বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীন: বিগত ৬০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে ভয়াবহ খরা

এ বছর চীনের প্রধান কৃষি ক্ষেত্রগুলো বিগত ৬০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ এক খরার মোকাবেলা করছে।

গত ২৮ জানুয়ারি, ২০১১ তারিখে সরকারের প্রকাশিত এক পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে ৭.৭ মিলিয়ন মু, (৫১৬০ মিলিয়ন বর্গ কিলোমিটার জমি), ২৫.৭ লাখ জনগোষ্ঠী এবং ২৭.৯ লাখ গবাদিপশু এই খরায় আক্রান্ত হতে যাচ্ছে। এর প্রভাবে সাথে সাথে খাবারের দাম বেড়ে গেছে। তবে, খাদ্য নিরাপত্তার উপর এর প্রভাবের কথা বিবেচনা করে জাতি সংঘের খাদ্য সংস্থা বিশ্বের শস্য বাজারের ক্ষেত্রে দ্রুত এক সতর্কতা জারি করে।

যদিও এই খরা ভয়াবহ সামাজিক এবং রাজনৈতিক জটিলতা তৈরি করেছে, চীনের মতামত প্রদানকারী নেতাদের (ওপিনিয়ন লিডার- যারা সক্রিয়ভাবে ওয়েব বা প্রচার মাধ্যমের বক্তব্যকে কম তুলনামূলক কম ওয়েব ব্যবহারকারীদের কাছে তুলে ধরে) চীনের প্রধান ওয়েব প্লাটফর্মে তেমন উদ্বিগ্ন হতে দেখা যাচ্ছে না। অনলাইন পাবলিক স্ফেয়ার বা অন লাইনের গণ আলোচনার পাতাগুলো শহরের সব সমস্যায় ভরে আছে, যেমনটা সিনা মাইক্রোব্লগে ওয়াং শিয়াও জিয়ান তুলে ধরেছে:

有乡亲上家里问我,是否能让水利部门拨款打口井灌溉农田。我说基本不可能!山东、河北、河南三省130天无有效降雨,冬春小麦基本无望。连续三年粮食欠 收,我妈让我微薄上呼吁,我说无济于事,除非田地开裂、牲畜渴死、危及到人的生命,要不然水利部门基本就不管,微薄上的精英们都在忙着打拐活动。

কয়েকজন গ্রামবাসী আমার দরজায় এসে ধাক্কা দেয় এবং আমাকে বলে, আমি কি পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়কে অনুরোধ করতে পারি কি না, যাতে তারা কৃষি জমিতে গমের চারা শুকিয়ে আসার ব্যাপারে আমাদের সাহায্য করে। আমি তাদের উত্তর দিলাম, তাতে কোন কাজ হবে না। শানডং, হেবাই, হেনান এলাকায় গত ১৩০ দিন ধরে কোন বৃষ্টিপাত হচ্ছে না। শীত এবং বসন্তকালের গমের চারাকে আর কোনমতে বাঁচানো যাবে না। আমার মা আমাকে বলল, যেন আমি জনতাকে কৃষি বিষয়ক সমস্যার দিকে মনোযোগ দিতে বলি, যেহেতু গত তিন বছর ধরে খুব সামান্য ফসল হওয়ার ফলে সবাই সমস্যায় পড়ে গেছে। আমি তাকে বললাম যে এই সমস্যার প্রতি জনতার ততক্ষণ মনোযোগ আকর্ষণ করবে না, যতক্ষণ না জমি ফেটে চৌচির হয় এবং খরা, মানুষ ও গবাদি পশুর জীবন বিপন্ন করে তুলে। সেচ বিভাগ এই বিষয়ে মনোযোগ প্রদান করবে না, এবং মাইক্রোব্লগের ওপিনিয়ন লিডাররা অপহরণ-রোধ বিষয়ক প্রচারণা নিয়ে খুবই ব্যস্ত রয়েছে।

যদিও একদল মাইক্রোব্লগার ওয়াং-এর বার্তা ছড়িয়ে দিতে সাহায্য করছে, তবে আদতেই তা খুব একটা প্রতিধ্বণি সৃষ্টি করতে পারেনি। সানওয়েন সুসান (孙雯-苏三) ওয়াং-এর এর বার্তায় মন্তব্য করেছে। সে দেখাচ্ছে যে, লোকজন কৃষি উন্নয়নের চেয়ে সম্পত্তি বা জমির বাজার নিয়ে বেশি আলোচনা করছে, যেহেতু এখন জমি বেচা অনেক বেশী লাভজনক:

现在河南省的干旱还在持续,开封郊区和郑州相连的地方,那些农田都被用作开发房地产了,他们八成觉得越干越好吧~(2月6日 11:25)

হেনান প্রদেশে এখনো খরায় ভুগছে। কেইফেঙ্গ এবং চেঙ্গঝুর মাঝখানের সব জমি এখন ভবন তৈরির সম্পত্তিতে পরিণত হয়েছে। তারা (সরকার এবং গৃহ নির্মাতারা) সম্ভবত আবিষ্কার করেছে যে, খরা তাদের লক্ষ্য পুরণ করছে। (৬ ফ্রেব্রুয়ারি ১১.২৫)

এই ভয়াবহ খরার বিষয়ে জনতার মনোযোগ আকর্ষণের জন্য, হে ইয়ানান তার মাইক্রোব্লগে একটি ছবি পোস্ট করেছে যেখানে দেখা যাচ্ছে গরীব ছেলেমেয়েরা নোংরা পানি পান করছে:

看看这是干旱地区孩子们喝的水…我们正在遭受60年一遇的特大旱灾,不出意外的话,这将是大多数人有生见过最旱的一年,从"点滴"做起,刻不容缓,行动吧,朋友!

খরা পীড়িত এই এলাকার ছেলেমেয়েরা যে পানি পান করছে তার দিকে তাকান….আমরা বিগত ৬০ বছরের মধ্যে সবচেয়ে খারাপ খরার মুখোমুখি হয়েছি, যতদুর মনে হয় আমরা আমাদের জীবনে সবচেয়ে খারাপ খরার সময়টিকে দেখতে যাচ্ছি। প্রতিটি ফোটা পানি সংরক্ষণ করে আমরা এর বিরুদ্ধে লড়ব।

ব্লগার ঝাং তেইমিয়ানও তার ব্লগে নিজস্ব এলাকা সানডং এর কিছু ছবি পোস্ট করেছে, যে সব ছবিতে দেখা যাচ্ছে সেখানকার অবস্থা কেমন:

没有太多的话,我拍这些照片的时候真的是哭着拍的。。。作为一个农村出生的娃,我深切的知道,庄稼对农民意味着什么。

一直在城市里面,虽然也知道旱情挺严重的,每次打电话回家,爸爸都会叹息,说再不下雨麦子就完了。过年回到农村老家,刚看到麦田,就明白了旱灾的严重,记 得往年春节期间,虽然天气也都很冷,但是麦田里的颜色还都是深绿色的,可是今年却是一片黄绿色。并且今年大年初二就是立春的节气,按照常理,麦苗也要开始 返青了,可是今年。。

走进麦田,看着青青的麦苗,其实很多都已经直接风干了,用手一折就会断掉,近五个月没有降雨,旱情实在太严重了。。。

আমার তেমন কিছু বলার নেই, যখন আমি এই ছবিগুলো তুলছিলাম, তখন আমি কাঁদছিলাম… আমার জন্ম একটা গ্রামে হয়েছিল এবং গ্রামের কৃষকদের কাছে শস্যদানার মানে কি তা আমি ভালোভাবে বুঝতে পারি।

এখন আমি শহরে বাস করি, কিন্তু আমি জানি যে খরা খুবই ভয়াবহ এক বিষয়। যতবার আমি বাসায় ফোন করেছি, আমার বাবা আমাকে বলে যে যদি শীঘ্রই বৃষ্টি না আসে, তাহলে গমের চারা মারা যাবে। কিন্তু যখন চন্দ্র বর্ষের শুরুতে আমি বাড়ি গেলাম তার আগ পর্যন্ত আমি খরার প্রভাব কতটা ভায়াবহ, তা সঠিক ভাবে অনুধাবন করতে পারিনি। গত বছর যদিও শীতের মাত্রা তীব্র ছিল, সে সময় গম গাছ গুলো হলুদ হয়ে গিয়েছিল। চন্দ্র বর্ষের পঞ্জিকা অনুসারে বছর শুরুর দ্বিতীয় দিনটি হচ্ছে “বসন্তকালের” শুরু। সাধারণত এরই মধ্যে গম গাছে শীষ বের হতে শুরু করে, কিন্তু এ বছর তা ঘটেনি…..

যখন আমি ক্ষেতের মধ্যে দিয়ে হাঁটি, দেখতে পাই গমের অঙ্কুর গুলো শুকিয়ে গেছে। গত পাঁচ মাসে সেখানে কোন বৃষ্টিপাত হয়নি…এই খরা ভয়াবহ রকমের।

ব্লগার নানশান ডাক্সিয়ান বিশ্বাস করে যে পানি স্বল্পতার কারন, তুলনামূলক পানি সম্পদ প্রকল্পের লক্ষ্য এবং বাঁধ ও পানি সংরক্ষণ জলাধার নির্মাণ:

我们竟然是走了大禹治水时已经摒弃了的办法。我们使用的是堵截的方式在治水。打开地图看一下就知道,我们早年兴修的水 库无一例外的是在河流的下游把水拦住,然后蓄水成库。当然,兴修发电用的水坝就更是这样了。把江河拦住修水坝,通过提高水位,蓄势发电。这样的治水措施, 让许多的河流干涸了。也让不怎么缺水的地方从此就没有水源。我们要敬佩中国的水利专家,依靠他们的科学思维,终于把几千年来没有治伏的水害给完全的降服 了。然而,他们也作孽呀,是他们把中国变成了世界上最大的缺水国。

আমরা এমন এক পদ্ধতি গ্রহণ করেছি যা এমনকি মহান ইয়ু হাজার বছর আগে যা বাতিল করেছে। আমরা পানি আটকে রাখার পদ্ধতিকে আবার চালু করেছি, যেন এটাই আমাদের পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনার মূল। যখন আমরা আমাদের মানচিত্র খুলি, তখন দেখতে পাই যে আমাদের বেশির ভাগ পানি সংরক্ষণ জলাধার নদীর উৎসের তৈরি করা হয়েছে, পানির প্রবাহ বন্ধ করে তা করা হয়েছে। জল-বিদ্যুৎ-এর জন্য নির্মিত বাঁধও একই ভাবে নির্মিত হয়েছে। এই সব প্রকল্পের কারণে অনেক নদী শুকিয়ে গেছে এবং এর ফলে অনেক এলাকা তাদের পানির উৎস হারিয়ে ফেলেছে। আমাদের শ্রদ্ধেয় পানি সম্পদ বিশেষজ্ঞরা তাদের বৈজ্ঞানিক চিন্তা ভাবনার দ্বারা বন্যা সমস্যার সমাধান করেছেন বটে তবে তারা চীনকে এমন এক দেশে পরিণত করেছেন যেখানে পানির অভাব দেখা দিচ্ছে।

গত ২৯ জানুয়ারি, ২০১১ তারিখে গ্রামীণ এলাকায় পানি সরবরাহ সমস্যার সমাধানের লক্ষ্যে গণ প্রজাতন্ত্রী চীনের রাষ্ট্রীয় পরিষদ পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনা সংস্কার বিষয়ে একটি দলিল প্রকাশ করেছে [চীনা ভাষায়]। এটা একটা ভালো লক্ষণ যে কেন্দ্রীয় সরকার এখন শহরের পানি সরবরাহ এবং গ্রামীণ সেচের মত অলাভজনক বিনিয়োগের বিষয়ে মনোযোগ প্রদান করছে। পানি সম্পদ ব্যবস্থাপনার মৌলিক লক্ষ্য এখনো পর্যালোচনা করা বাকী রয়েছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .