বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মারিও ভার্গাস লোসার সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার নিয়ে ল্যাটিন আমেরিকানরা মন্তব্য করেছেন

অক্টোবরের ৭ তারিখে ‘মারিও ভার্গাস লোসা’ বিশ্বব্যাপী টুইটারের ট্রেন্ডিং টপিকে (বহুল আলোচিত বিষয়ে) পরিণত হয়, যখন ল্যাটিন আমেরিকানরা এই সংবাদ পান যে পেরুর এই লেখক সাহিত্যে নোবেল পুরষ্কার পেয়েছেন। এই ঘোষণা মূলত ল্যাটিন আমেরিকার সাহিত্য আর স্প্যানিশ ভাষার বিজয় হিসাবে দেখা হচ্ছে। ভয়েস অফ আমেরিকা তাদের প্রতিবেদনের শিরোনাম দিয়েছেন ‘পেরুর লেখক বলেছেন তার নোবেল পুরষ্কার ল্যাটিন আমেরিকার সাহিত্যের প্রতি সম্মাননা।‘ ল্যাটিন আমেরিকাবাসী ব্লগ আর টুইট বার্তার মাধ্যমে এই ঘোষণা সম্পর্কে তাদের বিভিন্ন মতামত জানিয়েছেন।

মেক্সিকো থেকে আলফ্রেদো গুজমান (@আইডিয়াসডেলমাজা) মনে করেন যে ভার্গাস লোসার নোবেল জেতা একটা অপমান আর হুম্বের্তো গার‌সিয়া নেরি (@হাচিওঅফিসিয়াল) টুইট করেছেন:

¿Celebrar a Vargas Llosa? Mejor celebren a los Incas y la belleza de su pueblo. Perú es hermoso.

ভার্গাস লোসার নোবেল প্রাপ্তি উদযাপন? এর থেকে ভালো হবে যদি ইনকা সভ্যতা আর তোমাদের নিজের লোকের সৌন্দর্যকে উদযাপন করা হয়। পেরু সুন্দর।

অন্য দিকে, মেক্সিকোর লেখক আলবার্তো চিমাল (@আলবার্তোচিমাল) বলেছেন যে তিনি খুশি যে ভার্গাস লোসা এই পুরষ্কার পেয়েছেন। ট্রাইনো মালদোনাডো (@ট্রাইনো) মেক্সিকোর ওয়াক্সাকার একজন লেখক আর দীর্ঘ সময় ধরে নোবেল পুরষ্কারের প্রার্থী ৮১ বছর বয়সী মেক্সিকোর লেখক কার্লোস ফুয়েন্তেসের নাম নিয়েছেন:

Sólo una persona en el mundo ambicionaba más ese premio. Carlos Fuentes debe estar retorciéndose en su tumba. Momento. ¿O sigue vivo?

বিশ্বে আর একজন মাত্র ব্যক্তি এই পুরষ্কারের জন্যে বেশী যোগ্য ছিলেন। কার্লোস ফুয়েন্তেস তার কবরে মনে হয় উঠে বসেছেন। এক মুহূর্ত দাঁড়ান। তিনি কি এখনো জীবিত আছেন?
মারিও ভার্গাস লোসা

মারিও ভার্গাস লোসা। ছবি ফ্লিকার ব্যবহারকারী ডানিয়েল দাদেভোতির সৌজন্যে ও ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের আওতায় ব্যবহৃত

দিন যতো বাড়তে লাগলো, ল্যাটিন আমেরিকার সব স্থান থেকে ব্লগাররা পোস্ট করতে থাকলেন এই পেরুর লেখকের সম্মানে।

আর্জেন্টিনার ব্লগার হুয়ান কার্লোস লিঞ্চ বলেছেন যে টুইটারের মাধ্যমে তিনি এই সংবাদ জানতে পেরেছেন। তিনি বলেছেন যে মারিও ভার্গাস লোসার ছেলে আল্ভারোর সাথে তার সরাসরি সম্পর্ক আছে, আর এর ফলে, তিনি এই নোবেল বিজয়ীর সাথে বেশ কয়েকবার সাক্ষাৎ করেছেন আর কথা বলেছেন। হুয়ান কার্লোস মারিও ভার্গাস লোসাকে বর্ণনা করেছেন:

un gran señor. Un hombre alto, de pelo blanco, mirada muy profunda y gesto duro, que está siempre impecablemente vestido. Que inspira respeto. Pero esa imagen esconde a un gran ser humano. No sólo una persona de trato afable y un interesante sentido del humor, sino además un hombre de convicciones firmes, “familiero”, apasionado por todo lo que hace y, sobre todo, sumamente generoso.

মহান এক ব্যক্তি, লম্বা সাদা চুলের, গম্ভীর যিনি সব সময়ে নিখুঁত ভাবে পোশাক পরেন। এর ফলে সম্মান জেগে ওঠে তার প্রতি। কিন্তু এই চিত্র মহান একটা মানুষকে আড়াল করে রাখে। কেবলমাত্র ভালো একজন মানুষ হিসাবে না যার বেশ মজা করার স্বভাব আছে বরং নীতিবান একজন মানুষ, ‘একজন পারিবারিক মানুষ’ যিনি যা করেন তা খুব মন দিয়ে করেন আর সর্বোপরি খুব বড় মনের।

ভেনিজুয়েলার লেখক আর গবেষক মার্থা কোল্মেনারেস তার ব্লগে লিখেছেন:

Me da muchísima alegria el Premio Nobel de Literatura 2010 al escritor peruano Mario Vargas Llosa a quien tuve la oportunidad de conocer y entrevistar para mi libro “La otra Piel” junto a la escritora Norka Armand, hace unos años, y aparte de nuestra admiración por su obra, quedamos deslumbradas por su personalidad.

আমি ২০১০ সালের সাহিত্যে নোবেল বিজয়ী পেরুর লেখক মারিও ভার্গাস লোসার জন্য খুব আনন্দিত কারন লেখক আরমান্ড নোর্কাকে সাথে করে কয়েক বছর আগে তার সাথে দেখা করে আমার বই ‘এনাদার স্কিন’ এর জন্য তার সাক্ষাৎকার নিয়েছিলাম। আর তার কাজের প্রতি সম্মান দেখানো ছাড়াও তার ব্যক্তিত্ব দেখে আমরা অভিভূত হয়ে পড়েছিলাম।

বলিভিয়া থেকে এল ক্লাভো এন এল জাপাতো ব্লগের ফাড্রিক ইগ্লেসিয়াস মেন্ডিজাবাল তার ব্যক্তিগত অভিজ্ঞতা জানিয়েছেন ভার্গাস লোসা সম্পর্কে:

Fue el primer autor que pude leer con atención en mi adolescencia. […] Se cierra un ciclo de grandes escritores. Ahora quedan los nuevos, sus sucesores aunque es muy aventurado soltar nombres.

কৈশোরে মনোযোগ দিয়ে পড়া আমার প্রথম লেখক তিনি। মহান লেখকদের একটা পর্যায় এখন শেষ হচ্ছে। তাদের উত্তরাধিকার, তরুণ লেখকরা এখন বেঁচে আছেন, যদিও নামোল্লেখ ঝুঁকিপূর্ণ হতে পারে।

ফাড্রিক এর পরে আন্দেজ অঞ্চলের দুইজন তরুণ ল্যাটিন আমেরিকান লেখকের কথা বলেছেন: ড্যানিয়েল আলার্কন আর রড্রিগো হাসবুন

গুয়েতেমালা থেকে মারিও কর্ডেরো তার ডিয়ারিও পারানোয়কো ব্লগে ব্যাখ্যা করেছেন যে ভার্গাস লোসার কিছু সমালোচক যারা তার রাজনৈতিক মতাদর্শের সাথে একমত নন তারা মনে করেন তিনি নোবেল পুরষ্কারের যোগ্য নন। তিনি বলেন:

Sí, Vargas Llosa es de derecha, políticamente hablando. Pero el Nobel no es un premio político (o al menos, no debería ser tomado como esto). Es un premio literario. […] Entonces, habría que resaltar que Vargas Llosa es un excelente escritor, y su premio lo respalda con calidad literaria.

হ্যাঁ ভার্গাস লোসা রাজনৈতিকভাবে ডানপন্থী। কিন্তু নোবেল তো রাজনৈতিক পুরষ্কার না (অন্তত ওইভাবে দেখা উচিত না)। এটা সাহিত্যের পুরষ্কার। [..] তাই এটাই লক্ষ্য করা উচিত যে ভার্গাস লোসা চমৎকার একজন লেখক, আর তার পুরষ্কারের পিছনে সাহিত্যের গুণ আছে।

তিনি শেষ করছেন এই বলে:

Aprendamos esa lección: separemos al Vargas Llosa escritor, que merece el Nobel, y el Vargas Llosa político, que podría no simpatizar con todos.

এই শিক্ষা আমরা গ্রহণ করি: আমরা ভার্গাস লোসা লেখক যিনি নোবেল এর যোগ্য আর ভার্গাস লোসা রাজনীতিবিদকে পৃথক করি, যাকে সবাই পছন্দ নাও করতে পারেন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .