বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ক্যাম্বোডিয়া: ফেসবুক নিয়ে গান

সামাজিক নেটওয়ার্কিং সাইট ফেসবুক বিভিন্ন প্রতিবাদ কর্মসূচীকে সাহায্য করে তা তিউনিসিয়া আর মিসরের বিপ্লবের সময় জোড়ালো হয়ে দেখা দেয়। এই জন্যে বেশ কিছু দেশের সরকার, যেমন চীন, তাদের নাগরিকদের ফেসবুক ব্যবহার করে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে বেশ চিন্তিত। কিন্তু ক্যাম্বোডিয়াতে ফেসবুককে এখনও হুমকি হিসেবে দেখে না সরকার।

প্রধানমন্ত্রী হুন সেনের নেতৃত্বে রাজনীতিবিদরা (যারা ১৯৮৫ সাল থেকে ক্ষমতায় আছে) তাদের নিজস্ব ফেসবুক পাতা খুলেছেন যেখানে তারা ক্যাম্বোডিয়ার নাগরিক আর নেটিজেনদের সাথে কথোপকথন চালান।

তবে দেশে একটি নতুন এবং কৌতুহলোদ্দীপক ফেসবুক ফ্যাশন শুরু হয়েছে: ক্যাম্বোডিয়ানরা ফেসবুক নিয়ে গান লিখছে। উদাহরণস্বরূপ, ‘ফেসবুক ভালবাসা থামায়‘, যা লোটাসরিসোর্টএন্ডস্পা গত মার্চের ১১ তারিখে ইউটিউবে তুলে দিয়েছে:

পপ সঙ্গীত ইন্ডাস্ট্রি ফেসবুক নিয়ে অনেক গান তৈরি করেছে। যদিও তারা ঘোষণা করেছে যে তাদের এইসব গান পছন্দ নয়, ক্যাম্বোডিয়ার খেমার ম্যাগাজিন অভিভূত যে অনেক ক্যাম্বোডিয়ানই এইসব ‘ফেসবুকের গান’ উপভোগ করছে।

নীচে ইউটিউবে (সব খেমার ভাষায়) আপলোড করা ফেসবুক নিয়ে গানগুলোর কিছু শিরোনাম রয়েছে:

খেমারবার্ড খুবই আশ্চার্যান্বিত যে এইসব গান হচ্ছে তবে একই সাথে এও স্বীকার করছে যে ফেসবুক অনেক ভালবাসার সম্পর্ক ভেঙ্গে যাবার কারণ। তার ‘ফেসবুকের প্রভাবের কথা ক্যাম্বোডিয়ার গানে লেখা হচ্ছে‘ শিরোনামের লেখায় তিনি বলছেন:

এটি মনে হয়ে বেশ আশ্চর্যেরই ব্যাপার যখন আমাকে এসব শুনতে হয়। কিন্তু কথাগুলোর মধ্যে সত্যি আছে কিন্তু।

খেমারবার্ড খেমারাক সেরেইমন এর একটি গানকে তুলে ধরছে যার শিরোনাম ‘ফেসবুক আমার ভালবাসাকে ব্যহত করে‘ এবং এর কথাগুলোকে ব্যাখ্যা করছে:

খেমারাক গানে বলছে যে ফেসবুকে সময় দেবার জন্যে তার বান্ধবী তাকে আর আগের মত দেখভাল করে না। তার মনে হচ্ছে যে তাকে একা ফেলে গেছে সে। তার বান্ধবী এখন সময় ব্যায় করে অন্যদের সাথে যোগাযোগ করে। এটি অবশ্যই সম্পর্কের মধ্যে একটি টানাপোড়েন তৈরি করে।

সোশ্যালবেকার্স.কম এর মতে ক্যাম্বোডিয়াতে এখন পর্যন্ত মাত্র ২৫০,০০০ ফেসবুক ব্যবহারকারী রয়েছে যা দেশের জনসংখ্যার মাত্র ১.৭৩%। তবে রাজনীতিবিদরা যে হারে ফেসবুক এবং একে নিয়ে বাধা গানগুলোর শিল্পীদের তুলে ধরছে এটি এই মাধ্যমকে ক্যাম্বোডিয়ার আরও বেশী জনগণের কাছে জনপ্রিয় করে তুলবে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .