বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

সুদান: টুইটারে দক্ষিণ সুদানের স্বাধীনতার গণভোট

দক্ষিণ সুদান কি সুদানের অংশ হয়ে থাকবে নাকি সে স্বাধীন হয়ে যাবে, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য দক্ষিন সুদানের ভোটাররা আজ ভোট দেবে (৯ জানুয়ারী,২০১০)। গণভোটের বিষয়ে টুইটারের কিছু আলোচনা তুলে ধরা হল। হ্যাশট্যাগ #সুদানরেফ ব্যবহার করে আপনি চলমান টুইটসমূহকে অনুসরণ করতে পারেন।

এ্যালান ম্যাকডোনাল্ডস জানাচ্ছে যে ঐতিহ্যবাহী সুদানি প্রথায় স্বাগত জানানোর বিষয়টি আজ পাল্টে গেছে:

মনে হচ্ছে সুদানের যে ঐতিহ্যবাহী স্বাগত সম্ভাষণ তা পাল্টে, কেমন আছেন, ভোট দিয়েছেন তো?- আজকের দিনে এই বক্তব্যটি সম্ভাষণে পরিণত হয়েছে।#সুদানরেফ

ওয়ান্ডারিং ট্রেসি টুইট করেছে, “যতদুর দেখা যাচ্ছে, মনে হচ্ছে ভালোভাবেই ভোট হচ্ছে”:

আজ যতক্ষণ পর্যন্ত ভোট প্রদানের বিষয়টি পর্যবেক্ষণ করা হয়েছে, দেখা যাচ্ছে, ঠিকমতই ভোট হচ্ছে। আশা করা যায় পরবর্তী দিনগুলোতে একই গতিতে ভোটের কার্যক্রম চলবে এবং এই ফলাফল প্রদানের সময় শান্তি বজায় থাকবে।#সুদানরেফ #সুদান

ভোটারদের ঐকান্তিকতা বেনকে মুগ্ধ করেছে:

খার্তুমের বাইরের ভোটারদের একনিষ্ঠতা ও ঐকান্তিকতা আমাকে মুগ্ধ করেছে।#সুদানরেফ#সুদান

লিন্ডি জনসন পর্যবেক্ষণ করেছেন, কোন ধরনের অভিযোগ ছাড়াই ছয় ঘন্টা ধরে ভোটাররা লাইন দাঁড়িয়ে আছে:

সার বেঁধে দাঁড়িয়ে সবাই যে ভাবে গণভোটে অংশ নিচ্ছে, তা বেশ উল্লেখযোগ্য ব্যাপার। এই রকম গরমে ছয় ঘন্টা ধরে দাঁড়িয়ে থাকে এবং অভিযোগ সামান্য #সুদানরেফ #রেসপেক্ট।

ভোট কেন্দ্রগুলোতে এক সুন্দর পরিবেশ বিরাজ করছে:

ভোট কেন্দ্রগুলোতে লাইনগুলো ছিল দীর্ঘ, ভোট প্রদানের গতি ছিল ধীর এবং দিনটা ছিল উষ্ণ। বিষয়গুলো নিয়ে কারো কোনো অভিযোগ ছিলনা। দারুণ এক পরিবেশে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। অবশ্যই, সকলেই আলাদা হয়ে যাবার জন্য ভোট দিচ্ছে। #সুদানরেফ

ডেগনার বিস্মিত যে দক্ষিণ সুদান নামক রাষ্ট্রের নাম কি হতে পারে:

কেউ কি জানে, সুদান থেকে আলাদা হতে যাচ্ছে যে অংশটি তার নাম কি হবে? নতুন সুদান, দক্ষিণ সুদান, কেন্দ্রীয় পশ্চিম আফ্রিকা প্রজাতন্ত্র? #সুদানরেফ

প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রীর নাতনিকে গণভোট বিরোধী প্রতিবাদের জন্য গ্রেফতার করা হয়েছে:

আবীর ওসমান প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী আজহারীর নাতনী।। তাকে আজ গণভোট বিরোধী প্রতিবাদের সময় থানায় নিয়ে যাওয়া হয়।#সুদানরেফ

এক প্রবীণা গান গাইছে, “ বিদায় আরব, বিদায়”:

গারাং মেমোরিয়াল নামক ভোট কেন্দ্রের সামনে এক প্রবীণা গান গাইছে, “বিদায় আরবে, বিদায়”#সুদানরেফ

ভোট কেন্দ্রের সামনে এক নাগরিক উল্লাসে ফেটে পড়েছে:

ভোট দেবার পর ভোট কেন্দ্রের সামনে এক নাগরিক উল্লাসে ফেটে পড়ে। লাইনে দাঁড়ানো শত শত লোক তার জন্য হাততালি দেয় এবং তাকে উৎসাহ প্রদান করে।#সুদানরেফ

যুক্তরাষ্ট্রে ভোট প্রদান অনুষ্ঠান এক সঙ্গীত এবং প্রার্থনার মধ্যে দিয়ে শুরু হয় (সুদান ব্যতিত বিশ্বের ৮ টি দেশে বসবাসকারী দক্ষিণ সুদানের নাগরিকরা এই গণভোটে অংশ নিচ্ছে):

ডালাসের ভোটারদের অনুরোধে গান গেয়ে এবং আরবিতে প্রার্থনার মধ্যে দিয়ে ভোট প্রদান শুরু করা হয়।#সুদানরেফ

বিজয় বিস্মিত যে, কি ভাবে দক্ষিণ সুদানের গণভোট-এর সাথ পূর্ব তিমুরের গণভোটের তুলনা করা হবে:

বিস্মিত, কিভাবে#সুদানরেফ, একে পূর্ব তিমুরের সাথে তুলনা করা হচ্ছে। একটা বড় প্রশ্ন, দক্ষিণ সুদানের তেল ক্ষেত্রগুলো কি চীনের কোম্পানিসমূহকে পিছনে ফেলে যুক্তরাষ্ট্র/যুক্তরাজ্যের কোম্পানিগুলোকে আকর্ষণ করছে? সত্যি কি শান্তি আসবে?

টেক্সাসের ডালাসের প্রথম ভোটার:

ডালাসের প্রথম ভোট দাতা ছিলেন ভোট নিয়ে কাজ করা এক প্রবীণ ব্যক্তি, যিনি তার ভোট ব্যালট বাক্সে ডালার পর, হাত তুলেন এবং বিদায় জানান।#সুদানরেফ#সুদান

একতার চেয়ে কি শরিয়া আইন বেশি গুরুত্বপূর্ণ?:

খাতূর্মে একটি প্রতীকে লেখা: “শরিয়া আইনের মূল্যে বিভক্তি” এর মানে হচ্ছে একক সুদানের চেয়েও শরিয়া আইন বেশী গুরুত্বপূর্ণ। যা এখানকার অনেককে উদ্বিগ্ন করেছে।#সুদানরেফ।

সবশেষে তুলে ধরা হচ্ছে সুদানের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর কন্যার গণভোটের বিরুদ্ধে করা প্রতিবাদের ঘটনাটি:

স্বাধীন #সুদানের প্রথম প্রধানমন্ত্রীর কন্যা পতাকা অর্ধনমিত করে রেখেছে। প্রতিবাদ স্বরূপ সে দেওয়াল কালো কাপড়ে ঢেকে রেখেছে#সুদান

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .