট্রিম @এমটিএনউগান্ডাকেয়ার@রোজবেলকে। এটা হচ্ছে সেই দিন, যে দিনে অনেক উগান্ডাবাসী গর্বিত হবার সকল কারণ খুঁজে পাবে। http://twitpic.com/57orpu

এচুওয়ালু তার ছবিতে মুহুর্তগুলো ধারণ করেছে

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .