বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

ইন্দোনেশিয়া: ৪৮ ঘন্টার ভিতর ভূমিকম্প, সুনামি আর আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাত

জোগজাকুর লাভা উদগিরণ এর ফেসবুক পাতা থেকে ছবি নেয়া

ইন্দোনেশিয়ায় প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ঘটনা নতুন কিছু না যেহেতু প্যাসিফিক রিং অফ ফায়ারে এর অবস্থান ঝড়, ভূমিকম্প আর আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যুৎপাতের ঝুঁকি বাড়ায়। কিন্তু গত সপ্তাহে, ইন্দোনেশিয়া বেসামাল হয়ে পড়ে যখন ভূমিকম্প, সুনামি আর অগ্ন্যুৎপাত দ্বীপগুলোকে একযোগে আঘাত হানে ৪৮ ঘন্টার কম সময়ে। মৃতের সংখ্যা মনে করা হচ্ছে ৫০০ ছাড়িয়ে যাবে আর হাজার হাজার পরিবারের জরুরী সাহায্য দরকার।

ফেসবুকে এরই মধ্যে এই ত্রয়ী আঘাতের ফলে ক্ষতির ছবি আপলোড করা হয়েছে। মেরাপি পাহাড়ের অগ্ন্যুৎপাতের ছবি দেখার জন্য এখানে ক্লিক করুন, বিশ্বের সব থেকে জীবন্ত আর ভয়ংকর আগ্নেয়গিরিগুলোর অন্যতম। ওদিকে মেন্তাওয়াই দ্বীপ সুনামির কবলে পরে আর এখানে তার ছবি। মেন্তাওয়াই এর মানচিত্র এখানে দেখা যাবে

জাকার্তা থেকে টুইটার প্রতিক্রিয়ার কয়েকটি:

মেলিডজি: অনেক প্রাকৃতিক দুর্যোগের ঘটনা ইন্দোনেশিয়াকে আঘাত করেছে, সত্যিই দু:খজনক…দাবানল, ভূমিধ্বস, ভূমিকম্প, বন্যা, সুনামি। #ইন্দোনেশিয়ার জন্য আমরা প্রার্থনা করি।
ভেরানোতারিজা০৯: রিটুইট@ডেভিনোলিভার: ভূমিকম্প, বড় ধরনের সুনামি, বন্যা আর একটা অগ্ন্যুৎপাত সব গত ৪৮ ঘন্টায় ঘটেছে। দয়া করে ইন্দোনেশিয়ার জন্য প্রার্থনা করুন।
মারশাওয়েনুর: @রয়টা_এসডাব্লু ইয়ে, যে স্থানে সুনামি ঘটেছে তা অনেকটাই বিচ্ছিন্ন, এটি ছোট্ট একটা দ্বীপ। তাই উদ্ধারকর্মীদের পক্ষে ওখানে পৌঁছানো কিছুটা কঠিন। এটি দু:খজনক।
নিনরেক্স: রিটুইট@রাধিয়ালিয়ানি: মেরাপির অগ্ন্যুৎপাত, মেন্তাওয়াই আর আচে তে সুনামি, জোগজা আর তাসিকে ভূমিকম্প, সব এক তারিখে ঘটেছে: ২৬ তারিখে
উনিলিমাওয়ান: #ইন্দোনেশিয়ার জন্য প্রার্থনা বজায় রাখুন, ভূমিকম্প, সুনামি, অগ্ন্যুৎপাত, বন্যা ইত্যাদি যা ঘটেছে তা পুনর্নির্মাণের প্রয়োজন। ইশ্বর আমাদের দেশকে উদ্ধার করুন।
মাইবনাই: ওয়াসিওর, মেন্তাওয়াই আর মাউন্ট মেরাপি (ইন্দোনেশিয়া) তে আমাদের আক্রান্ত বন্ধুদের সমর্থনে একত্র হই।
গুপ্তা১৯৭৮: এমন সময়ে আমার উপলব্ধি হয়, মেন্তাওয়াই আর মেরাপির আমার ভাই বোন আপনাদের তুলনায় আমাদের এখানে ভূমিকম্পন কিছুই না। ইশ্বর আপনাদের বাঁচিয়ে রাখুন!
ট্যাটারস্কুপ্স: সুপ্রভাত! জাকার্তায় আজ আর একটি মেঘলা দিন। মেন্তাওয়াই, মাউন্ট মেরাপির প্রতি আমার চিন্তা রইল আর পাপুয়ার ওয়াসিওর এর মানুষদের আমরা যেন না ভুলে যাই
ফাধিলাআগাস্টিনা: মেন্তাওয়াই আর মধ্য জাভার শিকারদের জন্য কেবল প্রার্থনা করা সাহায্য করছে না, বেঁচে থাকার জন্য তাদের আরো খাদ্য, কাপড় আর ঔষধ দরকার…

সম্প্রতি সুনামির ধ্বংসলীলা আর এই মাসের প্রথম দিকে পশ্চিম পাপুয়াতে যে হঠাৎ বন্যা হয়েছিল তা সবাইকে কয়েক বছর আগের আচের সুনামির ধ্বংসের কথা মনে করিয়ে দিয়েছে।

ছবি জোগযাকুর ফেসবুক পাতা থেকে

সঙ্গীত শিল্পী জাস্টিন বিবারের সমর্থন বার্তা কিছু নেটিজেন ব্যবহার করেন সরকারের ‘দেরীতে সাড়া’ কে তুলে ধরার জন্য

জাস্টিনবিবার: এখুনি ইন্দোনেশিয়ার ভূমিকম্পের কথা জানতে পেরেছি। সবাই দয়া করে ওখানের মানুষের জন্য প্রার্থনা করুন #প্রে ফর ইন্দোনেশিয়া

মার্টিনমানুরুং: রিটুইট@হান্সদাভিদিয়ান: প্রিয় জনাব প্রেসিডেন্ট, @জাস্টিনবিবার আপনাকে হারিয়ে দিয়েছে আপনার দেশের মানুষের ব্যাপারে চিন্তা প্রকাশে। আপনি আপনার জাতির জন্য একটা লজ্জা।

#প্রে ফর ইন্দোনেশিয়া টুইটার হ্যাশট্যাগ অনেক দিনের জন্য বিশ্বের সবচেয়ে আলোচ্য বিষয় হিসাবে ছিল।

এখানে মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর আর ম্যানিলার টুইটারের কিছু উদাহরণ দেয়া হলো।

#prayforindonesia global conversation on trendsmap


ত্রান কার্যক্রম অনেক দল দ্বারা সমন্বিত হচ্ছে, আর ব্লগিং সমাজ

* ইন্দোনেশিয়ার রেড ক্রস: বিসিএ অ্যাকাউন্ট নং: ০৩৫৩১১২২৩৩: আকাউন্ট নাম; পালাং মেরাহ ইন্দোনেশিয়া
* লাজিজ মুহাম্মাদিয়া: বিসিএ নং ৮৭৮০১৭১১৭১; মান্দিরি নং ১২৩০০৯৯০০৮৯৯৯; বিএনআই শরিয়া নং ০০৯১৫৩৯৪৪৪
* ব্লগার সমাজ: জিনিষ পৌঁছাচ্ছেন ইস্মিরা লুতফিয়া আর নুরফিকা ওসমান, জালান লাংসুত১ নং ১৬, মায়েস্টিক, দক্ষিণ জাকার্তা

ক্যাফে সালেম্বা বিভিন্ন সংস্থা আর ব্যক্তির দুর্যোগে সাড়ার ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন

মেন্তাওয়াই সুমাত্রার সুনামিতে ক্ষতিগ্রস্তদের প্রতি আমার সমবেদনা আর এই সপ্তাহে মধ্য জাভার মাউন্ট মেরাপির অগ্ন্যুৎপাতের প্রতিও।

হায়, একই জিনিষের পুনরাবৃত্তি ঘটে: সরকার কর্তৃক ধীর গতির সাড়া আর ঢিমে তালের সমন্বয়, বোকা মন্ত্রী মানুষকে দোষ দিচ্ছেন ঈশ্বরের আইন না মেনে চলার জন্য, মিডিয়ার ভুল, অসংবেদনশীল নেটিজেন কর্তৃক ভুক্তভোগীদের বীভৎস ছবি প্রকাশ করেছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .