বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

আইভরি কোষ্ট: সবচেয়ে জনাধিক্য কারাগারে নির্যাতনের দৃশ্য

আইভরিয়ান অনলাইন কমিউনিটির মাঝে একটি ভিডিও সম্প্রতি আলোড়ন তুলেছে। এতে দেখা যায় সামরিক বাহিনীর সদস্যরা “মেইজঁ দা অ্যারোষ্ট এ দ্যা কারেকসিওন” কারাগারে (এমএসিএ) বন্দীদের পেটাচ্ছে। ভিডিওটি পোষ্টকারির মতে বন্দীরা অ্যালাসেন ওয়াত্তারা দলের সদস্য। আইভরি কোষ্টের রাজনৈতিক দুর্যোগের শুরুতে ডজনের উপর ব্যক্তি তাদের রাজনৈতিক মতবাদের কারনে আবিদজানে গ্রেফতার হয়েছিল এবং এমএসিএ কারাগারে কারাবরণ করেছিল।

দর্শকদের ভিডিওটি মর্মাহত করেছিল। ট্রাওর টিদিআনি ফেসবুকে মন্তব্য করেছে [Fr]:

“Voila la bassesse du regime moribond de LG !!! qui dit kil veut pas la force?”

“আইন হীন মৃতপ্রায় জিবাগবো রাজত্ব এইতো! কে বলেছে সে বল প্রয়োগ করতে চায়না”

ডিসেম্বর ২০০৭ এ আন্দোলন প্রচেষ্টা কালীন লরেন্ট জিবাগবো কর্তৃক গ্রেফতার কৃত ফরাসী সাংবাদিক জিন পল নে তার ওয়েবসাইট “লে গ্রঁদ ওরেইলেস” এ ১০ই ডিসেম্বর ২০১০ তারিখে পোষ্ট করেছে একটি ভিডিও যা ২০০৮ সালে সে এমএসিএ করাগারে বন্দী থাকার সময় ধারন করা হয়েছিল। ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে মিলিটারি ফোর্স কর্তৃক অমানবিক নির্যাতনের শিকার একদল অভ্যুত্থানকারী বন্দী।

আবিদজানে ওয়াত্তারাস দলের ডাকা একটি প্রদর্শনীর সময় ঘটা হাঙ্গামার পরের দিন ২০১০ সালের ১৭ই ডিসেম্বর সেই একই সাংবাদিক তার টুইটার একাউন্টে এমএসিএ তে কারারুদ্ধ বন্দীদের সহায়তার আহ্বান জানায়:

“#civ2010: pour la MACA qui peut se mobiliser sur place et apporter de la nourriture ? Western Union impossible pour la RCI !

“#সিভ২০১০: এমএসিএ এর জন্য: যারা আবিদজানে আছে তারা কি সত্যি সত্যি বন্দীদের জন্য খাদ্য নিয়ে আসবে? রিপাবলিক অব কোষ্ট দি আইভরির তে ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন অসম্ভব!”

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .