বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়া: রেডিও ডিজের বিড়াল ছুঁড়ে মারার ভিডিও ক্ষোভের সৃস্টি করেছে

দুই মাস আগে মেডেলিনের ডিজে ইওহান মেলগুইজোর ফেসবুকে আপলোড করা একটি ভিডিও কলম্বিয়ার মেডেলিনের পশুপ্রেমীদের মধ্যে ক্ষোভের সৃস্টি করেছে। এই ডিজে এনার্জিয়া নামে একটি রেগি গানের রেডিও স্টেশনে কাজ করেন এবং তিনজন মানুষের উপস্থিতিতে তার এই ভিডিওতে মনে হচ্ছে যে একজন একটি বিড়াল কে উপরে ছুঁড়ে দিচ্ছে চোম্বোর দ্যা ফ্লাইং ক্যাট গানটি গাওয়ার সাথে সাথে। বাকী দুইজনকে চিহ্নিত করা গেছে ড্যানি লোপেজ এবং সান্টিয়াগো আগুডেলো গুটিয়েরেজ নামে এবং কিছু মন্তব্যে এসেছে যে আগুডেলোই বিড়ালকে ছুড়েছেন এবং অন্যরা তা দেখেছেন ও ভিডিও করেছেন। (সম্পাদন করা হয়েছে: ডিজের ফেসবুক পাতা থেকে পরে এই ছবিটি সরিয়ে ফেলা হয়েছে)

ফেসবুকে অন্যেরা এই ভিডিও চালাচালি করা শুরু করেছে এবং কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ করেছে এর প্রতিকার করতে। যদি আমরা এক ব্রিটিশ মহিলার সাম্প্রতিক ভিডিও নিয়ে হৈ চৈ এর ঘটনা দেখি, যেই ভিডিওতে দেখা গেছে যে তিনি একটি আবর্জনার ক্যানে একটি বিড়াল কে ফেলে দিচ্ছেন, তাহলে আশা করা যায় যে মেডেলিনের বিড়াল ছুঁড়ে মারা এই গায়করাও এর দায়িত্ব স্বীকার করবেন।

(সম্পাদনা করে যোগ করা হয়েছে:)

এই আর্টিকেল প্রকাশের পরে ফেসবুকে আরও তথ্য এসেছে। জুলিয়েন অর্তেগা একটি নোটে পাঠিয়েছেন:

Me enteré hace un momento (por esta página de FB) de que el video que publicaron los reguetoneros ya circulaba desde antes en la red. Mira: http://www.cronica.cl/noticias/site/artic/20100202/pags/20100202164430.php y http://www.facebook.com/video/video.php?v=1362072454224 (total, los tipos aparecieron lavándose las manos y diciendo que eso era ‘de un HP costeño’.

আমি কিছুক্ষণ আগে দেখতে পেলাম (এই ফেসবুক পাতার মাধ্যমে) যে রেগ্গাটনের ভক্তদের প্রকাশ করা ভিডিওটি বেশ আনেক যায়গায় ছড়িয়েছে। দেখুন:
http://www.cronica.cl/noticias/site/artic/20100202/pags/20100202164430.php এবং http://www.facebook.com/video/video.php?v=1362072454224 (শেষে দেখা যায় সেই ব্যক্তি তার হাত ধুয়ে ফেলে এবং বলে যে ভিডিওর মানুষটি কলম্বিয়ার উপকূল অঞ্চল থেকে এসেছে।)

ফেসবুকে একটি দল খোলা হয়েছে যারা মেলগুইজোকে অনুরোধ করছে যে এগিয়ে এসে ব্যাখ্যা করতে যে কেন তিনি ভিডিওটি পোস্ট করেছেন (যদিও তিনি জড়িত ছিলেন না) এবং তিনি কেন এর প্রতিবাদ করেন নি। এই দল আলোচিত এই ভিডিওটির একটি অনুলিপি প্রকাশ করেছে, যার মূলটি ডিজের ফেসবুক পাতা থেকে সরিয়ে ফেলা হয়েছে। এই দলে আলোচিত ডিজে ভিডিওটির ব্যাপারে তার মতামত দিয়েছেন কয়েক ঘন্টা আগে:

Señores 1ro Que Todo Saludo Recargado De Energia segundo heyy El del
Video no soy Yo, 1ro ese Hp es costeño y ese fukcing video me lo
mandaron por coreo y simplente lo comparti en el facebook por que me
parecio asqueroso, y ay dejen de andar mandando mensajes sin saber bn las cosas

জনাব-জনাবারা, প্রথমে আমি পুনরুৎপন্ন কৃত শক্তির সাথে আপনাদের শুভেচ্ছা জানাই, এবং দ্বিতীয়ত এই ভিডিওর লোকটি আমি নই। এই লোকটি (গালি দিয়ে) উপকূলীয় অঞ্চল থেকে এসেছে এবং ভিডিওটি আমার কাছে মেইলে পাঠানো হয়েছে। আমি শুধুই এটি ফেসবুকে ছেড়েছি কারণ এটি আমার কাছেও খারাপ লেগেছে এবং সব কিছু জানবার আগে অনুগ্রহ করে বার্তা পাঠানো বন্ধ কর।

মোলগুইজো তার ফেসবুক ভিডিও থেকে মন্তব্য মুছেছে যেখানে বার্তাগুলো বোঝাচ্ছিল যে এই শিল্পীই বিড়াল ছোড়ায় রত ছিল। কিন্তু জুয়ান ডেভিড হুরতাদো তার ব্লগে যেমন জানিয়েছেন যে ইন্টারনেটে স্ক্রিন ক্যাপচার দ্রুতই করা হয়েছে:

Dejo aquí el video y capturas de pantalla obtenidas por dos usuarios en las cuales se ve claramente algunos comentarios ya borrados en los que incluso, uno de sus compañeros tilda a “La rata” como el autor material del hecho. Por ahí dicen que el que nada debe, nada teme… ¿por qué habrán borrado esos comentarios?

আমি এখানে ভিডিওটি পোস্ট করব এবং দুজন ব্যবহারকারী কর্তৃক স্ক্রিন ক্যাপচার করা মন্তব্যগুলোও তুলো দেব যেখানে ইঙ্গিত করা হয়েছে যে দোষী ব্যক্তিটি কে। এখানে তারা বলে যে যারা দায়িত্ব স্বীকার করে না তারা কোন কিছুর ভয় করে না.. তারা কমেন্টগুলো মুছল কোন?

চিলির আন্তোফাগাস্তায় একজন মানুষ এই ভিডিও পোস্ট করার পরে তার বিরুদ্ধে অভিযোগ আনা হয় বিড়াল ছোড়ার এবং সে তাড়াতাড়ি ক্ষমা চায়। সে পত্রিকায় লিখেছে যে সে বুঝতে পেরেছে যে সে ফেসবুকে ভিডিওটি তুলে দিয়ে একটি ভুল করেছে এবং সে অন্যান্যদের আহত করতে চায় নি। সে আরও বলেছে যে ভিডিওটি তৈরিতে তার কোন হাত ছিল না।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .