বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

চীন: নতুন গৃহায়ন নীতি বাজারের উপর আঘাত হেনেছে

১৭ এপ্রিল রাষ্ট্রীয় নীতি নির্ধারণী সংস্থার (স্টেটস কাউন্সিল) জারী করা নতুন গৃহায়ন নীতি জনতার অভূতপূর্ব প্রতিক্রিয়ার মুখে পড়ে, সাউদার্ন উইকএন্ড এই সংবাদ জানাচ্ছে। বিশ্লেষক এবং অর্থনীতিবিদেরা এই নীতিকে “ইতিহাসের সবচেয়ে কঠোর নীতি” বলে অভিহিত করেছেন।
গুয়াংডং-এর গুয়াঝুতে নির্মাণ কাজ চলছে, (ছবি/ডন ওয়েইনল্যান্ড)

রাষ্ট্রীয় নীতি নির্ধারক সংস্থা (স্টেট কাউন্সিল) দ্বিতীয় বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে ঋণের বিপরীতে যে নগদ অর্থ প্রদান করতে হয় (ডাউন পেমেন্ট) তার পরিমাণের হার বাড়িয়ে দেবার অনুরোধ জানিয়েছে। ক্রেতা যদি এমন কোন দ্বিতীয় বাড়ি কেনার কথা ভাবে, যার পরিধি ৯০ স্কোয়ার মিটারের কম, সেক্ষেত্রে ক্রেতাকে যে নগদ অর্থ প্রদান করতে হবে (ডাউন পেমেন্ট) তা কোনভাবে ৫০ শতাংশ-এর কম হতে পারবে না। বাসার প্রস্থ ৯০ স্কোয়ার মিটারের বেশি হলে ক্রেতাকে ঋণ নেবার সময় ক্রেতাকে যে পরিমাণ নগদ অর্থ প্রদান করতে হবে, তা ঋণের ৩০ শতাংশের কম হতে পারবে না।

তিন নম্বর কোন বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে ঋণ প্রদান সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে, বাইরের অঞ্চল থেকে আসা সেই সমস্ত ক্রেতার জন্য ঋণের ব্যবস্থা রয়েছে, যারা কিনা এক বছর স্থানীয় কর ও সামাজিক বীমার টাকা প্রদানের প্রমাণ দাখিল করতে পারে না। তিন নম্বর গৃহ কেনার জন্য এটাই প্রথম নীতি, এ তথ্য সাউদার্ন উইকএন্ডের।

এই নীতি গৃহ নির্মাণ (রিয়েল স্টেটস) প্রতিষ্ঠানসমূহকে নিয়ন্ত্রণ এবং দমন করার প্রচেষ্টা হিসেবে দেখা হচ্ছে। অনেকে বিশ্বাস করে এটি একটি স্বাস্থ্যকর বাজারকে নষ্ট করবে এবং বাড়ির দাম আকাশ ছোঁয়ার মত অবস্থায় পৌঁছে যাবে।

২০০৩ সালের পর এ খাতে বিস্তৃত কিছু নীতি গ্রহণ করা হয়েছে, যা চীনের গৃহ নির্মাণের বাজারকে কখনো সঠিক বা কখনো ভুল পথে নিয়ে গেছে। যার ফলে এই বাজারের অবস্থা বেশ উঠা নামা করেছে। ব্লগার ঝু ডামিং লিখেছেন, এপ্রিলের নীতিতে যে ত্রুটি, তার পরিবর্তন অবশ্যই অতীতের বিপর্যয় থেকে শিক্ষা নিয়ে করা উচিত। তিনি পরামর্শ প্রদান করছেন যে দুই নম্বর বাসাটি কেনার ক্ষেত্রে ঋণ নিয়ন্ত্রণের যে নীতি, তা শেষ পর্যন্ত বাজারের অস্থিরতাকে বাড়িয়ে তুলবে।

从历史上看,二套房贷政策虽然能够在短时间内扼住市场的脖子,但 后来的反弹是更猛烈,二套房贷政策是一项被实践证明是错误的政策。2007年收紧二套房政策,是导致2008年成交量暴跌的最主要工具,但是,暂时的打压 并没有真正解决房地产的问题,反而导致2009年房地产市场的暴涨。

এক ঐতিহাসিক দৃষ্টিভঙ্গি থেকে এই নীতির আগমন ঘটেছে। এটি দ্বিতীয় কোন গৃহ ক্রয়ের ক্ষেত্রে ঋণ প্রদানের ব্যাপারে এটি এক সচেতনার বিষয়, যা স্বল্প কিছু সময়ের জন্য বাজারকে নিয়ন্ত্রণে রাখবে। কিন্তু এরপর এর ফলে যে পাল্ট চাপ তৈরি হবে, তা হবে ভয়ঙ্কর। এই নীতি বাস্তব ক্ষেত্রে ত্রুটিপূর্ণ হিসেবে প্রমাণিত হয়েছে। ২০০৭ সালের এই নীতির কারণে দ্বিতীয় কোনা বাড়ি কেনার বিষয়টিকে কঠিন হয়ে পড়ে, যার ফলে ২০০৮ সালে ভবন বিক্রির পরিমাণ দ্রুত পড়ে যেতে থাকে। তবে সাময়িক কোন চাপের মধ্যে রেখে গৃহয়ান বাজার ব্যবস্থার সমস্যার সমাধান করা সম্ভব না। অন্যদিকে এই ঘটনাটি ২০০৯ সালে বাড়ির দাম ভয়াবহ পরিমাণ বৃদ্ধি করেছিল।

ব্লগার সুয়োইয়ান উজি নতুন নীতিকে মধ্যবিত্ত শ্রেণীর ভবিষ্যৎ কর্মকাণ্ডের উপর প্রভাব ফেলার নীতি হিসেবে দেখছেন। তিনি বলেন, এর বীপরিতে জনপ্রিয় বিশ্বাস, মধ্য-আয়ের জনতা এই ফটকাবাজিতে (মূলত অনুমানের উপর ভিত্তি করে বা সম্ভাব্য কাজে) অংশ নেয়। নতুন নীতি তাদের এই দৃশ্যপট থেকে অদৃশ্য করে ফেলবে। তিনি এ কথা লিখেছেন।

首先是首付的提高本身会对投资和投机性购房形成一定的压制。当前参与投资和投机性购房的不仅仅是高收入 人群,只要有能力支付首付的一般收入家庭也踊跃的参与其中。面对首付提高,相当于提高了炒房的准入门槛,势必将绝大部分一般收入人群排挤出炒客行列,由此 而一定程度的降低市场冲动。

প্রথমত, ঋণের বীপরিতে প্রদান করা অর্থের পরিমাণ (ডাউন পেমেন্ট) বাড়িয়ে দেবার ফলে যে জটিলতা দেখা সেটি বিনিয়োগ এবং সম্ভাব্য কোন বাড়ি কেনার ক্ষেত্রে একটা নির্দিষ্ট পরিমাণ চাপ তৈরি করবে। বর্তমানে যারা বিনিয়োগে অংশ নেয় এবং ফটকাবাজীর মাধ্যমে ক্রয়ের বিষয়গুলো এখন কেবল উচ্চ আয়ের জনগোষ্ঠীর মধ্যে সীমাবদ্ধ নেই। মধ্য আয়ের গৃহস্থালি যাদের ঋণের বিপরীতে টাকা প্রদান করার জন্য (ডাউন পেমেন্ট)-এর জন্য প্রচুর সম্পদ রয়েছে, তারা উৎসাহের সাথে এই সমস্ত কর্মকাণ্ডে অংশ নেয়। প্রথম বার প্রদান করার অর্থের পরিমাণ বেড়ে যাওয়ার মত ঘটনার মুখোমুখি হওয়ার বিষয়টি সম্ভাব্য বাড়ি কেনার মত একটি ঝুঁকির মুখে ফেলে দেয় এবং মধ্য আয়ের জনগোষ্ঠীর বেশিরভাগকে লোককে সম্ভব্য ক্রেতার তালিকা থেকে অপসারিত করে- এ রকম এক ঘটনা, তা এক নির্দিষ্ট মাত্রায়- বাজারের অবস্থা পড়ে যাওয়ার কারণ ঘটায়।

ব্লগার ঝু ডামিং এর সাথে দ্বিমত পোষণ করেন। তিনি লিখেছেন যে সম্ভাব্য ক্রেতারা বাজার দর ওঠানামার কারণ হয়ে দাঁড়ায়, এই নীতি এটি নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করবে।

