বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীনঃ নেটিজেনরা আগামী নির্বাচনে নিজেদের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা করছে

বৃহস্পতিবার ফুঝো-এর বোমা বর্ষণের মাঝেও সিনো ওয়েবো-তে এক অসাধারণ ঘটনা ঘটে: এই সপ্তাহের শুরুতে সারা দেশের বিভিন্ন নাগরিকরা শরত-এ অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া স্থানীয় পিপলস কংগ্রেস নির্বাচনেস্বাধীন প্রার্থী হিসেবে অংশ নেবার সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করে। মূলত পৌরসভা পর্যায়ে এই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে, এই নির্বাচনে জনতা ভোট দিতে পারে। যে সমস্ত ব্যক্তি স্বাধীন ভাবে এই নির্বাচনে অংশ নেবার কথা ঘোষণা করেছে, তাদের মধ্যে রয়েছে সাংবাদিক লি চেংপেং এবং ইয়াওবো

যদিও বিষয়টি অভূতপূর্ব নয়- হুবেই এর পৌরসভা থেকে একজন স্বাধীন প্রার্থী হিসেবে ইয়াও লিফার ১৯৯৮ সালে পিপলস কংগ্রেসের আসন লাভের পর কয়েক ডজন ব্যক্তি তার এই পদ্ধতি অনুসরণ করার চেষ্টা করে। ওয়েবো, তার পাতায় বেশ কিছু প্রার্থীকে তাদের পরিচিতি তুলে ধরার জন্য আলাদা ভাবে জায়গা করে দিয়েছে, একই সাথে তারা সকলেই তাদের মাইক্রোব্লগে নিজেদের নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করে দিয়েছে।

উইকিপিডিয়া থেকে নেওয়াগণপ্রজাতন্ত্রী চীনের নির্বাচন প্রক্রিয়া।

পিপলস কংগ্রেস নামে পরিচিত চীনের সংসদের সদস্য, কাউন্টি বা অঞ্চল, শহরের ডেপুটি, জেলা, পৌর জেলা, থানা হিসেবে পরিচিত টাউনশিপ বা আদিবাসী থানা এবং শহরের দ্বারা বিভাজ্য নয় (প্রত্যেকটি অঞ্চলের নিজস্ব প্রতিনিধি রয়েছে)। এই সব অঞ্চলের প্রতিনিধিরা সরাসরি ভোটে পাঁচ বছরের জন্য নির্বাচিত হয়।

One Person, One Vote, Changing China

এক ব্যক্তি, এক ভোট, চীনকে বদলে দিতে পারে।

যে দিন লিউ পিং কে গ্রেফতার এবং ছেড়ে দেওয়া হয় তার পরের দিন থেকে অনলাইনে প্রার্থীদের নির্বাচনের দাঁড়ানোর ঘোষণা আসা শুরু হয়। লিউ পিং নিজেই ঘোষণা করেছে, সে তার নিজ প্রদেশ জিয়াংশি এর এক কেন্দ্র থেকে পিপলস কংগ্রেসের মাঠ পর্যায়ের নির্বাচনে প্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করবে।

ওয়েবো-এ আসাতে থাকা প্রার্থীর তালিকা বৃহস্পতিবার থেকে ক্রমেই বাড়ছে। সম্প্রতি এখানে যাদের যাদের নাম এসেছে, তাদের সবার নাম এখানে দেওয়া হল [সকল লিঙ্ক চিনা ভাষায়]:

লিউ পিং, সিনইয়ু, জিয়াংশি
লি চেংপেং, চেংডু, সিচুয়ান
শিয়া সাং, সাংহাই
ওয়াং জংশিনাং, তিয়ানজিন
হুয়া তিয়ান, কুনমিং, ইয়ুনান
হিডেন ড্রাগন , চ্যাংশিং, ঝেজিয়াং
ইয়ু নান (ছদ্ম নাম),, লানঝু, গানসু
হে পেং, চাংঝউ, জিয়াংশু
লিয়াং ইয়োংচুন, হাংঝু, ঝেজিয়াং
ইয়াও বো,বেইজিং,
ওয়েই ঝংপিং,সিনইয়ু, জিয়াংশি
লি শিহুয়া, সিনইয়ু, জিয়াংশি
ওয়ু ডানহং, বেইজিং
সু চুনলিয়ু, বেইজিং
লি চায়ানশিয়াও, চেংডু, সিচু্যান
শু ইয়ান, হাংঝু, ঝেজিয়াং
ওয়াং জিয়ান, ওয়াং জিয়ান

এই নির্বাচনে তার অংশগ্রহণের ব্যাপারে সিসিপি-এর (কমিউনিষ্ট পার্টি চায়না) এক সদস্য ওয়াং লিখেছে[চীনা ভাষায়]:

我知道我无法当选,但至少跟有勇气的人站在一起,表明我的立场,真正为民说话,我的选举口号是:“与其埋怨黑夜,不如点一支蜡烛”。

আমি জানি যে আমি কোনভাবেই এই নির্বাচনে নির্বাচিত হতে পারবো না, কিন্তু কয়েকজন সাহসী মানুষের সাথে আমি একটা অবস্থান নিতে পারব এবং নিজের কণ্ঠকে সবার সামনে তুলে ধরতে পারব। আমার নির্বাচনী স্লোগান হচ্ছে, কেন অন্ধকার নিয়ে আপনি অভিযোগ করছেন, যেখানে আপনি নিজেই আলো জ্বালাতে পারেন?

অন্য সিনো ওয়েবো ব্যবহারকারীরা সম্ভব্য এইসব আইনপ্রণেতাদের প্রচণ্ড সমর্থন দিয়ে যাচ্ছেন। যখন প্রার্থীরা তাদের নির্বাচনী কর্মকাণ্ডের গতি বাড়াচ্ছে, তখন প্রার্থীদের নির্বাচনী প্রচারণা পর্যবেক্ষন করার জন্য “চায়না ইলেকশন নামের একটা একাউন্ট তৈরি করা হয়েছে [চীনা ভাষায়], এবং ওয়েবো-তে একটা গ্রপ তৈরি করা হয়েছে [চীনা ভাষায়] যেখানে ব্যবহারকারীরা সকল প্রকার তথ্য পোস্ট করছে, যোগ্যতার মাপকাঠি থেকে প্রচারণার পদ্ধতি এবং নীতিমালা, এমনকি প্রচারণার জন্য কি ধরনের বিজ্ঞাপন তৈরি করা প্রয়োজন সে সম্পর্কে পর্যন্ত এখানে তথ্য রয়েছে। যেমন এখানে একটা এ ধরনের বিজ্ঞাপন রয়েছে। এটি হাংজু-এর প্রার্থী শু ইয়ান-এর পক্ষে একজন (ব্যবহারকারী) তৈরি করেছে।

শু ইয়ানকে ভোট দিন

ওয়েবও -এর এক ধারাবাহিক আলোচনার [ডিসকাশন থ্রেড, চীনা ভাষায় লিখিত] আংশিক আংশ পাঠ করুন:

@书海飘香ELE:这么说吧,独立参选的时代很快会到来,这是他们做出的让步,也就是他们说的发展社会主义民主,这和五不搞是一致的。他们中间有很聪明的人,屁民们不是要民主么?可以,没问题,就按宪法框架内玩民主。但有一点他们绝对不会让步,就是那个致命的啥啥自由的。

-আপনি কি জানেন, এখানে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের বয়স দেওয়া হয়েছে। এটা তাদের দিক থেকে একটা ছাড়, যেমনটা সামাজিক গণতন্ত্রের ছড়িয়ে পড়া, যার সম্বন্ধে তারা কথা বলে। এছাড়া এটি পাঁচটি ধ্রুবক (মূলত সংস্কারের জন্য আন্দোলন) এর ধারায় পড়ে। তাদের মাঝে অনেকে বুদ্ধিমান ব্যক্তি রয়েছে। শিটিজেন ( বোকা নাগরিকরা) কি গণতন্ত্র চায় না? ঠিক আছে, কোন সমস্য নেই, আপনারা আপনাদের সংবিধানের কাঠামোর মধ্যে গণতন্ত্রকে রেখে দিন। কিন্তু এখানে আমি আপনাদের একটা বিষয় নিশ্চিত করছি, তারা কখনো তা করতে দেবে না।

শু কিয়েশিন, এক অন্যতম স্বতন্ত্র প্রার্থী এবং বেইজিং-এর এক গণ নীতি (পাবলিক পলিসি) বিষয়ক গবেষক, তিনি নির্বাচনের রাজনীতির উপর আকস্মিক প্রচণ্ড বেগ তৈরি হবার ব্যাপারে এই কথা গুলো বলেছেন:

我们国人要先学会关心自己的小区,然后是关心自己的城市,然后是关心自己的国家。别总琢磨关心自己的家庭,然后就移民到美国,关心北美那块土地上的人去。哈哈

আমাদের দেশের মানুষদের প্রথমে তাদের নিজ সম্প্রদায় এবং শহর এবং তারপর নিজ দেশের যত্ন নিতে শিখতে হবে। আমাকে বলবেন না যে আপনাদের প্রথম গুরুত্ব নিজেদের পরিবার এবং তারপর আমেরিকায় অভিবাসন, যাতে আপনারা উত্তর আমেরিকার জনগণের খেয়াল রাখতে পারেন। হাহ।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .