বন্ধ করুন

আমাদের স্বেচ্ছাসেবক সম্প্রদায় কাজ করে যাচ্ছে বিশ্বের কোনা থেকে না বলা গল্পগুলো আপনাদের কাছে তুলে ধরতে। তবে আপনাদের সাহায্য ছাড়া আমরা তা পারব না। আমাদের সম্পাদনা, প্রযুক্তি এবং প্রচারণা দলগুলোকে সুষ্ঠুভাবে চলতে সহায়তার জন্যে আপনারা আপনাদের দানের অংশ থেকে কিছু গ্লোবাল ভয়েসেসকে দিতে পারেন।

সাহায্য করুন

উপরের ভাষাগুলো দেখছেন? আমরা গ্লোবাল ভয়েসেস এর গল্পগুলো অনুবাদ করেছি অনেক ভাষায় যাতে বিশ্বজুড়ে মানুষ এগুলো সহজে পড়তে পারে।

আরও জানুন লিঙ্গুয়া অনুবাদ  »

কলম্বিয়া: দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা সফল হয়েছে

দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা প্রতি চার বছরে অনুষ্ঠিত হয় যেখানে দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া সংস্থার (ওডেসুর – স্প্যানিশ ভাষায় আদ্যাক্ষরে) সদস্য দেশগুলো অংশগ্রহণ করে। আর একই সাথে আয়োজক দেশের ক্রীড়ানুরাগীদের অংশগ্রহণে এটি গুরুত্বপূর্ণ খেলার অনুষ্ঠানে পরিণত হয়। যে শহরে এই খেলার নবম সংস্করণ আয়োজন করা হয়েছিল তা হচ্ছে কলম্বিয়ার মেডেলিন। মার্চ ১৯ – ৩০ তারিখের মধ্যে শহরবাসীরা এই অনুষ্ঠান দেখতে পেরেছেন, কেবলমাত্র বিভিন্ন প্রতিযোগিতার স্থানে না, বরং শহর জুড়েও। কারণ প্রতিযোগিতা চলার সময়ে প্রায় ৩০০০ ক্রীড়াবিদ শহর-ব্যাপী ঘুরে বেরিয়েছেন মেট্রোতে, যেটা তাদের জন্য অফিসিয়াল বাহন হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

জিমন্যাস্টিক্স প্রতিযোগিতা। ছবি টেলিমেডেলিনের সৌজন্যে এবং ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের আওতায় ব্যবহৃত

জিমন্যাস্টিক্স প্রতিযোগিতা। ছবি টেলিমেডেলিনের সৌজন্যে এবং ক্রিয়েটিভ কমন্স লাইসেন্সের আওতায় ব্যবহৃত

সাধারণত, এই ধরনের অনুষ্ঠানের প্রতি জনমত খুব ভালো হয়ে থাকে আর নাগরিকদের সাড়া গণপ্রশাসনের কাজকেও ছাড়িয়ে যায়। খেলা শুরু হওয়ার মুহূর্ত থেকে শেষ হওয়া পর্যন্ত টুইটার একটি প্লাটফর্ম ছিল যেখানে হ্যাশট্যাগ #সুরামেরিকানোস ব্যবহার করে সকলে জানতে পারতেন যে মেডেলিনে কি হচ্ছে। কোন সন্দেহ ছাড়া প্রতিটি মেডেল দেয়ার পরে অনেক উৎসাহ দেখা যেত টুইটে, আর স্থানীয় টেলিভিশন চ্যানেল টেলিমেডেলিনের টুইটারের মাধ্যমে টুইটার সমাজ সরাসরি বিভিন্ন খেলার ফলাফল জানতে পারতেন। ‘পায়সা’দের (মেডেলিন আর আশপাশের এলাকার বাসিন্দাদের দেয়া নাম) আনন্দও এই টুইটে দেখা যেত। মওরিশিও জারামিল্লো (@মাওরিচিওজারামিল) লিখেছেন:

Presidente de Odesur declara los #Suramericanos de 2010 como los mejores de la historia. ¡Felicitaciones, Medellín!

ওডেসুরের প্রেসিডেন্ট জানিয়েছেন যে ২০১০ সালের দক্ষিণ আমেরিকার ক্রীড়া তার ইতিহাসের সব থেকে ভালো ছিল। শুভেচ্ছা, মেডেলিন!

আনা ভেলেজ (@লানানাভেলেজ) সমাপনী অনুষ্ঠানের পরে জানিয়েছেন:

Y se nos acabaron los #suramericanos Medellín 2010… anoche estuvo bonita la clausura. Sigamos organizando eventos así en Medellín.

দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা মেডেলিন ২০১০ শেষ হয়েছে…গত রাতের সমাপনী অনুষ্ঠান সুন্দর ছিল। চলুন আমরা এই ধরণের অনুষ্ঠান মেডেলিনে আরো করি।

প্রতিযোগিতা শেষ হওয়ার একদিন আগে ডিজিটাল ম্যাগাজিন ইকুইনক্সিওতে একটা প্যারা প্রকাশিত হয়েছিল যা সাধারণ নাগরিকের ধারণা তুলে ধরেছে:

Estas olimpiadas suramericanas han sido un verdadero éxito, tanto en lo deportivo —por la resonante victoria colombiana, que barrió en disciplinas como el patinaje, ciclismo y bolos, además de haber ganado el torneo de fútbol, al mando de Ramiro Viáfara— como en la organización. Medellín y las sedes alternas se lucieron con la puesta a punto de los escenarios dispuestos para cada una de las disciplinas. La gente asistió y apoyó masivamente a los deportistas nacionales y extranjeros. Las delegaciones fueron acogidas cálidamente en la Villa Olímpica. La ceremonia inaugural fue impresionante.

এইবার দক্ষিণ আমেরিকান অলিম্পিয়াড সফল হয়েছে, ক্রীড়া জগতে- কলম্বিয়ার বিজয়ে, যারা স্কেটিং, সাইক্লিং আর বোলিং এর মতো খেলায় জিতেছে, আর একইসাথে ফুটবল খেলা – রামিরো ভাইফারার নেতৃত্বে। মেডেলিন আর অন্যান্য স্থানও উজ্জ্বল হয়ে উঠেছে সেখানে অনুষ্ঠিত খেলার জন্য। মানুষ জাতীয় আর বিদেশী ক্রীড়াবিদদের বিপুলভাবে সমর্থন করেছেন। অলিম্পিক গ্রামে প্রতিনিধিদের উষ্ণ অভ্যর্থনা জানান হয়েছে। উদ্বোধনী অনুষ্ঠান খুব ভালো ছিল।

তবে, খুশি আর গর্ব সত্ত্বেও গ্লোবাল ভয়েসেস এর লেখিকা লালি পোসাদা, লিখেছেন যে এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতার উদ্বোধনী দিনে স্টেডিয়ামের আশেপাশে শ্রমিকরা বিক্ষোভ করেছেন

Me pidieron que utilizara una vía alterna a la que estaba señalizada y rodeada por una cantidad exagerada de policías, que tenían un cerco en el sector debido a una manifestación de la clase obrera. Sí, era la otra cara de los juegos, la clase trabajadora que se había reunido desde sus diferentes grupos para dejar un precedente de queja por la carencia de un empleo digno, un empleo bien remunerado, las injusticias con el trabajador colombiano y la posible venta de empresas.

আমাকে আর একটা রাস্তা ব্যবহার করতে বলা হয় যেখানে অনেক পুলিশ দিয়ে ঘেরা ছিল, যাদের নিরাপদ একটি এলাকা ঘেরা ছিল শ্রমিকদের বিক্ষোভের কারনে। হ্যাঁ, এটা খেলার আর একটা দিক দেখিয়েছে, শ্রমিক শ্রেনী যারা বিভিন্ন দল থেকে একত্র হয়েছিল তাদের অভিযোগ দেখানোর জন্য ভালো চাকুরির অভাব, ভালো-বেতনের চাকুরি, কলম্বিয়াতে শ্রমিকদের প্রতি অবিচার আর ব্যবসা বিক্রির সম্ভাবনা নিয়ে বিক্ষোভ দেখাতে।

অনেকে মনে করেন একই সাথে এই ক্রীড়া শহরের সামাজিক সমস্যা লুকাতে কৌশলি ছিল কর্তৃপক্ষ। টোমাজ গারসিয়া লিখেছেন:

Llegan a la ciudad los “IX Juegos Suramericanos Medellín 2010″, obligando a los paisas a vestirse como gente decente y prepararse para simular ante los turistas que Medellín vale la pena.

‘নবম দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা মেডেলিন ২০১০’ শুরু হয়েছে, যা পায়সাদের (স্থানীয় বাসিন্দা মেডক্সেলিনের) জোর করে ভালো পোষাক পরে পর্যটকদের উদ্বুদ্ধ করছে যে মেডেলিন তাদের আসার যোগ্য স্থান।

কিছু ব্লগার এই খেলা নিয়ে কিছু কৌতুক করেছেন, যেমন গ্লোবটেরর ব্লগের লেখক যিনি মেডেলিনের দুর্নাম আর মাদক ব্যবসা নিয়ে লিখেছেন ব্যঙ্গ করে যে ‘স্থানীয় অর্থনীতিকে চাঙ্গা’ করার জন্য এই প্রতিযোগিতার কর্তৃপক্ষ চিন্তা করছিল মাদক পরীক্ষা বাদ দেয়ার

খেলার আগে, চলাকালীন আর পরে, মেডেলিনে অনেকের মনে একটা প্রশ্ন ছিল, যা শুনিয়েছেন কুয়ান্তাস পালাব্রেস ব্লগের জর্জ লুইস রোকা:

JuanSe Molina, contacto en Facebook y blogger, en un comentario sarcástico y extremista, decía que en los Juegos Sudamericanos Medellín 2010 iba a estar gente de todo el mundo… menos de Medellín, cosa que me parece muy acertada. Hace un año la ciudad vivió la visita del Banco Interamericano de Desarrollo (BID) y durante esa semana los gamines, habitantes de la calle o desechables -como los quieran llamar- desaparecieron. No se sabía adónde los habían mandado, el hecho es que no se veían por ahí.

জুয়ান্সে মোলিনা, আমার ফেসবুক বন্ধু এবং একজন ব্লগার, একটা ব্যাঙ্গাত্মক আর মারাত্মক মন্তব্যে বলেছেন যে দক্ষিণ আমেরিকান ক্রীড়া প্রতিযোগিতা মেডেলিন ২০১০ এ সারা বিশ্বের মানুষ থাকবে…মেডেলিন ছাড়া, যেটা মনে হচ্ছে ঠিক আছে। এক বছর আগে, ইন্টার-আমেরিকান ব্যাঙ্ক শহরে এসেছিল আর সেই সময়ে ‘গামিনিরা’ (যারা রাস্তায় থাকেন) বা ফেলে রাখারা- বা আপনি তাদেরকে যা বলতে চান- অদৃশ্য হয়ে গিয়েছিল। কেউ জানেনা তাদেরকে কোথায় পাঠানো হয়েছিল, কিন্তু আসল জিনিষ হলো তাদেরকে আর দেখা যায়নি।

আলোচনা শুরু করুন

লেখকেরা, অনুগ্রহ করে লগ ইন »

নীতিমালা

  • অনুগ্রহ করে অপরের মন্তব্যকে শ্রদ্ধা করুন. যেসব মন্তব্যে গালাগালি, ঘৃণা, অবিবেচনা প্রসূত ব্যক্তিগত আক্রমণ থাকবে সেগুলো প্রকাশের অনুমতি দেয়া হবে না .