为什么炒房客不惧信贷收紧呢?最主要的因素是,他们对于政策制造波段很有心得,而且,他们的资金通常是很大,贷款不贷款都无所谓。

কেন সম্ভাব্য ক্রেতা কি গৃহঋণ পাবার ক্ষেত্রে কঠিন শর্ত তৈরিতে শঙ্কিত? এর মূল কারণটি হচ্ছে এই নীতির ফলে বাজারে যে কম্পনের সৃষ্টি হবে তা বোঝার ক্ষমতা তারা রাখে এবং তাদের অর্থের উৎসের পরিধি সাধারণত অনেক বিশাল। [তারা] এই ঋণ প্রাপ্তির ব্যাপারে উদাসীন।

ব্লগার ইয়ু ফেঙ্গহুই লিখেছে যে নতুন এই নীতি সম্ভবত বাজারে বিশেষ কায়েমি স্বার্থবাদী দলকে হুমকির মুখে ফেলে দেবে। তবে তিনি বের করেছেন এই সমস্ত স্বার্থবাদী গোষ্ঠী এই নীতির ক্ষেত্রে পাল্টা এক ভারসাম্যপূর্ণ সুবিধা নিতে যাচ্ছে, যার উদ্দেশ্য হচ্ছে তাদের লাভের অংশকে অদৃশ্য করে ফেলা।

…必须清醒认识到,楼市新政绝不会一帆风顺,巨 大阻力将会逐步出现。这么大的调控力度,这么重的拳,将会伤及从房地产中获得多少年巨大利益、已经结成同盟的特殊利益集团。这些特殊利益集团绝不会甘心, 绝不会坐以待毙,绝不会眼睁睁看着自己的既得利益被夺去。一定会绞尽脑汁、使出浑身解数抵制、反对甚至反扑楼市新政,竭力合谋维护特殊利益集团的利益。笔 者预计在楼市新政进入实施阶段,取得初步效果时,这些特殊利益集团就会出招。

পরিষ্কারভাবে আমাদের এই বিষয়টিকে চিহ্নিত করতে হবে যে গৃহ নির্মাণ প্রতিষ্ঠান (রিয়েল স্টেটস) বাজার নীতি সহজ বিক্রয়ের জন্য নয়। উন্নত এক প্রতিরোধের মাধ্যমে উন্নয়নকে ধীরে ধীরে বস্তুগত উপাদানে পরিণত করা হবে। এ রকম এক শক্তিশালী নিয়মের থেকে আসা ভয়াবহ আঘাত বিশেষ স্বার্থবাদী দলকে আহত করতে পারে, যারা ইতোমধ্যে একটি জোট তৈরি করেছে এবং তারা বাজার থেকে ব্যাপক সুযোগ নিয়ে নিয়েছে। এতে এই বিশেষ দল অন্তত খুশি হবে না। তারা এই ভাবে বাজার পড়ে যাবার বিষয়টিকে গ্রহণ করবে না। তারা চোখ খোলা রেখে সবকিছু দেখছে যে তাদের কায়েমি স্বার্থকে ধ্বংস করা ফেলা হচ্ছে। তার নিশ্চিতভাবে তাদের মস্তিককে কাজে লাগাবে এবং সকল ক্ষমতা ব্যবহার করে এই ঘটনার প্রতিরোধ, বিরোধিতা এবং এমনকি এই বাজার নীতির বিরুদ্ধে পাল্টা আক্রমণ গড়ে তুলবে, এক শক্ত প্রচেষ্টা হিসেবে যাতে তাদের লক্ষ্য সংরক্ষণ করা সম্ভব হয়। লেখক ধারণা করছেন যখন এই নীতির প্রয়োগ করা শুরু হবে এবং তার প্রথমিক উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে, তখন এই বিশেষ দল তাদের চাল চালা শুরু করবে।

এই বিষয়ে বিশেষ আগ্রহী দল ছাড়াও, সাউদার্ন উইকএন্ড বর্ণনা করেছেন যে স্বল্প সময়ের প্রেক্ষাপটে বিনিয়োগকারীদের উপর এটি তৎক্ষণাৎ একটি প্রভাব তৈরি করবে। সংবাদপত্রে সূত্রানসারে, ১৫-১৮ এপ্রিল তারিখে বেইজিং গৃহায়ন বা রিয়েল এস্টেট কোম্পানীগুলো দেখতে পেলে গৃহপোকরণের দাম ৪০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে, যার ফলে বাড়ী কেনা ক্রেতার পরিমাণ ৮০ শতাংশ কমে গেছে।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .