বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইরান: ছাত্র দিবসে বিক্ষোভের পরিকল্পনা চলছে

ডিসেম্বরের ৭ [ ১৬তম আজার] তারিখে ইরানের ‘ছাত্র দিবস’ এর প্রাক্কালে ইরানের ছাত্রদের প্রতি অত্যাচারের প্রতিবাদ বিশ্বব্যাপী আয়োজন করা হচ্ছে। গত বছর হাজার হাজার প্রতিবাদকারী ইসলামী শাসকদের উপেক্ষা করে ছাত্র দিবসের দিনে। তারা সরকারের পররাষ্ট্র নীতির প্রতিবাদ জানিয়ে ইসলামিক প্রজাতন্ত্রের নেতা আলি খামেনির বিরুদ্ধে স্লোগান দেয়। আর তারা ‘আমার ভোট কোথায়?’ বলেও স্লোগান দিয়েছেন।

লন্ডন থেকে সবুজের বার্তা

লন্ডন গ্রীন মুভমেন্ট একটা গণ ইমেইলের মাধ্যমে আমন্ত্রন জানিয়েছে লন্ডনবাসীকে:

১৬ আজার সব সময়ে ইরানী ছাত্র বিদ্রোহের প্রতীক হিসাবে ধরা হয়েছে যা স্বেচ্ছাচারিতা প্রতিরোধ করে আর গণতন্ত্র আর স্বাধীনতার দাবি করছে ১৯৫৩ সাল থেকে। তারপরেও প্রত্যেকবার দমনের চেষ্টা করা হয়েছে, যতই অসফল হোক না কেন, স্বৈরশাসক দ্বারা ছাত্রদের কণ্ঠ রোধ করার জন্য! আবারো, আমরা ইরানী ছাত্রদের সাথে দাঁড়াব তাদের গণতন্ত্র আর স্বাধীনতার জন্য সংগ্রামে, সেই সকল সাহসী ব্যক্তিদের স্মরণ করে যারা তাদের অধিকারের জন্য দাঁড়িয়েছেন আর অত্যাচারী আই আর আই কে দমন আর পক্ষপাতিত্বের বিরুদ্ধে বলেছেন, মাজিদ তাভাকোলিসহ আরো ৭০ জন ছাত্র যারা তখন থেকে বন্দী আছেন আর আরো অনেকে যাদেরকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বের করে দেয়া হয়েছে ইরান ব্যাপী তাদের বাক স্বাধীনতা আর জমায়েত হওয়ার অধিকারকে কাজে লাগাবার জন্য!

এই উপলক্ষ্যে একটা ইউটিউব ভিডিও বের করা হয়েছে ইরানী বিক্ষোভ প্রচারণার উপর বেশ কিছু ছবি দিয়ে।

খালি চেয়ারের বিক্ষোভ:

পলিটিক্সঅফরেসিস্টেন্স নেদারল্যান্ড থেকে লিখেছেন:

ইরানী ছাত্রদের লাগাতার হয়রানির মুখে, আমরা খালি চেয়ারের একটা প্রতিবাদ করেছি রিটভেল্ড একাডেমি শিল্প আর ডিজাইনের আমস্টারড্যামে। ছাত্ররা বাড়িতে প্রবেশ করে খালি চেয়ারের একটা শ্রেনী কক্ষ দেখবেন। কেউ কেউ এই তথ্য পড়ে তাদের কাজে লেগে যাবেন।

অন্যরা হয়তো বসে ইরানের আর একজন ছাত্রের জন্য কিছু লিখবেন। এই বার্তা অল্প কারো কাছে বা তাদের পরিবারের কাছে পাঠানো হবে।

এই সাইটও বেশ কিছু ছবি প্রকাশ করেছে (একটা উপরে) আর বলেছে:

এখন প্রায় ১০০ জন ছাত্র জেলে আছেন। ১০০ জনের উপরের ছাত্রকে বহিষ্কার করা হয়েছে আর ইরানের বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রবেশ থেকে অগুন্তি সংখ্যক ছাত্রকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় জীবন্ত

ইরানী ব্লগার আবাই বলেছেন ১৬তম আজারের পরিকল্পনা দেখাচ্ছে যে বিশ্ববিদ্যালয় এখনো জীবন্ত তার শরীরের সকল ক্ষত সত্ত্বেও। ব্লগার বেশ কয়েকজন জেলে থাকা আর সাজাপ্রাপ্ত ব্লগারের নাম করেছেন যার মধ্যে মাজিদ তাভাকোলি আছেন।

ইউটিউবে আর একটা ভিডিও দাবি করছে তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদের জমায়েত হয়ে ‘স্বৈরচারী নিপাত যাক’ স্লোগান দিতে ডিসেম্বর ৬ তারিখে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .