বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

মিশর: তালাক নেওয়া কপ্টরা কি পুনরায় বিয়ে করবে?

কপ্ট চার্চের প্রধান পোপ তৃতীয় সেনুডা তালাক বা বিবাহ বিচ্ছেদ গ্রহণ করা কপ্টদের পুনরায় বিয়ে ব্যাপারে যে নীতি প্রকাশ করেছিলেন মিশরীয় সর্বোচ্চ প্রশাসনিক আদালত সে ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারী করেছে। আদালত কপ্ট বিবাহ বিচ্ছেদ গ্রহণ করা নাগরিককে পুনরায় বিয়ের ব্যাপারে অনুমতি প্রদান করেছে। কপ্টরা মিশরের আদিবাসী খ্রিস্টান এবং উইকিপিডিয়ার সূত্রানুসারে,

পুরো মধ্যপ্রাচ্যে মধ্যে মিশরের কপ্টরা সবচেয়ে বড় খ্রিস্টান সম্প্রদায় এবং এই অঞ্চলে তারা সবচেয়ে বড় সংখ্যালঘু সম্প্রদায়। মিশরের ৮ কোটি জনতার মধ্যে খ্রিস্টান সম্প্রদায় ২০ শতাংশের কম বেশির প্রতিনিধিত্ব করে অথবা তারা ৬ শতাংশের সামান্য বেশি, যদিও এই হিসেব প্রচণ্ড কম বেশি (এর জন্য মিশরে ধর্মীয় জনগোষ্ঠীর সংখ্যা দেখুন)। খ্রিস্টান জনসংখ্যার আবার ৯৫ শতাংশ স্থানীয় আলেকজান্দ্রিয়ার কপ্ট চার্চের অধীন। অবশিষ্ট (প্রায় ৮০০,০০০) জন কপ্ট ক্যাথলিক এবং অন্যরা বিভিন্ন কপ্ট প্রোটেস্টান্ট চার্চের অনুসারী।

মিশরে কপ্টদের বিয়ে, বিচ্ছেদ এবং পুনরায় বিয়ে বেশ সংবেদনশীল বিষয়

মুসলমানদের বিয়ে পুরোপুরি আইনগত বন্ধন। যেখানে মাজউন এক মুসলিম বিয়ে নিবন্ধনকারী সরকারি কর্মচারি। কিন্তু একই সাথে সে বিচার মন্ত্রণালয়ের অধীনে আদালতে গিয়ে বিয়ে করার ক্ষেত্রেও (সিভিল ম্যারেজ) বিয়ের নিবন্ধনকারী বটে। কিন্তু খ্রিষ্টান সম্প্রদায়ের ক্ষেত্রে তাদের ধর্মীয় বিয়েকে বৈধতা দেবার জন্য তাদের অবশ্যই সরকারি (সিভিল) কর্তৃপক্ষের কাছে নিবন্ধিত করতে বাধ্য। এই বিষয়টি চার্চকে প্রভূত ক্ষমতার অধিকারী করেছে; যদিও খ্রিষ্টানরা সাধারণ বা রাষ্ট্রীয় আইনে বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটাতে পারে। যদি তারা সাধারণভাবে রাষ্ট্রীয় আইনে বিয়ে বিচ্ছেদ ঘটায়, সেক্ষেত্রে চার্চ পুনরায় তাদের বিয়ে দেয় না। এর ফলে রাষ্ট্র নতুন করে বিয়ে করা দম্পতিদের স্বীকৃতি দিতে পারে না।

এই বিষয়টি কপ্ট অর্থোডক্স খ্রিষ্টানদের বিশেষ ভাবে প্রভাবিত করেছে, বিশেষ করে যখন পোপ তৃতীয় সেনুডা তার দল নিয়ে আরো রক্ষণশীল এক পথ বেছে নেন। ১৯৭১ সালে আলেকজান্দ্রিয়ার ইভানজেলিস্ট (সেন্ট মার্ক দি ইভানজেলিস্ট) চার্চের ১১৬ তম উত্তরসূরি হন। স্বল্প সংখ্যক কপ্ট অর্থোডক্স ইভানজেলিক খ্রিষ্টানদের সাথে যোগদান করেছে, যাদের দেখা হয় অনেক বেশি ধর্মীয় আচার পালনকারী, কিন্তু এর দ্বারা কম ভারাক্রান্ত জনগোষ্ঠী। যারা অনেক বেশি কল্যাণের প্রতি মনোযোগী এবং বিয়ে ও তালাকের প্রতি অনেক নমনীয়। রক্ষণশীল চার্চগুলো খুব কমই বিবাহ বিচ্ছেদের অনুমতি প্রদান করে এবং কেবলমাত্র পোপের কাছে বিশেষ দরখাস্ত প্রদানের পরই বিবাহ বিচ্ছেদের অনুমতি মেলে।

চার্চের সমর্থক এবং ধর্ম নিরপেক্ষতার প্রচারকরা নিজ নিজ মন্তব্য নিজেদের ব্লগে প্রকাশ করেছ। প্রথমে তারা বিষয়টি নিয়ে ফেসবুকে আলোচনা করেছে।

চার্চের স্বাধীনতা রক্ষার জন্য ফেসবুকে একটি বিশেষ পাতা খোলা হয়েছে:

كلنا مع الكنيسة ضد الزواج التانى وقضاء الدولة المتأسلم
আমরা দ্বিতীয় বিয়ের বিষয়ে চার্চের যে অবস্থান তার পক্ষে এবং রাষ্ট্রের ইসলামি আইনের বিপক্ষে।
قضاء مصر المخترق من الجماعات الاسلامية المتعصبة يحاول ان يلزم الكنيسة ويجبرها على ان تقوم بعقد زواج ثانى للاقباط الذين طلقتهم المحكمة
وكل هذا يخالف تعاليم الانجيل مخالفة صريحة وواضحة وموقف قداسة البابا واضح اننا لن نخضع لغير الله وقوانين الكتاب المقدس
وهذه الصفحة لكل مؤيدى قداسة البابا فى موقفه وكل الشباب القبطى الذى يدعم موقف قداسة البابا شنودة فى دفاعه عن تعاليم المسيحية
মিশরের বিচার পদ্ধতি ইসলামি আইনের অধীনে এবং এখন তারা কপ্ট চার্চের উপর চাপ প্রয়োগ করছে, যাতে চার্চ ওই সমস্ত ব্যক্তিদের জন্য দ্বিতীয় বিয়েকে স্বীকৃতি দেয়, যারা আদালতের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ গ্রহণ করেছে। এটা পুরোপুরি বাইবেলের শিক্ষার বিপরীত এবং আমরা এই বিষয়ে পোপকে সমর্থন করি। আমরা ঈশ্বরের বাণীকে অনুসরণ করি এবং আমাদের পবিত্র ধর্মগ্রন্থের নীতিতে চলি। এই পাতা তাদের জন্য যারা পোপের অবস্থানকে সমর্থন করছে।

ঠিক এর বিপরীত দাবি করে ফেসবুকে আরেকটি দল তৈরি করা হয়েছে:

أدعموا حق الاقباط في الحصول علي الطلاق
কপ্ট নাগরিকদের বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকারকে সমর্থন করুন
هذا الجروب يديره أٌقباط يحترمون جدا قداسه البابا شنوده وقراراته .
و لا نريد أن توافق الكنيسه علي الطلاق وتسمح به كما يقول قداسه البابا شنوده ويقر انه ليس علي المحكمه أن تتدخل في قرارات الكنيسه وتلزم الكنيسه لا بالزواج الثاني ولا بالطلاق .

- وانطلاقا من وجهه نظر البابا شنوده بطريريك الكنيسه المرقسيه وكما قال في عظاته بوضوح شديد ” اللي عاوز يتجوز او يطلق يتجو ويطلق مدني ويبعد عن الكنيسه “

- اذن فالجروب هو صرخه موجه لدستور ونظام مصر القانوني نريد أن يخضع القبطي ويعتصم لقانون بلده لينصفه في حاله وجود خصومه في الطلاق او الزواج الثاني .
-وفي عظات البابا انه أعلن ذلك بوضوح لا دخل للكنيسه في شؤون الدوله والعكس صحيح يرفض تدخل الدوله في شؤون الكنيسه .
– إذن فنطالب بتغيير النص القانوني الذي يجعل الاقباط يخضعون للقانون في حاله تغيير المله وتغيير الديانه الي الأتي يخضع القبطي للقانون في حاله رفع دعوي خاصه بالطلاق او بالزواج الثاني للمحكمه من دون الحاجه الي تغير مله أو ديانه .

نجتمع كلنا ونطلب طلاق مدني دستوري يقره القانون لا يتطلب تغيير مله ولا يتطلب اثبات زنا نخضع للقانون المصري الموضوع من قبل الدوله

لأنه للأسف لا يسمح القانون الآن للزوجين للمسيحيين المصريين، بتوثيق عقود زواجهما من خلال المحامى، كما هو الحال للمصريين المسلمين، ويشترط أن يكون الموثق القانونى لعقود زواج المسيحيين المصريين كاهن من حاملى دفاتر وزارة العدل، وعليه فإن الحل الوحيد لراغبى الزواج المدنى من المسيحيين، إما أن يحصل أحدهما على جنسية أخرى
وبالتالى يحق له قانونا أن يوثق عقد زواجه بوصفه مواطنا أجنبيا، أو أن يغير أحدهما ملته، وفى هذه الحالة يمكن أن يقوم أى محامى بدور الموثق، حيث يعتمد القانون المصرى قواعد الزواج العامة فى حالة عدم تطابق ملة الطرفين طالبى الزواج».

وللمره الأخيره النداء موجه للحكومه نريد حل قانوني مدني للأقباط وليس حل كنسي نريد طلاق مدني للأقباط , وليس من حق الكنيسه أن تلوم الدوله علي استجابتها لحقوق مواطنيها .

خلاصه الخلاصه :

مطالبنا مدنيه نرفعها الي المشرع المصري والدوله ولا دخل للكنيسه بالأمر فهي أرقي من أن تتدخل في هذه المشاكل ولنترك الأمر للقضاء يفصل فيه لمن يريد فقط

এই দলটিকে পরিচালনা করছে একজন কপ্ট, যে পোপ সেনুডা এবং তার সিদ্ধান্তকে সম্মান প্রদর্শন করছে। পোপ যেমনটা বিশ্বাস করে সেই হিসেবে আমরা বিবাহ বিচ্ছেদ অথবা পুনরায় বিয়ের জন্য চার্চের উপর জোর করতে চাই না। যেমনটা পোপ পরিষ্কারভাবে তার সারমন বা ধর্মীয় আলোচনার মধ্য দিয়ে প্রদান করা ভাষণে বিষয়টি উপস্থাপন করেছে: যারা বিয়ে করতে চায় বা বিবাহ বিচ্ছেদ নিতে চায় তারা চার্চের বাইরে গিয়ে এই কাজটি করতে পারে”।

এই দল সেই সমস্ত মিশরীয় কপ্ট নাগরিকদের আওয়াজ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে, যারা মিশরীয় আইন এবং সংবিধান মোতাবেক বিয়ে করতে এবং বিবাহ বিচ্ছেদ নিতে চায়।

এই সারমনে, পোপ পরিষ্কারভাবে ঘোষণা দিয়েছে যে চার্চ রাষ্ট্রীয় আইনে হস্তক্ষেপ করবে না এবং যে ভাবে রাষ্ট্র চার্চের উপর প্রভাব তৈরি করার চেষ্টা করছে তাতে তিনি তার অনুমোদন প্রদান করবেন না। এ কারণেই মিশরের কপ্টদের সেই আইনগত বাঁধা পরিবর্তনের দাবি জানাচ্ছি যা তাদের অন্য ধর্ম বা ভিন্ন খ্রিষ্টীয় মত গ্রহণ করতে বাধ্য করে। আমরা মিশরীয় সাংবিধানিক আইনের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদের অধিকার অর্জন করতে চাই, যার মাধ্যমে আমাদের ধর্মান্তরিত না হয়ে বা প্রমাণিত অনৈতিক সম্পর্কে জড়িয়ে না পড়ে এই অধিকার অর্জন করতে পারি।

আমরা মিশরীয় কপ্টরা–সেই একই অধিকার চাই, যা আমাদের দেশের মুসলিম নাগরিকদের রয়েছ। যদি এদেশের মুসলিমরা আইনজীবীদের মাধ্যমে আদালতে গিয়ে বিয়ে করতে পারে (সিভিল ম্যারিজ), তাদের বিয়ে নিবন্ধন করতে পারে, তা হলে কেন আমাদের যাজকের সামনে গিয়ে এই কাজটি করতে হবে? যারা চার্চকে এড়িয়ে বিয়ে করতে চায়, তাদের হয় অন্য দেশের নাগরিকত্ব অথবা অন্য ধর্ম গ্রহণ করতে হয়!

আমাদের দাবির সারসংক্ষেপ: আমাদের দাবি ধর্মীয় নয়, সিভিল বা রাষ্ট্রীয় আইনের প্রয়োগ; এই সব বিষয়ের সাথে চার্চের যুক্ত থাকা উচিত নয়। মিশরীয় হিসেবে আমরা মিশরীয় বিবাহ বিচ্ছেদ আইনের অধীনে থাকতে চাই। যারা আদালতের মাধ্যমে বিবাহ বিচ্ছেদ চায় (সিভিল পদ্ধতিতে বিচ্ছেদ) তারা তাদের মত করে এপথে এগুবে এবং যারা চার্চের আইনের অধীনে যেতে চায়, তারা সেই পথে যাবে।

ব্লগে ফিরে আসা যাক, জেইনাব, বেন্ট মাসরেয়া লিখছে:

فإيه بقى موضوع المحكمة اللي تحكم لصالح المسيحي المطلق إنه يتجوز تاني، حتى لو الكنيسة بتاعته بتحرم ده؟

إيه يعني؟ حد يفهمني؟
هو الراجل المسيحي ده مش راح اتجوز في الكنيسة وبمباركتها؟
جاي عايز ياخد أحكام قضائية تجبر الكنيسة تعمل حاجة هي شايفاها غلط أو خطيئة؟
قال وبنستغرب إن الكنيسة زعلت!!

يعني لو أنا صحيت في يوم من الأيام لقيت المحكمة بتحكم عليا بحاجة ضد شريعة الإسلام، أسمع كلام المحكمة دي بتاع ايه؟
ومش عايزين الكنيسة تتغاظ وتهري وتنكت؟ حد يقول كده يا مسلمين؟

দ্বিতীয় বিয়ে করার জন্য বিবাহ বিচ্ছেদ নেবার পক্ষে আদালতের যে রায়, তার জন্য এত কথা কেন, বিশেষ করে যখন চার্চ সে বিষয়টিকে নিষিদ্ধ করেছে?

এর মানে কি?

এই সমস্ত খ্রিষ্টান ব্যক্তিরা কি চার্চে গিয়ে বিয়ে করেনি এবং আর্শীবাদ লাভ করেনি?
কেন তিনি চাইছেন আইন চার্চের বিশ্বাসের বিরুদ্ধে জোর করতে?

চার্চ আদালতের রায়কে বাতিল করে দিয়েছে, তাতে তারা শঙ্কিত কেন?
আমি একজন মুসলিম, কিন্তু যদি আমি একদিন সকালে উঠে দেখি আদালত ইসলামি আইনের বিরুদ্ধে রায় প্রদান করছে, সেক্ষেত্রে আমি কি তা গ্রহণ করব?

এটা খুব স্বাভাবিক যে এই ঘটনায় চার্চ আহত বোধ করবে

ভয়েস অফ ইজিপ্ট ধর্ম নিরপেক্ষভাবে বিবৃতি দিচ্ছে, যদি তা সঠিক ভাবে করা হয়:

المشكلة هي أن في هذه الدولة عملية الزواج هي عملية مدنية بحتة تقوم بها الدولة أما المراسم الدينية فهي اختيارية يقوم بها أتباع الأديان المختلفة لإطفاء الروحانية علي هذا الزواج. أما في مصر فمبدأ الزواج المدني غير متاح فالموظف المختص بتوثيق زواج المسيحيين هو الكاهن نفسه و مصلحة الشهر العقاري لا توثق إلا زواج الأجانب. و من هنا تأتي المشكلة لأن وفقاً لهذا النظام لا يستطيع المسيحي المطلق من الزواج إلا عن طريق الحصول علي تصريح من الكنيسة.. الشيء الذي أصبح من المستحيلات في ظل تمسك البابا شنودة بعدم اعطاء هذه التصاريح إلا لعلة الزنا. هذا الواقع يضعنا أمام معضلة دستورية فوجود شخص لا يستطيع الزواج متناقص مع المادة التاسعة من الدستور التي تنص علي أن الأسرة أساس المجتمع

الحل اذن ليس في ارغام البابا شنودة علي تنفيذ أحكام القضاء انما في خلق نظام يسمح بالزواج المدني تنظمه الدولة لا يفرق ما بين مسلمين و مسيحيين أو عزاب و مطلقين. رضوخ البابا شنودة لحكم الإدارية العليا ليس حلاً للمشكلة و لا يعد أكثر من “تلصيماً” لها

رسالة أخيرة للعلمانيين و الليبراليين.. ان كنتوا تؤمنون فعلاً بالدولة المدنية فطالبوا بالزواج المدني و كفوا عن هجومكم الساذج علي البابا و الكنيسة

সত্যিকার এক ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে বিয়ে এবং তার কাগজপত্র রাষ্ট্রীয় আইনে (সিভিল) তৈরি করা হয়। এখানে ধর্মীয় অনুষ্ঠান ঐচ্ছিক এক বিষয় এবং দম্পতিদের নিজস্ব পছন্দের বিষয় যে, তারা তাদের বিয়ের সাথে ধর্মীয় দিক যুক্ত করবে কি না। মিশরে সিভিল বা আদালতের মাধ্যমে বিয়ে খ্রিষ্টানদের জন্য কোন বিকল্প নয়, কেবল যে ব্যক্তি বিয়ের নিবন্ধন করতে পারে, সে হচ্ছে একজন ধর্মীয় যাজক। এ কারণেই বিবাহ বিচ্ছেদ নেওয়া কপ্ট খ্রিষ্টান ততক্ষণ বিয়ে করতে পারে না, যতক্ষণ না চার্চ তাকে বিয়ের অনুমতি প্রদান করে। এদিকে পোপ তাদের বিয়ে দিতে অস্বীকার করে, যদি না তারা প্রাপ্তবয়স্ক সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে।

এটা সংবিধানের ৯ নম্বর ধারার সাথে মিলে না, যা বর্ণনা করে পরিবার সামজের মূল্য কি ।

এই সমস্যার এ ধরনের সমাধানের অর্থ এই নয় যে, খ্রিষ্টানদের বিবাহ বিচ্ছেদের অনুমতি প্রদান করে আদালত যে আদেশ দিয়েছে, তা জোর করে মানতে পোপকে বাধ্য করা; এই সমাধান এমন এক ব্যবস্থা তৈরি করা চেষ্টা করছে, যাতে সকল নাগরিক আদালতে গিয়ে বিয়ে করতে পারে, তাদের ধর্ম বা ধর্মীয় বৈবাহিক ধারণার বাইরে।

মিশরের ধর্মনিরপেক্ষ এবং উদারনৈতিকবাদীদের একটি শেষ আহ্বান; যদি সত্যিই আপনারা ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্রে বিশ্বাস করেন, তা হলে লোকজন এবং চার্চকে আক্রমণ করার বদলে আদালতের মাধ্যমে করা বিয়ের (সিভিল ম্যারিজ) অনুমোদন দিন।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .