বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ভারত: নারীর ক্ষমতায়ন এবং ভিডিওব্লগিং

ওমেন এল্যায়ুড ভিডিওব্লগিং ফর এমপাওয়ারমেন্ট ( ওয়েভ) হচ্ছে এমন এক প্লাটফর্ম এবং প্রোগ্রাম, যার উদ্দেশ্য মফঃস্বল বা “না গ্রাম, না শহর”, এমন এলাকার নারীদের কণ্ঠস্বর প্রদান করা, যাতে অনলাইন ভিডিওর মাধ্যমে নারীরা নিজের জন্য গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নিজেদের মতামতকে তুলে ধরতে পারে।

ওয়েভের ট্যাগলাইন বা মূল বাণীটি পাঠ করুন, এটি হচ্ছে “ ৩০জন নারী, ৩০টি অঞ্চল, প্রতিদিন ভিডিওব্লগিং”। হ্যাঁ, এই সাইটে বিভিন্ন ধরনের ভিডিও রয়েছে, যা ভারতের প্রায় সব অঞ্চলের প্রতিনিধিত্ব করছে। যে সমস্ত নারীরা এই কর্মসূচিতে অংশ নিয়েছে তাদের বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয় বা এনজিও বেছে নিয়েছিল। তারা ৯ মাসের এক মেন্টরশীপ বা পরামর্শ প্রদান কর্মসূচিতে অংশ নেয়, যেখানে তাদের এই বিষয়ে প্রশিক্ষণ, যন্ত্রপাতি চালানো শেখানো হয় এবং নিজেদের তৈরি ভিডিওর বিনিময়ে তাদের বৃত্তি প্রদান করা হয়।

ওয়েভের দর্শন হচ্ছে এই যে, ভারতের তরুণীদের কণ্ঠস্বর শুনতে পাওয়া উচিত এবং তাদের নিজ সমাজে যে সমস্যা, তা বিশ্লেষণে উৎসাহ প্রদান করা উচিত। এবং তাদের নেতৃত্বে এগিয়ে আসা উচিত, যাতে তারা সমাজের জন্য কার্যকরী সমাধান প্রদান করতে পারে, সেই কারণে তাদের সামাজিক এবং অর্থনৈতিকভাবে ক্ষমতাশালী হওয়া প্রয়োজন।

ভারতে কেরালা অঙ্গরাজ্যের ত্রিবানদ্রাম এলাকার চব্বিশ বছর বয়স্ক নারী চিনজু প্রকাশ কাজ করেন স্পেস নামক এনজিওতে। এই এনজিও নতুন প্রচার মাধ্যম এবং তথ্য যোগাযোগ প্রযুক্তির জন্য নানা কর্মসূচির উন্নয়ন ঘটিয়ে থাকে এবং সেগুলো সরবরাহ করে। তার এক ভিডিওতে, চিনজু প্রকাশ আমাদের কালাভারা নামের এক খাবারের দোকান প্রদর্শন করছেন। এই ক্যান্টিন বা খাবারের দোকান বিশেষভাবে নারীদের দ্বারা পরিচালিত এবং যারা নিজেদের রোজগারে নিজেদের জীবন চালাতে সক্ষম হয়েছে তাদের অভিজ্ঞতা কেমন ছিল, আমরা ভিডিওর মাধ্যমে সেই সমস্ত নারীদের কথা শুনতে পারি।

প্রিতি জেইন ছত্তিশগড় প্রদেশের বিলাসপুরের এক নারী। তার বয়স ২৭ বছর। তার ভিডিওতে, সে ছত্তিশগড়ের আদিবাসী সম্প্রদায়ের উপর মনোযোগ প্রদান করছে, যাতে তারা তাদের নিজেদের বিষয়ে সচেতন হয়ে উঠতে পারে। সে নীচের এই ভিডিওতে এই সম্প্রদায়ের ভিন্ন ধরনের বিবাহ প্রথা আয়োজনের উপর মনোযোগ প্রদান করেছে; যা ভারত থেকে প্রায় বিদায় নিচ্ছে। এই পদ্ধতিতে বাইগা সম্প্রদায়ের এক যুবক বিভিন্ন সামাজিক অনুষ্ঠান, যেমন নাচের অনুষ্ঠানে তার হবু বধুর সাথে সাক্ষাৎ করবে এবং এর মাধ্যমে সে তাকে বেছে নেবে। এরপর তারা তাদের বাবা মাকে গিয়ে জানাবে যে, তারা বিয়ে করতে চায়।

সালাম বাবিনা দেবীর বাসা ভারতের মনিপুর প্রদেশের রাজধানী ইম্ফলে। সে এক সংগঠনের পুরোদস্তুর স্বেচ্ছাসেবক কর্মী, যারা মাঠ পর্যায়ে নারী ও শিশু উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে । তার ভিডিও মনিপুরের সংস্কৃতিক বিষয়াবলির উপর মনোযোগ প্রদান করেছে। যেমন উদাহরণ হিসেবে প্রদর্শন করা নীচের এই ভিডিওটি মনিপুরি নাচের উপর তোলা:

মনিপুরে যে কোন বিশেষ সামাজিক এবং ধর্মীয় অনুষ্ঠান উদযাপন, তার নিজস্ব নাচের মধ্যে দিয়ে হয়ে থাকে। এখানে পাহাড় এবং প্রাচীন এক এলাকার, আদিবাসী, আঞ্চলিক এবং ঐতিহ্যবাহী নৃত্যের কয়েক ঝলক দেখতে পাবেন।

ভারতের বিভিন্ন অঞ্চলের নারীদের আরো কাহিনী এবং ভিডিও দেখার জন্য ওয়েভের সাইটে প্রবেশ করুন

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .