বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মেক্সিকো: ২০ বছর বয়সী নারী উত্তর মেক্সিকোর শহরে নতুন পুলিশ প্রধান

তাঁর নাম মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া এবং তাঁকে বলা হয় “মেক্সিকোর সবচাইতে সাহসী নারী” [ স্পেন]

অপরাধ বিজ্ঞান বিষয়ের শেষ বর্ষে অধ্যায়ন করা ২০ বছর বয়সী বিবাহিত নারী ভ্যালেস গার্সিয়া চিচুওয়াহুয়ার প্রাক্সেডিস এর নতুন পুলিশ প্রধান হয়েছেন। মেক্সিকোর সবচাইতে সংঘাতপূর্ণ শহর সিউদাদ জুয়ারেজ থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটার (৬২ মাইল) দুরে প্রাক্সেডিস শহর অবস্থিত।

কিন্তু কেন তাঁকে এ গুরুত্বপূর্ণ চাকুরি টি দেওয়া হয়েছে?  দি মেক্স ফাইলস ব্লগের রিচার্ড গ্র্যাবম্যান পরিস্থিতির ব্যাখ্যা প্রদান করেছেন:

২০ বছর বয়সী  অপরাধ বিজ্ঞানের ছাত্রী মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া একমাত্র প্রার্থী যে জননিরাপত্তা বাহিনীকে হুকুম করার জন্য এগিয়ে এসেছে। শহরের নতুন শেরিফ (এবং মেক্সিকোর তরুণতম পুলিশ প্রধান) একটি ছোট ডিপার্টমেন্টের তত্ত্বাবধান করেন যেখানে প্রতি কমিউনিটির জন্য সর্বোচ্চ দু’দফায় কর্মকর্তাদের পরিক্রমণ বা পেট্রোলের ব্যবস্থা রয়েছে।

২১ বছর বয়সী ব্লগার ক্রিস্টিয়ান গার্সিয়া এ বিষয়ে মন্তব্য করেন:

El alcalde de ese municipio, buscaba un Jefe de Policía, y después de repasar a todos los hombres que tenia dentro de la corporación, Marisol se levanto y dijo: “Aquí toda la gente tiene miedo, todos tenemos miedo, pero vamos a cambiar ese miedo por seguridad”

Y para demostrar su valor, ayer Marisol se dejo fotografiar con la cara descubierta, mostrando así que en Mexico aun hay personas valientes que están dispuestas a luchar contra el narcotráfico y el crimen organizado.

এ শহরের মেয়র একজন পুলিশ প্রধানের খোঁজে ছিলেন। কর্পোরেশনের অভ্যন্তরের সবাইকে পর্যবেক্ষণের পর মারিসোল দাড়ালেন এবং বললেন: “ এখানে আমরা সবাই ভীত,সন্ত্রস্ত এসো সবাই মিলে ভয়কে নিরাপত্তায় পরিনত করি”

মারিসোল তাঁর সাহস প্রমানের জন্য গতকাল নিজের উন্মুক্ত মুখাবয়বের ছবি প্রদর্শন করে এ কথা প্রমান করার জন্য যে, সংঘবদ্ধ অপরাধ এবং মাদক পাচারের বিরুদ্ধে স্বেচ্ছায় যুদ্ধ করার জন্য মেক্সিকোতে এখনো কিছু সাহসী মানুষ আছে।

সংবাদ ভিত্তিক ওয়েবসাইট লা পোলাকা [স্পেন] এক নিবন্ধে উল্লেখ করে যে,“ পুলিশ প্রধান তো নয়ই বরঞ্চ পুলিশ হতেও কোন পুরুষ আগ্রহী নয় কারন, অনেক পোষাকধারীর খুন হওয়ার  মত তাদেরও খুন হওয়ার ভয় রয়েছে।”

বর্তমানে মেক্সিকান নাগরিকগণ এবং সারা বিশ্বের জনগণ যারা ভ্যালেস গার্সিয়ার বিষয়টি জানে তাঁরা এ বিষয়ে টুইটারে আলাপ-আলোচনা শুরু করেছে। ওহাইয়ো থেকে টুইটার ব্যবহারকারী এডাম ডি.প্রিন্স (@rabbitcincouno) বলেন:

#সপ্তাহের নায়ক পদকটি পেলেন ২০ বছর বয়সী অপরাধ বিজ্ঞানের শিক্ষার্থী মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া, যিনি মেক্সিকোর গুয়াডালুপের পুলিশ প্রধান হয়েছেন।

মেক্সিকোর ভেরাক্রুজ এর লরা রুইজ(@YoSoyBereNice) বলেন:

Marisol Valles García de 20 años encabeza policía en Chihuahua.-Para que vean quien lleva los pantalones por allá.

২০ বছর বয়সী মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া চিহুয়াহুয়ার পুলিশ প্রধান হয়েছেন যিনি সেখানকার একমাত্র সাহসী ব্যক্তি।

অভিনেতা টম ক্রুজ, (@TomCruise) ও বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করেছেন:

২০ বছর বয়সী মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া প্রকৃত জীবনের নায়ক যে মেক্সিকোর সবচাইতে সংঘাতপূর্ণ শহরের পুলিশ প্রধান।চলুন আমরা তাঁকে সমর্থন জানাই: http://bit.ly/ata0wm

সর্বশেষ পেরিদিস্তা ডিজিটাল [স্পেন] ব্লগে হারমোসিল্লো বিষয়টিকে এবং ভ্যালেস গার্সিয়াকে তাঁর এলাকার গর্ব হিসাবে গুরুত্ব দিয়ে বলেন:

Sin duda alguna una vez más la enaguas de la bella y valiente mujer de Chihuahua pone en alto a su región.

De todas maneras bienvenidos los comentarios ya que ELLA, MARISOL VALLES GARCÍA, así con mayúsculas, fue única que aceptó el cargo.

সন্দেহাতীতভাবে আবারো একজন সাহসী ও সুন্দরী নারীর “স্কার্ট”চিহুয়াহুয়া অঞ্চলকে সুনামের অধিকারী করেছে।

যাহোক আমরা এ নারী মারিসোল ভ্যালেস গার্সিয়া যে চাকুরি গ্রহণ করেছে তার জন্য তাঁকে এই বড় অক্ষরগুলোর মতই স্বাগত জানাই।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .